লোহাগড়ায় বাল্যবিয়ের দায়ে স্কুল শিক্ষকের মুচলেকা

96

নড়াইলের লোহাগড়ায় বাল্য বিয়ের দায়ে একজন স্কুল শিক্ষক ভ্রাম্যমান আদালতে মুচলেকা দিয়েছেন। গত বুধবার দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সেলিম রেজা তার কার্যালয়ে এ মুচলেকা আদায় করেন। ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নোয়াগ্রাম ইউনিয়নের রায়গ্রাম-কলাগাছী গ্রামের খোকন পালের ছেলে ও লক্ষ্মীপাশা-লোহাগড়া পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুব্রত পাল (৩০)’র সাথে ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার নাগের হাট গ্রামের মদন পালের স্কুল পড়–য়া মেয়ে অনন্যা পাল (১৪)’র মধ্যে গত ১৭ ফেব্র“য়ারি বিয়ে হয়। বাল্য বিয়ের খবর পেয়ে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সেলিম রেজা গতকাল বুধবার দুপুরে ওই শিক্ষককে তার কার্যালয়ে তলব করেন। সুব্রত পালের স্ত্রী অনন্যা পাল সাবালিকা না হওয়া পর্যন্ত তার পিতৃলয়ে অবস্থান করবেন এবং এ সময় ওই শিক্ষক তার শ্বশুরালয়ে যেতে পারবেন না মর্মে মুচলেকা প্রদান করেন।