‘মিয়ানমার সেনাবাহিনী মানবতাবিরোধী অপরাধ থেকে নিজেদের দূরে রাখতে পারেনি` -জাতিসংঘ

66

নড়াইল কণ্ঠ : ‘মিয়ানমার সেনাবাহিনী অপরাধ থেকে নিজেদের দূরে রাখতে পারেনি। এখনো দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় চিন ও রাখাইন রাজ্যে মানবতাবিরোধী অপরাধে যুক্ত তারা। এই দুটি অঞ্চলে সহিংসতার যে অভিযোগ আসছে তার তদন্তও চেয়েছেন তিনি।’ গতকাল বুধবার (২৯ এপ্রিল) জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলের এক বিজ্ঞপ্তিতে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষ দূত ইয়াংহি লি এ কথা বলেন।

বিজ্ঞপ্তিতে ইয়াংহি লি বলেন, বিশ্ব এখন করোনাভাইরাসের সংক্রমণে জর্জরিত। অথচ এই পরিস্থিতির মধ্যে মিয়ামারের সেনারা রাখাইন রাজ্যে সাধারণ জনগণের ওপর তাদের অত্যাচারের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে।

তিনি বলেন, বৈশ্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে যুদ্ধ বন্ধের যে আহ্বান জানানো হয়েছে তা মানছে না মিয়ানমারের সেনাবাহিনী এবং আরাকান আর্মি। তাদের কর্মকাণ্ডের কারণে রাখাইনের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর মধ্যে চরম সংকট বিরাজ করছে। ওই অঞ্চলে অমানবিকভাবে আন্তর্জাতিক মানবিক আইন ও মানবাধিকারের মৌলিক বিষয়গুলো লংঘন করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী এবং আরাকান আর্মির কোনো জবাবদিহিতা না থাকায় পরিস্থিতি আরো ঘোলাটে হয়েছে। তারা সেখানে নিজেদের ইচ্ছামতো যা খুশি তাই করছে। পরিকল্পিতভাবে কয়েক দশক ধরে তারা ওই এলাকার মানুষের জীবন অতিষ্ট করে রেখেছে।

এ কথা সবাই জানে যে, রাখাইনে ২০১৭ সালে তারা কী ঘটনা ঘটিয়েছে। সেই ঘটনার পর এখন পর্যন্ত তারা রাখাইন, দিয়াজেন্ট ও চিনসহ বিভিন্ন এলাকার মানুষের ওপর সহিংসতা অব্যাহত রেখেছে। তাদের এসব কর্মকাণ্ড আন্তর্জাতিক মান অনুযায়ী তদন্ত করে দোষীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে।