কলকাতায় গেলেন ডাক্তার দেখাতে, ফিরলেন লাশ হয়ে!

0
16

নড়াইল কণ্ঠ : কলকাতা গিয়েছিলেন চোখের ডাক্তার দেখিয়ে দ্রুতড় ঝিনাইদহে ফিরে আসবেন ঝিনাইদহ পৌর এলাকার ভুটিয়ারগাতি গ্রামের কাজী খলিরুর রহমানের ছেলে কাজী মাইনুল আলম সোহাগ। কিন্তু সড়ক দুর্ঘটনা কেড়ে নেয় গ্রামিনফোনের ঢাকার মতিঝিল এলাকার এরিয়া ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত টগবগে তরুণের প্রাণ। তিনি ফিরলেন লাশ হয়ে।
সেক্সপিয়ার সরণিতে শনিবার (১৭ আগস্ট) মধ্যরাতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত কাজী মাইনুল আলম সোহাগ’র গ্রামেরবাড়ি ঝিনাইদহ পৌর এলাকার ভুটিয়ারগাতিতে চলছে শোকের মাতম। রবিবার (১৮ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এ্যাম্বুলেন্সে সোহাগ’র মরদেহ বাড়িতে এসে পৌঁছায়। তখন বাড়িতে বৃদ্ধ মা-বাবা, স্ত্রী, ভাই-বোনেরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। মরদেহ দেখতে এলাকাবাসী ভীড় করে।
পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো, হয়েছে, রবিবার জোহর নামাজের পর জানাযা শেষে গ্রামের পারিবারিক গোরস্থানে তাকে শায়িতড় করা হবে। সকালে বেনাপোল স্থলবন্দর দিয়ে মাইনুল আলম সোহাগ’র মরদেহ বাংলাদেশে আনা হয়। তার চাচাতো ভাই কাজী জিহাদ মরদেহটি গ্রহণ করেন। মর্মান্তিক এই সড়ক দুর্ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে পুরো এলাকায়। এমন মর্মান্তিক মৃত্যুর জন্য গ্রেফতার হওয়া ঘাতক জাগুয়ার চালক আরসালান পারভেজ এর শাস্তির দাবি করেছে পরিবার ও এলাকাবাসি।
উল্লেখ্য, চোঁখের সমস্যা নিয়ে গত বুধবার কলকাতার এ্যাপোলো হাসপাতালে ডাক্তার দেখাতে যান সোহাগ। রবিবার তার দেশে ফেরার কথা ছিল। সে ফিরলো ঠিকই, জীীবতড় নয় মৃত। সোহাগ গ্রামীনফোনের ঢাকার মতিঝিল এলাকার এরিয়া ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here