নড়াইলে জোর করে ১১লাখ টাকার চেক নেওয়ার অভিযোগ, প্রতিবাদে মুলিয়ায় মানববন্ধন

141

নড়াইলকণ্ঠ ॥ নড়াইল সদর উপজেলার মুলিয়া গ্রামের শিক্ষক কল্যাণ বিশ্বাসের কাছ থেকে জোর করে ১১ লাখ টাকার চেক নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়েছে।

শুক্রবার (০২ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে মুলিয়া বাজারে এ কর্মসূচি হয়। কল্যাণ বিশ্বাস (লালু) নড়াইল সদর উপজেলার হাড়িয়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।
মানববন্ধন ও সমাবেশে চলাকালে বক্তব্য রাখেন, মুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রবিন অধিকারী, সাবেক চেয়ারম্যান বিপুল বিশ্বাসসহ প্রমুখ।

কল্যাণ বিশ্বাস জানান, গত ১০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে নড়াইল পৌর এলাকার দক্ষিণ নড়াইল গ্রামের নজরুল ইসলাম ও প্রতীক সাধন বিশ্বাসের নেতৃত্বে ৯-১০জন লোক মুলিয়া খেলার মাঠ এলাকায় ভিন্ন একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত ও অপমান করে। পরে তাকে জিম্মি করে বাড়িতে নিয়ে জোরপূর্বক ১১ লাখ টাকার একটি চেক লিখে নেয়।

কল্যাণ বিশ্বাস আরো জানান, আমার ওপর এধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও জীবননাশের হুমকির সমাজ ও দলীয় পর্যায় ঘুওে কোন বিচার না পেয়ে গত ২৮ সেপ্টেম্বর নড়াইল সদর থানায় একটি এজাহার করি। সেখান থেকেও কোন পদক্ষেপ গ্রহণ আজও নেওয়া হয়নি তাই আজ সাংবাদিকদের ডেকে মানববন্ধন ও সাংবাদিক সম্মেলন করছি। বর্তমানে আমরা মুলিয়া এলাকার এলাকার হিন্দু সম্প্রদায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগতেছি।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত নজরুল ইসলাম মুঠোফোনে নড়াইলকণ্ঠকে বলেন, কল্যান বিশ্বাসের (লালু) শ্যালক লিটন দত্তের কাছে ১১ লাখ টাকা পাব। ওই টাকা নেওয়ার সময়ে কল্যাণ বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন। লিটন দত্ত এলাকা থেকে চলে গেছেন। তাই কল্যাণের কাছ থেকে ১১ লাখ টাকার চেক নেওয়া হয়েছে। তিনি স্বেচ্ছায় চেকটি দিয়েছিলেন। জোর করা হয়নি। পরে চেকটি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে দিয়ে দেওয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত নড়াইল পৌর এলাকার প্রতীক সাধন বিশ্বাস মুটোফোনে নড়াইলকণ্ঠকে বলেন, চেক নেওয়ার সময় আমি ছিলাম না। লিটন দত্তের সাথে আমি বালি ব্যবসা করি। লিটন দত্ত কল্যান বিশ্বাসের (লালু) ভগ্নিপতি। লিটন দত্তের কাছে আমি প্রায় ১৫ লক্ষ টাকা পাই সেটা কল্যান বিশ্বাসের জানা। তিনি চেকটি স্বেচ্ছায় নজরুলকে দিয়েছিলেন এবং নজরুল সেই চেক পরবর্তীতে মুলিয়ার চেয়ারম্যান রবিন্দ্রনাথ অধিকারির নিকট জিম্বায় রেখেছেন। কল্যান বিশ্বাস আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনেছেন তা সম্পূর্ণ বানোয়াটি, অসত্য ও ভুয়া।

মানববন্ধন চলাকালে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ অধিকারী, সাবেক চেয়ারম্যান বিপুল সিকদার, দীপক বিশ্বাসসহ অনেকে।

মানববন্ধনে মুলিয়াসহ পার্শ্ববর্তী এলাকার কয়েকশত নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন।