গোপালগঞ্জের কাশিয়ানিতে দুর্বৃত্তদের হামলায় চোখ হারাতে বসেছে ভ্যান চালক

19

নড়াইল কণ্ঠ : গোপালগঞ্জের কাশিয়ানিতে দুর্বৃত্তদের অতর্কিত হামলায় চোখ হারাতে বসেছেন ভ্যান চালক জামাত মোল্যা (৪৫)। আহত ভ্যান চালককে প্রথমে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভ্যান চালক জামাত মোল্যা গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার সাজাইল ইউনিয়নের রাতকান্দি গ্রামের বাসিন্দা।
জানা গেছে, গত ১৪ অক্টোবর উপজেলার মাজড়া বাজার থেকে জামাত মোল্যার ভ্যানে তিনজন যাত্রী নিয়ে রাতকান্দি গ্রামে যাচ্ছিলেন। রাতকান্দি গ্রামের সোহেল শেখের বাড়ির কাছে পৌঁছালে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা একদল লোক রামদা, লাঠি ও লোহার রড নিয়ে ভ্যান চালক জামাতের ওপর হামলা করে ভ্যানের গতিরোধ করে। এতে ভ্যান চালক জামাত মোল্যা রাস্তায় পড়ে যায়। পরবর্তীতে ভ্যানে থাকা যাত্রীদের বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে ওই দুর্বৃত্তরা। দুর্বৃত্তদের হামলায় ভ্যান চালক জামাত মোল্যাসহ ইকলাছ, সুজন ও আজিম নামে চারজন গুরুত্বর আহত হন। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে কাশিয়ানী হাসপাতালে ভর্তি করে। গুরুত্বর আহত জামাত মোল্যাকে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জামাতের ডান চোখ ও মাথায় প্রচন্ড আঘাত লাগে। তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
জামাত মোল্যার স্ত্রী সাবিনা বেগম সাংবাদিকদের জানান, ভ্যানের যাত্রীদের সাথে ওই গ্রামের ইমরুল সরদারের দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলছিল। তার নেতৃত্বে এ হামলা হয়েছে। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।
হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. আব্দুল মুহিদ জানান, জামাতের চোখের অবস্থা খুবই খারাপ। তবে চোখ ভাল করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে।
এ ঘটনায় জামাত মোল্যার আত্মীয় রেজা শেখ বাদী হয়ে কাশিয়ানী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আজিজুর রহমান অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।