‘ক্যাচ ড্রপ, তো ম্যাচ ড্রপ’

143

নড়াইল কণ্ঠ : এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচে ভারতের কাছে ৪৫ রানে হার মেনেছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। এই ম্যাচে ৮৩ রানের ইনিংস খেলায় ম্যাচ সেরা হয়েছেন ভারতের ওপেনার রোহিত শর্মা। কিন্তু ব্যক্তিগত ২১ রানে রোহিত শর্মা ক্যাচ দিয়েও সাকিবের কল্যাণে বেঁচে যান। তাই খেলা শেষে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা বললেন ‘ক্যাচ ড্রপ, তো ম্যাচ ড্রপ।

বুধবার টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে স্বাগতিক পেসারদের বোলিং তোপে দিশেহারা অবস্থা ছিল ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের। ৪২ রানে তিন উইকেট হারিয়ে ব্যাকফুটে মহেন্দ্র সিং ধোনীর ভারত। পরে দলীয় ১১ ওভারে রোহিত শর্মা ব্যক্তিগত ২১ রানে তাসকিনের বলে পয়েন্টে ক্যাচ দেন। কিন্তু পয়েন্টে দাঁড়ানো সাকিব রোহিতের দেয়া সহজ ক্যাচটি তালুবন্দী করতে ব্যর্থ হন। শেষ অবধি সেই রোহিতের ৮৩ রানের ওপর ভর করে জয় পায় ভারত। তবে সাকিব ক্যাচ মিস করলেও এটিকে বড় করে দেখছেন না মাশরাফি।

জীবন ফিরে পেয়ে তাসকিনের সেই ওভারের শেষ তিন বলে ১৪ রান করেন রোহিত। শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে দলকে এনে দেন লড়াইয়ের পুঁজি। জীবন পাওয়ার পর ২৭ বলে আরও ৬২ রান সংগ্রহ করেন ভারতীয় এই ডানহাতি ওপেনার।

পরে খেলা শেষে সাকিবের ক্যাচ ছাড়াকে ম্যাচের অংশ হিসেবেই দেখতে চাইলেন মাশরাফি। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ক্যাচ ছাড়া ম্যাচের অংশই। এটা যে কারোর হাত থেকে ছুটতে পারত। এটা নিয়ে আসলে কারো কিছু করার নেইও।

সাধারণত পয়েন্টে ফিল্ডিং করেন না সাকিব। দেশের সেরা দুই ফিল্ডার সাব্বির রহমান ও নাসির হোসেন সাধারণত এখানে ফিল্ডিং করেন। এই ম্যাচে একাদশেই ছিলেন না নাসির। সাব্বির তখন ফিল্ডিং করছিলেন সীমানায়।

এ প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন, ‘শেষের দিকে গুরুত্বপূর্ণ জায়গাগুলোতে সেরা ফিল্ডারদের রাখতে হয়। সে সময় সীমানায় সেরা ফিল্ডারদের রাখা হয়। তখন পেসার বল করছিল বলে পয়েন্টও গুরুত্বপূর্ণ ছিল। তাই সাকিব তখন সেখানে ছিল। সাকিব শুধু খুব ভালো ব্যাটসম্যান বা বোলারই নয়, সে আমাদের অন্যতম সেরা ফিল্ডারও।

ক্যাচ মিসতো ম্যাচ মিস। এমন কথা ক্রিকেটে প্রচলিত। তবে সাকিবের ক্যাচ ছাড়াকে বড় করে দেখতেও চান না মাশরাফি। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘সাকিব সব সময়ই ভালো ফিল্ডিং করে। সে এর আগে অনেক ভালো ক্যাচ ধরেছে, অনেক ভালো ফিল্ডিং করেছে। কিন্তু ম্যাচে এটা হতেই পারে। তাছাড়া ম্যাচে ক্যাচ মিস হতেই পারে। আমরা সবাই জানি সাকিব দলের সেরা ফিল্ডারদের একজন।