নড়াইলে নবগঙ্গার ওপর ব্রাহ্মণডাঙ্গা পয়েন্টে সেতু নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ে বুয়েট টীম

118

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলের চালিতাতলা-ব্রাহ্মণডাঙ্গা পয়েন্টে নবগঙ্গা নদীর ওপর সেতু নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য নির্ধারিত স্থান পরিদর্শন করেছেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয়ের (বুয়েট) পানি ও বন্যা ব্যবস্থাপনা ইন্সটিটিউটের অধ্যাপক ড. এম শাহ্জাহান মন্ডল ও সহকারী অধ্যাপক মোঃ রাশেদুল ইসলানের নেতৃত্বে একটি কারিগরি টীম।
গত বৃহস্পতিবার (২৪ অক্টোবর) সকালে ব্রাহ্মণডাঙ্গা খেয়া ঘাটে সেতু নির্মানের সম্ভাব্য স্থান পরিদর্শন করেন।
এ সময় সঙ্গে ছিলেন নড়াইল সদর উপজেলা প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন, এলজিইডি নড়াইলের সহকারী উপ-প্রকৌশলী মোঃ মনিরুল ইসলাম, সদর উপজেলা কার্যালয়ের মোঃ শাহাদত হোসেন সাবু।
কারিগরি টীমের সদস্যরা, ব্রাহ্মণডাঙ্গা পয়েন্টে সেতু নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা, স্থান নির্ধারণ, নদীর বর্তমান অবস্থা, নৌযান চলাচলের সুবিধার্থে সেতুর উচ্চতা, পরিবেশ, অর্থনৈতিক অবস্থা, কারিগরি বিষয় ও সম্ভাব্য ডিজাইনসহ বিভিন্ন বিষয়ে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করেন।
এ সময় এলাকাবাসীর মধ্যে ব্রাহ্মণযডাঙ্গা দাখিল মাদ্রাসার সুপার এটিএম মাহমুদুর রহমান, বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ আবুজাফর মোল্যা, মতলেব হোসেন, সাবেক ইউপি সদস্য মোঃ খায়রুল ইসলাম, সমাজ সেবব মাহবুবুর রহমান, তাইজুল ইসলাম, গণমাধ্যমকর্মী আবদুস সাত্তার সহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
জানাগেছে, নড়াইল-লাহুড়িয়া ভায়া চালিতাতলা-ব্রাহ্মণডাঙ্গা সড়কে সরাসরি যোগাযোগ ব্যবস্থার প্রধান প্রতিবন্ধকতা ব্রাহ্মণডাঙ্গা পয়েন্টে নবগবঙ্গা নদীর ওপর সেতু। সেতু না থাকায় নোয়াগ্রাম, লাহুড়িয়া, শালনগর, নলদী ইউনিয়নসহ পাশ^বর্তী মাগুরার মহম্মদপুর ও ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার বিভিন্ন এলাকার মানুষের সাথে নড়াইল জেলা শহরের সরাসরি যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপন হয়নি। লাহুড়িয়া থেকে ব্রাহ্মণডাঙ্গা হয়ে নড়াইল শহরের দূরত্ব মাত্র ১৮ কিলোমিটার। সেখানে লোহাগড়া ঘুরে ৩৬ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে জেলা শহরে যাতায়াত করতে হয়। সেতু না থাকায় এ রূট দিয়ে বাসসহ সরাসরি যানবাহন চলাচল করতে পারে না।
স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে উত্তর লোহাগড়াবাসী সেতু নির্মাণের দাবি করে আসলেও তা ছিলো উপেক্ষিত।
ব্রাহ্মণডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা আবু জাফর মোল্যা জানান, নদীতে সেতু না থাকায় রোগী নিয়ে দ্বিগুন পথ অতিক্রম করে শহরে যেতে হয়। কৃষকরা তাদের উৎপাদিত পণ্য সরাসরি জেলা শহরে নিতে পারে না। স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। উত্তর লোহাগড়াবাসীর দুর্ভোগ লাঘব এবং জেলা শহরের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থায় সেতুবন্ধন সৃষ্টির জন্য দ্রুত সময়েই ব্রাহ্মণডাঙ্গা পয়েন্টে নবগঙ্গা নদীর ওপর সেতু নির্মানের দাবি জানান।