পঞ্চাশটি সাপ মারার পরই লোহাগড়ায় সাপের কামড়ে শিশুর মৃত্যু

0
70

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার নোয়াগ্রাম ইউনিয়নের শামুকখোলা গ্রামের একটি ঘর থেকে মা ও বাচ্চা সহ ৫০টি সাপ মারার ১১ ঘন্টা পর সাপের কামড়ে আছিয়া (৮) নামে এক শিশু মারা গেছে।
আছিয়া ওই গ্রামের কৃষক ফরু মোল্যার মেয়ে। সে আড়পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ছিলো। এ ঘটনার পর পুরো গ্রাম জুড়ে সাপের আতঙ্ক বিরাজ করছে।
শামুকখোলা গ্রামের শিক্ষক রাজীব হোসেন জানান, শামুকখোলা গ্রামের কৃষক ফরু মোল্যার মেয়ে আছিয়া প্রতিদিনের ন্যায় শনিবার রাতে খাওয়া-দাওয়া শেষে বিছানায় শুয়ে পড়ে। রাত ১টার দিকে তাকে ঘুমন্ত অবস্থায় সাপে দংশন করে। তাক্ষণিকভাবে তাকে স্থানীয় ওঝা ও চিকিৎসকের নিকট নিয়ে চিকিৎসা দেওয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। ভোরে গ্রাম থেকে ১২ কিলোমিটার দূরে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্ষে নেয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
নোয়াগ্রাম ইউনিয়নের মেম্বর (শামুকখোলা) মোঃ আমিনুর রহমান হালিম জানান, আছিয়াকে সাপে দংশনের ১১ ঘন্টা আগে শনিবার দুপুর ২টার দিকে এই গ্রামের সৈয়দ মিজানুর রহমানের ঘর থেকে একটি মা সাপ সহ ৫০টি সাপের বাচ্চা মারা হয়। তবে বড় আকৃতির আরেকটি সাপ মারা সম্ভব হয়নি। সাপ মারার স্থান সৈয়দ মিজানুর রহমানের বাড়ি হতে মৃত আছিয়াদের বাড়ির দুরত্ব ৩/৪শ গজ দূরে হতে পারে। হয়তো বেঁচে যাওয়া সাপটি তার বাচ্চা মেরে ফেলানোর প্রতিশোধ হিসেবে ক্ষিপ্ত হয়ে শিশুটিকে কামড়াতে পারে। এ ঘটনার পর পুরো গ্রাম জুড়ে সাপ আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।
নোয়াগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম কালু বলেন, ‘ মৃত শিশুটি আড়পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ছিলো। তার মৃত্যুতে পরিবারসহ পুরো এলাকা জুড়ে শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি এলাকা জুড়ে সাপের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here