সততার অনন্য নজির ঝিনাইদহের চটপটি বিক্রেতা বেলাল

32

নড়াইল কণ্ঠ : সুদ, ঘুষ, দুর্নীতি ও কালোটাকায় আচ্ছন্ন সমাজে সততার এক অনন্য নজির স্থাপন করলেন ঝিনাইদহের কালিগঞ্জের চটপটি বিক্রেতা বেলাল হোসেন। চলতি পথে কুঁড়িয়ে পাওয়া ৬৩ হাজার ৫০০ টাকা তিনি তুলে দিলেন প্রকৃত মালিকের হাতে। তার এই সততার কারণেই বেঁচে গেলেন ক্ষুদ্র কাঠ ব্যবসায়ী আব্দুর রশিদ। চটপটি বিক্রেতা বেলাল হোসেন কালীগঞ্জ উপজেলার কোলা গ্রামের নুরুল হক মোল্যার ছেলে। আর হারানো টাকার মালিক একই উপজেলার পারখুল্লা গ্রামের কাঠ ব্যবসায়ী আব্দুর রশিদ।
বেলাল হোসেন জানান, গত বৃহস্পতিবার (০১ আগস্ট) রাতে চটপটি বিক্রি শেষে রাতে বাড়ি ফেরার পথে একটি টাকার বান্ডিল পেয়ে রাতেই উপস্থিত হন এলাকার ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বাড়িতে। পরে শুক্রবার (০২ আগস্ট) চেয়ারম্যান আইয়ূব হোসেন এলাকায় প্রচার প্রচারণা চালিয়ে টাকার মালিক খুঁজে বের করে আজ শনিবার (০৩ আগস্ট) সকালে কুড়িয়ে পাওয়া টাকা তুলে দিলেন মালিকের হাতে।
বেলাল হোসেন বলেন, নিজে একজন অভাবী মানুষ। বাবা মায়ের অভাবের সংসারে ছোট থেকে বড় হলেও সৎ উপায়ে কাজ করে সংসার চালান। কখনও কারও অর্থের প্রতি তিনি লোভ করেননি। প্রকৃত মালিকের হাতে টাকাটা ফেরত দিতে পেরে তিনি খুবই খুশি। এদিকে হারানো টাকা ফিরে পেয়ে প্রতিক্রিয়ায় আব্দুর রশিদ বলেন, তিনি নিজেও গরীব মানুষ। ধারদেনা করে কাঠের ব্যবসা করছেন। হারানো টাকাটা ফেরত পেয়ে মানুষ সম্পর্কে আমার ধারনা পাল্টে গেছে। আব্দুর রশিদ বলেন, টাকা ফেরত পেয়ে তিনি খুশি হবার বিনিময়ে বেলাল হোসেন ও ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে মিষ্টিমুখও করাতে পারেননি। কোলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আইয়ূব হোসেন জানান, অভাব সব মানুষকে নষ্ট করতে পারে না, বেলাল তার প্রকৃষ্ট উদাহরণ।