ভারতের দ্বীপপুঞ্জে এখনও করোনায় কেউ আক্রান্ত হয়নি

16

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : কোভিড-১৯ সংক্রমণে ভারত যখন অন্যতম গ্লোবাল হটস্পট’ হয়ে উঠতে চলেছে, তখন সে দেশেই কোভিড মোকাবিলায় এক বিরল নজির তৈরি করেছে লাক্ষাদ্বীপ। ৩৬টি দ্বীপকে ৭০ লাখ বাসিন্দা নিয়ে গঠিত আরব সাগরের এই দ্বীপপুঞ্জটি ভারতের একমাত্র অঞ্চল, যেখানে আজ পর্যন্ত একটিও পজিটিভ কেস শনাক্ত হয়নি।

৯৭ শতাংশ মুসলিম জনগোষ্ঠীর এই অঞ্চলে এখন স্কুল খোলার জন্য কেন্দ্রের অনুমতি চেয়েছে। যেখানে সারাবিশ্ব প্রায় স্থবির হয়ে রয়েছে।

লাক্ষাদ্বীপের এমপি মোহাম্মদ ফয়জল বলেন, শুরু থেকেই দ্বীপে বহিরাগতের আগমন একদম বন্ধ করা হয়েছিল আর তাতেই সুফল পাওয়া গেছে।

এমপি ফয়জল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, যখন জানুয়ারি শেষে কেরেলায় প্রথম কোভিড রোগীর সন্ধান মেলে, আমরা প্রথমেই সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে দেশি ও বিদেশি পর্যটকদের আসা বন্ধ করে দিই। এমন কি, এন্ট্রি পারমিট নিয়ে যারা এখানে ঠিকা শ্রমিকের কাজ করতে আসেন তাদের জন্যও লাক্ষাদ্বীপের দরজা বন্ধ করে দেওয়া হয়। পুলিশ এখানে কারফিউ বা ১৪৪ ধারাও খুব কঠোরভাবে বলবৎ করেছে, লোকজনও অযথা বাড়ির বাইরে বেরোননি।

দ্বীপটিতে যাদের জরুরি চিকিৎসা বা বিশেষ প্রয়োজনে মূল ভূখন্ডে যেতে হয়েছে তাদের জন্য কোচিতে আমরা দুটো কোয়ারেন্টিন সেন্টারও চালু করা হয়েছে। সেখান সাতদিন কোয়ারেন্টিনে থেকে টেস্টে নেগেটিভ হলে তবেই তারা ফেরত আসার অনুমতি পেয়েছন।

একটা বিশেষত্ব হল, বাকি দেশে যখন কোয়ারেন্টিনে থাকার খরচ নিজেদেরই দিতে হচ্ছে – লাক্ষাদ্বীপের ক্ষেত্রে সরকারই সেটা দিচ্ছে আর লোকজনও তাই থাকতে কোনও আপত্তি করছেন না।

তবে দ্বীপের বাসিন্দাদের কোয়ারেন্টিন সেন্টার বা হোটেলে থাকার খরচ প্রশাসন বহন করলেও পর্যটন-নির্ভল এই দ্বীপটির অর্থনীতি যে বিরাট ধাক্কা খেয়েছে বলেও স্বাকীর করেছেন এমপি মহম্মদ ফয়জল।