চিহ্নিত আশ্রয়দাতা মন্ত্রী এমপি ৬৭, অভিযান শুরু

26

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : বিভিন্ন সময়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী দেড় হাজার এবং দলটির বিতর্কিত আরো প্রায় ৪ হাজার নেতার তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। তাদের আশ্রয়দাতা ও মদদদাতা হিসেবে চিহ্নিত হয়েছেন বর্তমান ও সাবেক ৬৭ মন্ত্রী-এমপি। এসকল নেতারা যাতে আওয়ামী লীগের আসন্ন সম্মেলনে দলে স্থান না পায়, সেজন্য পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।
দলীয় সূত্রে এসব তথ্য ছাড়াও জানা গেছে, ডিসেম্বরে আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে ঘিরে অনুপ্রবেশকারী ও বিতর্কিতদের তালিকা কেন্দ্র থেকে জেলায় জেলায় পাঠানো হয়েছে। গতকাল শুক্রবার আট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকদের কাছে এ তালিকা হস্তান্তর করেন দলের দপ্তর সম্পাদক। সে অনুযায়ী আজ থেকে তৃণমূলে শুদ্ধি অভিযান শুরু হবে।
বিষয়টি নিশ্চিত করে আওয়ামী লীগের তিনজন দায়িত্বশীল নেতা জানিয়েছেন, দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার নির্দেশে এ তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে এবং জেলায় জেলায় পাঠানো হয়েছে। এই তালিকায় বর্তমান ও সাবেক মন্ত্রী, এমপি, কেন্দ্রীয় ও জেলার শীর্ষ নেতাদের নাম থাকায় এই পুরো বিষয়টি তিনিই তদারকি করছেন।
এদিকে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার দেয়া এ তালিকার বাইরেও আওয়ামী লীগের বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকদের কাছে দলের বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীদের আলাদা তালিকাও রয়েছে। কিন্তু নানা কারণে এতদিন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারেননি তারা। তবে চলমান শুদ্ধি অভিযানে এবার এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া যাবে বলে মনে করছেন সাংগঠনিক সম্পাদকরা।
এখন পর্যন্ত রংপুর ও বরিশাল বিভাগের অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা পাওয়া গেছে। তাতে রংপুরের পাঁচ জেলায় ৩৮৯ জনের নাম রয়েছে। এর মধ্যে রংপুর সদরে ২২, দিনাজপুরে ১১৫, ঠাকুরগাঁওয়ে ১৩০, নীলফামারীতে ১৩ ও লালমনিরহাটে ১০৯ জন রয়েছেন।
বরিশালের ৪৩৩ জন অনুপ্রবেশকারীর মধ্যে সদরে ২৩১, ভোলায় ১৩৬, পটুয়াখালীতে ২৫, ঝালকাঠিতে ১৫, পিরোজপুরে ১০, বরগুনায় ১০ ও বরিশাল মহানগরে ৬ জনের নাম রয়েছে।