আজ বাংলাদেশ-ভারত ঐতিহাসিক সিরিজ

34

নড়াইল কণ্ঠ : বাংলাদেশ টেস্ট খেলার স্ট্যাটাস পেয়েছে প্রায় দুই দশক আগে। এ সময়ের মধ্যে প্রায় সবগুলো টেস্ট খেলুড়ে দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ কমপক্ষে একটি পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেললেও ভারতের বিপক্ষে তা সম্ভব হয়নি। দীর্ঘ অপেক্ষার পালা শেষে আজ রোববার দিল্লির অরুন জেটলি স্টেডিয়ামে প্রতিবেশী ভারতের সঙ্গে টি-টোয়েন্টির মাধ্যমে ঐতিহাসিক পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে যাচ্ছে টাইগাররা।
বাংলাদেশ সময় আজ রবিবার(০৩ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ম্যাচটি শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। বেসরকারি টিভি চ্যানেল জিটিভি ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে।
তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ৭ নভেম্বর রাজকোটে দ্বিতীয় এবং ১০ নভেম্বর নাগপুরে শেষ ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। পরবর্তীতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজে ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া প্রথম টেস্টটি মধ্য প্রদেশের ইন্দুরে এবং দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টটি ২২ নভেম্বর থেকে ইডেন গার্ডেনে অনুষ্ঠিত হবে।
কলকাতার ঐতিহাসিক ইডেন গার্ডেনের ম্যাচটি হবে দিবা-রাত্রির। বাংলাদেশ বা ভারত কোনো দলেরই দিবা-রাত্রির টেস্ট ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা নেই।
ভারত সফরে যাওয়ার প্রাক্কালে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ বলেন, দিল্লিতে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে প্রথমবারের মতো হারাতে চান তারা। তবে বিশ্বের অন্যতম সেরা দলটিকে হারানো যে সহজ হবে না, সে কথাও ভুলেননি তিনি।
তিনি বলেন, ‘আমরা কী হারিয়েছে তা সবাই জানে। সে (সাকিব) আমাদের সেরা পারফরমার। বিশ্বকাপে সাকিব দুর্দান্ত খেলেছে। সে ভুল করেছে, কিন্তু অপরাধ করেনি। বোর্ড আমাকে যে দায়িত্ব দিয়েছে তা যথাযথভাবে পালনের চেষ্টা করব। সিরিজে আমরা সর্বোচ্চ ভালো খেলার চেষ্টা করব।’
ভারতের বিপক্ষে এ পর্যন্ত আটটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেললেও কোনোটিতে ফল নিজেদের পক্ষে নিতে পারেনি বাংলাদেশ। এবার ভারতের বিপক্ষে খেলার পাশাপাশি দিল্লির দূষিত বাতাসের বিপক্ষেও লড়াই করতে হবে টাইগারদের। অনুশীলনে মাস্কও পরতে হয়েছে তাদের।
ভারতের বিপক্ষে খেলার জন্য দুবার টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। প্রথম স্কোয়াড থেকে তামিম ইকবাল, সাইফউদ্দিন ও সাকিব বাদ পড়ায় দলে পরবর্তীতে জায়গা করে নেন মোহাম্মাদ মিথুন, আবু হায়দার রনি ও তাইজুল ইসলাম। একই সাথে নিয়মিত অধিনায়ক সাকিবের জায়গায় মাহমুদুল্লাহকে অধিনায়কের দায়িত্ব দেয়া হয়।
অপরদিকে, ভারতের স্কোয়াডে থাকছেন না বিরাট কোহলি, মোহাম্মাদ শামী ও রবীন্দ্র জাদেজার মতো ক্রিকেটাররা। বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে বিশ্রামে থাকলেও টেস্ট স্কোয়াডে থাকছেন এ তিন ক্রিকেটার।
সাকিব-তামিমদের অনুপস্থিতিতে বাংলাদেশ দল তরুণ মোহাম্মাদ নাইম ও আমিনুল ইসলামদের ওপর নির্ভর করবে। সৌম্য সরকার, লিটন দাস ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের থেকেও একটু বেশি প্রত্যাশা থাকবে। এ তিনজন অনেক দিন ধরে জাতীয় দলের সাথে থাকলেও ধারাবাহিকতা দেখাতে পারছেন না।