গোপালগঞ্জের জালালাবাদ ইউপি নির্বাচন ॥ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী চেয়ারম্যান প্রার্থী

167

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : গোপালগঞ্জে আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে জোরালো ভাবে জনসংযোগ ও মনোনয়ন দৌড়ে নেমে পড়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। এছাড়াও রয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থীও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তপশীল ঘোষনার সাথে সাথেই এসব প্রার্থীরা ভোটের মাঠে সক্রিয় হয়ে উঠেছেন। ইতি মধ্যে অনেক সম্ভাব্য প্রার্থীরা পোস্টার, লিফলেট ছেপে ও ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে এবং বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান ও সমাবেশে যোগ দিয়ে তাদের প্রার্থীতার পক্ষে জনসমর্থন আদায়ে ব্যস্ত রয়ে
ছেন। এ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে নিজেদের সাংগঠনিক ভীত, যোগ্যতা ও জনপ্রিয়তা প্রমাণে ব্যাপক ভাবে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। সম্ভ্যাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা আলাদা আলাদা ভাবে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য ইউনিয়ন আ’লীগ, উপজেলা আ’লীগ, জেলা আ’লীগ, স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ কেউ কেউ আবার কেন্দ্রীয় নেতাদের দ্বারস্থ হচ্ছেন চালিয়ে যাচ্ছেন গ্রুপিং লবিং। তারা ভোটারদের কাছে দোয়া ও আশির্বাদ কামনা করছেন। জালালাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দুর্গ হওয়ায় এখানে দলীয় প্রার্থীর সংখ্যা কম নয়। জালালাবাদ ইউনিয়নে সম্ভাব্য প্রার্থীরা কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য ও গোপালগঞ্জ-২ আসনের বারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের আর্শীবাদ পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন। দলের এসব নেতারা প্রত্যেকে দলীয় মনোনয়নে প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করতে আগ্রহী। তবে দলীয় মনোনয়ন না পেলে কেউ কেউ আবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে শোনা যাচ্ছে। জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, কে দলীয় মনোনয়ন পাবেন তা বলা মুশকিল। সব কিছু নির্ভর করছে আমাদের প্রাণ প্রিয় নেতা শেখ সেলিম ভাইয়ের উপর।সরেজমিন জালালাবাদ ইউনিয়নের সম্ভাব্য বিভিন্ন চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সাথে কথা হলে তারা তাদের বক্তব্য বিভিন্ন ভাবে তুলে ধরেন। NK_Feb_2016_072জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান এম সুপারুল আলম টিকে বলেন, দলীয় মনোনয়ন পাবার ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। আমি রাস্ট্রীয় ভাবে ৫ বার বিদেশ সফর করেছি। আমি ৪ বার জেলার শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যানের পদক পেয়েছি। আমি চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হতে পারলে আমার ইউনিয়নে অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করবো। আমি ইতিমধ্যে আমার ইউনিয়নে ৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মান করেছি। আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর এ ইউনিয়নের অনেক উন্নয়ন মুলক কাজ করেছি। এবার আমি নির্বাচিত হতে পারলে আমার ইউনিয়নের অসমাপ্ত কাজগুলি করবো যেমন রাস্তাঘাট নির্মান, ব্রিজ-কালভাট নির্মান, নতুন স্কুল নির্মান, খাল খননসহ বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কাজ করবো। আমার শেষ কথা যদি আমার সংসদ সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম ভাই যদি আমাকে দলীয় মনো
নয়ন দেন বা নির্বাচন করতে বলেন তাহলে আমি নির্বাচন করবো। আমি দলের বাইরে নই দল যদি আমাকে মনোনয়ন না দেয় তবে যাকে মনোনয়ন দেবে আমি দলের হয়ে তার পক্ষে নির্বাচনি কাজ করবো।NK_Feb_2016_073 জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী, জালালাবাদ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মিনা মজিবর রহমান বলেন, দলীয় মনোনয়ন পাবার ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদি। দল আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে না এটা আমি কল্পনাও করতে পারিনা। দল আমাকেই দলীয় মনোনয়ন দিবে এটা আমার বিশ্বাস ও  আশা। আমি বিগত দিনে ২বার এ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হয়ে ছিলাম। সে সময় ইউনিয়নে বোর্ড অফিস, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন রাস্তাঘাট নির্মান করেছি এবং ইউনিয়ন বাসীর সার্বিক কল্যানে কাজ করেছি। আমি পুনরায় এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হতে পারলে এ ইউনিয়নের অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন করবো এবং ইউনিয়নসহ ইউনিয়ন বাসীর কল্যানে কাজ করবো। দল যদি আমাকে দলীয় মনোনয়ন না দেয় তখন কি করবো তা এখনো সিদ্ধান্ত নিতে পারিনী তবে সময়ই বলে দিবে তখন আমি কি করবো।NK_Feb_2016_074জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী জালালাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি, বড়ফা এজিএম উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো: আলীমুজ্জামান মোল্লা বলেন, দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। আমার সরকার জনবান্ধব সরকার। আমি যদি এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হতে পারলে এ ইউনিয়নের সাধারন মানুষের জন্য তাদের কল্যানে কাজ করে যাব। আমি দলকে ভালবাসি দেশকে ভালবাসি। দল যদি আমাকে দলীয় মনোনয়ন না দেয় তবে সে ক্ষেত্রে আমি দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিব। দল যাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে আমি দলের হয়ে তার পক্ষে কাজ করবো। জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী, জালালাবাদ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোল্লা মোসলেম উদ্দীন বলেন, দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। আমি জন্মগত ভাবে আওয়ামী পরিবারের সন্তান। আমি পুনরায় এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হতে পারলে গরীব-দু:খি, অসহায় ও নির্যাতিত মানুষের সেবা করে যাব। এলাকার মানুষের চাওয়া-পাওয়াকে আমি প্রাধান্য দেব কোন ভাবেই তাদের বঞ্চিত করবো না। প্রয়োজনে আমার নিজস্ব অর্থায়নে তাদের সাহায্য সহযোগিতা করবো। আমার ইউনিয়নকে আমি ডিজিটাল ইউনিয়ন হিসাবে রুপদান করবো। দল যদি আমাকে দলীয় মনোনয়ন না দেয় তবে সে ক্ষেত্রে আমি দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিব। দল যাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে আমি দলের হয়ে তার পক্ষে কাজ করবো।NK_Feb_2016_077 জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী, তরুন সমাজ সেবক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাসান নুরুল মিটুল বলেন, দলীয় মনোনয়ন পাবার ব্যাপারে আমি মতভাগ আশাবাদী। আমি তৃনNK_Feb_2016_075মুলের নেতা আমি এ ইউনিয়নের সাধারন মানুষের সুখ দু:খে সব সময় পাশে ছিলাম আছি এবং থাকবো। আমি আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন চাইবো। দল যদি আমাদে দলীয় মনোনয়ন দেয় তাহলে আমি ইউনিয়নের সাধারন মানুষের পাশে থেকে তাদের উন্নয়নে কাজ করে যাব। জনগন চাইলে আমি নির্বাচন করবো। জনগনের কারনে প্রয়োজনে আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে অংশ নিব কারন জনগনই আমার শক্তি জনগনই আমার ভরসা। আমি যদি এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসাবে নির্বাচিত হতে পারি। আমি এ ইউনিয়নের রাস্তাঘাট, ব্রিজ কালভাট, শিক্ষা খাতে উন্নয়ন করবো। আমি এ ইউনিয়নে গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করবো। ইউনিয়ন পরিষদকে জনগনের জবাবদিহি মুলক প্রতিষ্ঠানে রুপ দেব। আমি ইউনিয়নের ছোটখাট সকল সমস্যা গ্রামীন আদালতের মাধ্যমে সমাধান করবো। আমি আমার ইউনিয়নকে ডিজিটাল ও আধুনিক ইউনিয়নে পরিনত করবো। দল যদি আমাকে মনোনয়ন না দেয় আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে অংশ নিব।জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী, গোপালগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য ও ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক মো: জমির উদ্দীন মোল্লা বলেন, আমিNK_Feb_2016_078 বিএনপি দলীয় মনোনয়ন নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে অংশ গ্রহন করবো। যেহেতু আমি দীর্ঘ দিন যাবত বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত সে কারনেই বিএনপি আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে এটা আমার আশা ও বিশ্বাস। আমি দীর্ঘ দিন যাবত জালালাবাদ ইউনিয়নের অসহায়, নির্যাতিত, গরীব-দু:খি মানুষের পাশে আছি। তাদেরকে বিভিন্ন সময় সাহায্য সহযোগীতা করে আসছি।
সে কারনে ইউনিয়নের সাধারন জনগন আমাকে ভোট দিয়ে তাদেও চেয়ারম্যান হিসাবে আমাকে নির্বাচিত করবে। আমি নির্বাচিত হতে পারলে গরীব-দু:খি, অসহায় ও নির্যাতিত মানুষের সেবা করে যাব। এলাকার মানুষের চাওয়া-পাওয়াকে আমি প্রাধান্য দেব কোন ভাবেই তাদের বঞ্চিত করবো না। প্রয়োজনে আমার নিজস্ব অর্থায়নে তাদের সাহায্য সহযোগিতা করবো। আমার ইউনিয়নকে আমি ডিজিটাল ইউনিয়ন হিসাবে রুপদান করবো।
জালালাবাদ ইউনিNK_Feb_2016_079য়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী, বিশিষ্ট সমাজ সেবক, প্রবাশী ব্যবসায়ী আলহাজ্ব আব্দুল আজিজ বলেন, দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। আমি জন্মগত ভাবে আওয়ামী পরিবারের সন্তান। আমি নির্বাচিত হতে পারলে গরীব-দু:খি, অসহায় ও নির্যাতিত মানুষের সেবা করে যাব। এলাকার মানুষের চাওয়া-পাওয়াকে আমি প্রাধান্য দেব কোন ভাবেই তাদের বঞ্চিত করবো না। প্রয়োজনে আমার নিজস্ব অর্থায়নে তাদের সাহায্য সহযোগিতা করবো। আমার ইউনিয়নকে আমি ডিজিটাল ইউনিয়ন হিসাবে রুপদান করবো। দল যদি আমাকে দলীয় মনোনয়ন না দেয় তবে সে ক্ষেত্রে আমি দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিব। দল যাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে আমি দলের হয়ে তার পক্ষে কাজ করবো। জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য প্রার্থী ও গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এম এম খসরুল আলম বাবুল বলেন, দলীয় মনোনয়ন পাবার ব্যাপারে NK_Feb_2016_076আমি শতভাগ আশাবাদি। দল আমাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে না এটা আমি কল্পনাও করতে পারিনা। দল আমাকেই দলীয় মনোনয়ন দিবে এটা আমার বিশ্বাস ও আশা। আমি জন্মগত ভাবে আওয়ামী পরিবারের সন্তান। আমি নির্বাচিত হতে পারলে গরীব-দু:খি, অসহায় ও নির্যাতিত মানুষের সেবা করে যাব। এলাকার মানুষের চাওয়া-পাওয়াকে আমি প্রাধান্য দেব কোন ভাবেই তাদের বঞ্চিত করবো না। প্রয়োজনে আমার নিজস্ব অর্থায়নে তাদের সাহায্য সহযোগিতা করবো। আমার ইউনিয়নকে আমি ডিজিটাল ইউনিয়ন হিসাবে রুপদান করবো। দল যদি আমাকে দলীয় মনোনয়ন না দেয় তবে সে ক্ষেত্রে আমি দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিব। দল যাকে দলীয় মনোনয়ন দিবে আমি দলের হয়ে তার পক্ষে কাজ করবো।