বিভিন্ন মহলকে ম্যানেজ করে চলছে নড়াইলের এতিমখানা

0
145

নড়াইলকণ্ঠ : নড়াইল সদর উপজেলায় ১৩টি বেসরকারি এতিমখানা। এ ১৩টি এতিমখানায় এতিম শিশুদের জন্য ক্যাপিটেশন গ্রান্ট হিসেবে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের ২য় কিস্তি (জানুয়ারি ২০১৯ হতে জুন ২০১৯) বরাদ্দ বাবদ ৩৪ লাখ ২০ হাজার টাকা দেয়া হয়। এসব এতিমখানার ৫৭০জন এতিম শিশুদের ৬মাসের ক্যাপিটেশন গ্রান্ট হিসেবে এ অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়।

নড়াইল-২ আসনের সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার সমাজসেবা অধিদপ্তরে প্রতিনিধি মো: রাসেল বিল্লাহ গত এক সপ্তাহব্যাপী এ ১৩টি এতিখানা সরেজমিনে ঘুরে এসে এ তথ্য জানান।
এর মধ্যে দু’টি বাদে বাকি ১১টি এতিমখানা সরেজমিনে ঘুরে এতিম শিশুদের খোঁজ-খবর নিয়েছেন বলে তিনি জানান।

তিনি আরো জানান, কোন কোন এতিমখানায় এতিম শুন্য দেখা গেছে। ৪ থেকে ৫টি এতিমখানা ছাড়া বাকি গুলোতে এতিম শিশুদের সংখ্যা খুবই কম। এসব এতিমখানা যারা দায়িত্ব নিয়ে পরিচালনা করেন তারা দির্ঘবছর ধরে খাতা-কলমে এতিম দেখিয়ে বিভিন্ন মহলকে ম্যানেজ করে চালিয়ে আসছেন বলে তিনি জানান।

এদিকে নড়াইল সদর উপজেলায় বরাশুলা শিশু সদন কমপ্লেক্স ১৭২ জন এতিমের জন্য ১০ লক্ষ ৩২ হাজার টাকা বরাদ্দ, এতিম শিশু রয়েছে মাত্র ৬০জন; জামেয়া ইমদাদিয়া এতিমখানায় ১৫ জন এতিমের জন্য ৯০ হাজার টাকা বরাদ্দ, এতিম শতভাগ রয়েছে; দুর্গাপুর ওসমান বিন আফফান (রা:) মাদ্রাসা এতিমখানায় ১২জনের জন্য ৭২ হাজার টাকা (দেখা হয়নি); সীমানন্দপুর গরীব শাহ এতিমখানা ও লিলআহ বোর্ডিং এ ১১৬ জনের জন্য ৬ লাখ ৯৬ হাজার টাকা, এতিম শিশু থাকে মাত্র ৪০জন; আজিজুর রহমান ভুইয়া বালিকা সমাজসেবা এতিমখানায় ১৩৪ জনের জন্য ৮ লাখ ৪ হাজার টাকা, এতিম শিশু থাকে ১২০ জন; জংগলগ্রাম মুসলিম এতিমখানায় ১২ জনের জন্য বরাদ্দ ৭২ হাজার টাকা, এতিম শিশু ১২জনই পাওয়া গেছে; কমলাপুর এতিমখানা ও সমাজকল্যাণ সমিতিতে ২৬ জনের জন্য বরাদ্দ ১ লাখ ৫৬ হাজার টাকা, এখানে প্রকৃত এতিম থাকে মাত্র ৩জন; ডৌহতলা এতিমখানায় ১৯ জনের জন্য বরাদ্দ ১ লাখ ১৪ হাজার টাকা, এতিম শুন্য; মীরাপাড়া শিশু সদন ও লিল্লাহ বোর্ডিং এ ৩০ জনের জন্য ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা, এতিম পাওয়া গেছে ৩০জনই; শেখহাটি মিশু সদন ও হাফেজিয়া মাদ্রাসায় ১১ জনের জন্য বরাদ্দ ৬৬ হাজার টাকা (দেখা হয়নি); সীমাখালী মাদ্রাসা ওমর ইবনে খাত্বাব (রা:) এতিমখানায় ৭জনের জন্য বরাদ্দ ৪২ হাজার টাকা, ৭জনই থাকে; কমান্ডার উজির আহমেদ খান ইয়াতিমখানায় ১০ জনের জন্য বরাদ্দ ৬০ হাজার টাকা, এতিম ১০জনই রয়েছে; রতডাঙ্গা এতিমখানা কমপ্লেক্স হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানায় ৬জন এতিমের জন্য বরাদ্দ ৩৬ হাজার টাকা, এখানে ৬জনের বেশি থাকে।

উল্লেখ্য, এতিম বলতে যা বুঝায় সে ব্যাখ্যায় বলতে গেলে এসব এতিমখানায় এতিম শুন্য বললে নিহাত মিথ্যা বলা হবে না।

এতিম শিশুদের নামে সরকারের দেয়া বরাদ্দ শতভাগ ব্যবহার নিশ্চিত করতে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দাবী জানিয়েছে এলাকার সচেতন জনগণ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here