প্রত্নতত্ত্ববিদ যাকারিয়া আর নেই

120

নড়াইল কণ্ঠ : বাংলাদেশের বিখ্যাত প্রত্নতত্ত্ববিদ, পুঁথিসাহিত্যবিশারদ ও অনুবাদক আ ক ম যাকারিয়া মৃত্যুবরণ করেছেন। বুধবার সকাল ১১টা ৪৮ মিনিটে তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৭ বছর।
দীর্ঘদিন ধরে তিনি বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। গত ২৬ নভেম্বর থেকে একটি প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। অবস্থার অবনতি হলে সোমবার রাতে তাকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) এবং পরবর্তীতে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।
বুধবার সকাল ১১টায় লাইফ সাপোর্ট খুলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে তার পারিবারিক সূত্র জানায়। তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে, ৩ মেয়ে, আত্মীয়-স্বজন, গুণগ্রাহী ও অসংখ্য শুভাকাঙ্ক্ষি রেখে গেছেন।
আগামী কাল বৃহস্পতিবার ভোরে তার মরদেহ নিয়ে তার জন্মস্থান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার দরিকান্দি গ্রামে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে বাদ জোহর জানাজা শেষে তাকে দাফন করা হবে। এর আগে বুধবার ধানমণ্ডির কলাবাগান মাঠে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। মৃত্যর পরপরই তার মরদেহ নিজ বাসভবন ১৬ লেক সার্কাস রোডের বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়।
এদিকে প্রত্নতত্ত্ববিদ আ ক ম যাকারিয়ার মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরসহ দেশের বিশিষ্ট সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ।

যশোর রামকৃষ্ণ মিশন ও আশ্রম পরির্দশন করেছেন ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল অরূপ রাহা।

মঙ্গলবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টার দিকে তিনি আশ্রম পরিদর্শন এবং অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

যশোর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা বাংলানিউজকে জানান, এয়ার চিফ মার্শাল অরূপ রাহার এটি একটি অফিসিয়াল সফর। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন তার সহধর্মিনী লিলি রাহা। আশ্রমে প্রবেশ করলে তাদের স্বাগত জানান যশোর রামকৃষ্ণ মিশন ও আশ্রমের অধ্যক্ষ স্বামী জ্ঞান প্রকাশানন্দজি মহারাজ।

পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা আরো বলেন, অরূপ রাহা ও তার স্ত্রীর মাতৃভূমি যশোর জেলায়। ফলে বাংলদেশ সফরে আসায় তিনি শেকড়ের টানে যশোরে আসেন এবং রামকৃষ্ণ আশ্রম পরিদর্শন করেন।

ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রধানকে স্বাগত জানাতে আশ্রম কর্তৃপক্ষ প্রায় ৩০ মিনিটের একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন। অনুষ্ঠানে অরূপ রাহা ও তার স্ত্রী লিলি রাহা বক্তব্যে বলেন, যশোরে আমাদের দু’জনেরই পৈত্রিক ভিটা, যে কারণে সরকারি সফরে এসেও যশোর ভ্রমনে এসেছেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, যশোর-৫ (মণিরামপুর) আসনের সংসদ সদস্য স্বপন কুমার ভট্টাচার্য, তার সহধর্মিনী তন্দ্রা ভট্টাচার্য, নড়াইল জেলা পরিষদের প্রশাসক সুবাস ঘোষ, বিএএফ বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ঘাঁটি যশোরের এয়ার কমোডর মোহাম্মদ শফিকুল আলম, তার সহধর্মিনী, ভারতীয় দুতাবাসের ডিফেন্স এ্যাটাচি ব্রিগেডিয়ার জেএস নন্দা ও তার সহধর্মিনী, রামকৃষ্ণ মিশন ও আশ্রমের অধ্যক্ষ স্বামী জ্ঞান প্রকাশানন্দজি মহারাজ, স্বামী সদবিদ্যানন্দ মহারাজ প্রমুখ।

অনুষ্ঠান শেষে ভারতীয় বিমান বাহিনীর প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল অরূপ রাহা ও বিএএফ বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান ঘাঁটি যশোরের এয়ার কমোডর মোহাম্মদ শফিকুল আলম রামকৃষ্ণ মিশন ও আশ্রমের অধ্যক্ষের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন।

অনুষ্ঠান চলাকালে যশোর রামকৃষ্ণ আশ্রম এলাকা ও সার্কিট হাউস এলাকায় ৠাব-পুলিশের টহল জোরদার করা হয়।