ফার্মাকেয়ার রিপ্রেজেন্টেটিভ মোস্তাফিজ নিখোঁজ ?

137

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইল সদর উপজেলার আগদিয়া গ্রামের মাওলানা আব্দুর রউফের বাড়ির ভাড়াটিয়া ও একটি ওষুধ কোম্পানীর ফিল্ড অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান নিখোঁজ না কি আত্মগোপন করেছেন? গত ১৯ জানুয়ারীর পর থেকে তার কোন সন্ধান মেলেনি। এঘটনায় তার ভাই থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

জানাগেছে, সিরাজগঞ্জ জেলার কাশিহাটা গ্রামের হযরত আলী তালুকদারের ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান তালুকদার (৩৫) নড়াইল সদর উপজেলার আগদিয়া গ্রামের মাওলানা আব্দুর রউফের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। তিনি ফার্মাকেয়ার ল্যাবরেটরিজ (ইউনানি) ওষুধ কোম্পানীর রিপ্রেজেন্টেটিভের চাকুরী করতেন।

নিখোঁজ মোস্তাফিজুরের ভাই কামাল হোসেন কর্তৃক গত ২৫/০১/১৬ তারিখ যশোরের অভয়নগর থানায় দায়েরকতৃ একটি সাধারণ ডায়েরিতে (নং-৯৭২) উল্লেখ করেন যে, তার ভাই ফার্মাকেয়ার ল্যাবরেটরিজ (ইউনানি) কোম্পানীতে চাকুরী করতেন। গত ১৯/০১১/১৬ তারিখ দুপুর আড়াইটার দিকে যশোরের নওয়াপাড়া বাজারের কুন্ডেশ্বরী ঔষাধলয়ে ওষুধ সরবরাহ করে আর ভাড়াটিয়ার বাড়িতে ফিরে আসেনি।

অপর দিকে নিখোঁজ মোস্তাফিজুর রহমান কর্তৃক এক বছর আগে গত ২১/০১/১৫ তারিখে খুলনার রূপসা থানায় দায়েরকৃত একটি সাধারণ ডায়েরীতে (জিডিনং-৮৪৬, তাং-২১/০১/১৫) উল্লেখ করেন যে, তিনি এ.পি.এস ল্যাবরেটরিজ এ ফিল্ড অফিসার পদে কর্মরত থাকা অবস্থায় তার সহকর্মী খুলনার রূপসা থানার নৈহাটী শ্রীরামপুর গ্রামের জয়দেব রায়ের ছেলে উজ্জ্বল রায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে গালমন্দসহ জীবননাশের হুমকি দিয়ে আসছিল। জীবনের নিরাপত্তাহীনতার কারনে তিনি সাধারণ ডায়েরী করেন বলে উল্লেখ করেন।

এদিকে নিঁেখাজ মোস্তাফিজুরের বাসার মালিক মাওঃ আব্দুর রউফ জানান, মোস্তাফিজ নিখোঁজের পর বিভিন্ন এলাকার লোক তাঁর বাড়িতে এসেছেন। চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে নড়াইল সদর উপজেলার শিমুলিয়া গ্রামের হাদিয়ার রহমানের কাছ থেকে ৮৪ হাজার টাকা, আগদিয়া গ্রামের সেকেন্দার মোল্যার কাছ থেকে ২০হাজার টাকা, শুকুর সিকদারের কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা, সোবহান কাজীর নিকট থেকে ৪০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ করেন। এখন তিনি নিখোঁজ নাকি নিজেই আত্মগোপন করেছেন তা বোধগম্য নয়। বিষয়টি নিয়ে তিনিও দুঃশ্চিন্তায় রয়েছেন। তবে সে দ্রুত ফিরে আসুক এই কামনা করি।