নড়াইলে ভাষা শহীদের স্মরণে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন

247

নড়াইল কণ্ঠ : লাখো প্রদীপের আলোয় আলোকিত নড়াইল। ভাষা শহীদদের স্মরণে এ মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। ‘অন্ধকার থেকে মুক্ত করুক একুশের আলো’ এ স্লোগানে নড়াইলে ভাষা শহীদদের স্মরণ করা হয়। রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় একুশের আলোর আয়োজনে লাখো মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের উদ্বোধন করেন কমিটির আহবায়ক প্রফেসর মুন্সি হাফিজুর রহমান।

আয়োজকরা জানান, ভাষা শহীদদের স্মরণে ১৯৯৮ সালে নড়াইলে এই ব্যতিক্রমী আয়োজন শুরু হয়। প্রথমবার নড়াইলের সুলতান মঞ্চসহ শহরের বিভিন্ন স্থানে প্রায় ১০ হাজার মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। এরপর থেকে নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ খেলার মাঠে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে ভাষা শহীদদের স্মরণ করা হচ্ছে। বছর বছর এর ব্যাপ্তি বেড়েছে। এ বছর (২০১৬) এক লাখের বেশি মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়। ওড়ানো হয় ৬৫টি ফানুস।

উদ্যোক্তাদের মধ্যে অন্যতম সংগঠক খন্দকার শাহেদ আলী শান্ত জানান, প্রায় তিন হাজার স্বেচ্ছাসেবী এক লাখ মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের কাজ করেন। প্রায় আধাঘণ্টার মধ্যে NK_Feb_2016_124আলোকিত হয়ে যায় বিশাল মাঠ। বর্ণাঢ্য এই আয়োজন দেখতে দুর-দুরান্ত থেকে হাজারো মানুষ ভিড় করেন নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজ খেলার মাঠে। বর্ণিল আলোয় আলোকিত হন দর্শনার্থীরা।

প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নের অঙ্গীকারসহ সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদমুক্ত দেশ গড়ার প্রত্যয় করেন একুশের আলোর আয়োজনের আহবায়ক প্রফেসর মুন্সি হাফিজুর রহমান। দর্শনার্থীরা বলেন, মোমবাতির আলোয় অন্যরকম পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন ছাড়াও একুশের কবিতা, গান, গণসঙ্গীতসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। প্রদীপ প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নড়াইলের জেলা প্রশাসক হেলাল মাহমুদ শরীফ, জেলা পরিষদের প্রশাসক অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম প্রমুখ।