কঠিন লড়াই করে হারল টাইগাররা

51

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : এবারের বিশ্বকাপে রান তাড়া করে জেতা সবচেয়ে কঠিন হয়ে উঠেছে। সেখানে বাংলাদেশের কাঁধে ৩৮১ রানের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। হিমালয়তুল্য রান দেখেও ভড়কে যায়নি টাইগাররা। লড়াই করেছে ম্যাচের শেষ পর্যন্ত। বাংলাদেশ দল হেরেছে ৪৮ রানে।

এদিকে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৩৮২ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে কী লড়াইটা না করলো টাইগার বাহিনী। শুরুতে তামিম ইকবাল, পরে মুশফিক-মাহমুদুল্লাহরা দুর্দান্ত লড়াই করলেন। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার রানের পাহাড় ডিঙ্গানো গেল না। শেষ পর্যন্ত ৯৭ বলে ১০২ রানে হার না মানা এক লড়াকু ইনিংস খেললেন মুশফিকুর রহিম। কিন্তু তার লড়াকু সেঞ্চুরিতেও হার এড়ানো গেল না। আট উইকেটে ৩৩৩ রানেই থেমে গেল টাইগার বাহিনীর ইনিংস, ৪৮ রানে জয় পেল অজিরা।

দুই বলেই সর্বনাশ (১১ টা ৪০ মিনিট): অস্ট্রেলিয়ার ৩৮১ রানের পর দুর্দান্ত জবাব দিচ্ছে বাংলাদেশ। ৪৫ ওভারেই পেরিয়ে গেছে ৩০০ রান। তবে নাথান কুল্টার নেইলের দুই বলেই সর্বনাশ হয়ে গেল। দুর্দান্ত খেলতে থাকা মাহমুদুল্লাহ আর সাব্বির রহমানকে পরপর দুই বলেই সাজঘরে ফেরালেন এই অজি বোলার। আউট হওয়ার আগে মাহমুদুল্লাহ করেছেন ৫০ বলে ৬৯ রান। তবে ক্রিজে ৮৫ রানে এখনো অপরাজিত আছেন মুশফিক। ৪৬ ওভার শেষে টাইগার বাহিনীর দলীয় সংগ্রহ ৩০৪/৬।

মুশফিক-মাহমুদুল্লাহর শতরানের জুটি (১১ টা ২৪ মিনিট): লিটন দাস তড়িঘড়ি ফিরে গেলে উইকেটে এসে শুরুতে বেশ দেখেশুনে খেলেছেন মাহমুদুল্লাহ। তবে সময় গড়ানোর সাথে সাথে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেন অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার। অপর প্রান্তে মুশফিকুর রহিম ছিলেন দুর্দান্তই। ইতোমধ্যে একশ’ রানের জুটিও হয়েছে দুজনের। পঞ্চম উইকেটে এখন পর্যন্ত ১১৪ রান তুলে অপরাজিত দুজন। মাহমুদুল্লাহ ৪৩ বলে ৫৮ রানে অপরাজিত। মুশফিক ৮১ বলে অপরাজিত ৮১ রানে। ৪৪ ওভার শেষে বাংলাদেশ ২৮৯/৪।

মুশফিক-মাহমুদুল্লায় আড়াইশ’ পেরুল বাংলাদেশ (১১টা ১১ মিনিট): লিটন কুমার দাস (২০) অল্পতে ফিরলে গেলে তারপর উইকেটে এসে বেশ ভালোই খেলছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ওদিকে, মুশফিকুর রহিম দুর্দান্তই ছিলেন। এই দুজনের ব্যাটে আড়াইশ পেরিয়ে গেছে বাংলাদেশ। ৪২ ওভার শেষে বাংলাদেশের রান ৪ ওভারে ২৬৪। ৩৬ বলে ৪৫ রান করে অপরাজিত আছেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। অপর প্রান্তে ৭৬ বলে ৭৬ রানে অপরাজিত মুশফিকুর রহিম।

মুশফিকের ফিফটি, ২০০ পেরিয়ে বাংলাদেশ (১০টা ৪৯ মিনিট): অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জিততে ৩৮২ রানের লক্ষ্যে লড়াই করছে টাইগার বাহিনী। মুশফিকের ব্যাটে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের নির্ভরযোগ্য এই ব্যাটসম্যান ইতোমধ্যে অর্ধশতক হাঁকিয়ে অপরাজিত আছেন। মুশফিক ৫৮ বলে করেছেন ৫৮ রান। আর ৩৬ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ চার উইকেটে ২১৫ রান।

অল্পতেই ফিরে গেলেন লিটন (১০টা ২৮ মিনিট): শুরুটা ভালো হলেও শেষ পর্যন্ত তা ধরে রাখতে পারলেন না গত ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা লিটন দাস। ১৭ বলে ২০ রান করে অ্যাডাম জাম্পার বলে লেগ বিফোর উইকেট আউট হয়েছেন এই মারকুটে ব্যাটসম্যান। লিটনের বিদায়ের পর মাঠে নেমেছেন মাহমুদউল্লাহ। ৩১ ওভার শেষে বাংলাদেশের দলীয় সংগ্রহ ৪ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান।

ফিরে গেলেন তামিম (৯টা ৫৮ মিনিট): অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুর্দান্ত ব্যাটিং করছিলেন বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। কিন্তু ফিফটির পরপরই অজি পেসার মিচেল স্টার্কের বলে ইনসাইডেজ হয়ে বোল্ড হন তিনি। প্যাভিলিয়নে ফিরে যাওয়ার আগে তামিম করেছেন ৭৪ বলে ৬২ রান। ২৪.২ ওভারে বাংলাদেশের দলীয় সংগ্রহ ১৪৪/৩।

ফিফটি পেলেন তামিম (৯টা ৪৮ মিনিট): শুরু ভালো হলেও ইনিংস টেনে নিতে পারছিলেন না বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। উইন্ডিজের বিপক্ষে গত ম্যাচে ফিফটির কাছাকাছি গিয়ে ফিরেছিলেন (৫৩ বলে ৪৮ রান)। আজ আর ফিফটি বঞ্চিত হতে হয়নি তামিমকে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলতে নেমে চলতি বিশ্বকাপের প্রথম ফিফটির দেখা পেলেন তিনি। ৬৪তম বলে ফিফটি পূর্ণ করা তামিম এখন ৫৭ রানে অপরাজিত। বাংলাদেশের স্কোর ২৩ ওভার শেষে ১৩৫/২।

সাকিবের বিদায় (৯টা ৪০ মিনিট): অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে দলীয় ১০২ রানে মাথায় বাংলাদেশের দ্বিতীয় উইকেটের পতন ঘটেছে। মার্কাস স্টয়নিসের বলে ক্যাচ চিয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরেছেন বিশ্বকাপে টানা চার ম্যাচে অর্ধশতাধিক রান করা সাকিব আল হাসান। আউট হওয়ার আগে এই বাম হাতি ব্যাটসম্যান করেছেন ৪১ বলে ৪১ রান। বিশ্বকাপে তিনি এখন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। রিপোর্টটি লেখার সময় ২১ ওভার শেষে বাংলাদেশের দলীয় সংগ্রহ ১২০/২।

সাকিব তামিমের প্রতিরোধ (৯টা ১২ মিনিট): ৩৮২ রানের বিশাল লক্ষ্যে ব্যাটিং করতে নেমে দলীয় ২৩ রানেই ভুল বুঝাবুঝির শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান সৌম্য সরকার। এরপর বাংলাদেশের হাল ধরেন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবাল। শুরু ধাক্কা সামলে অজিদের ভালোই জবাব দিচ্ছেন এই দুই টাইগার। ইতোমধ্যে এই দুই ব্যাটসম্যান ৬৬ বলে ৬০ রানের পার্টনারশিপ গড়ে তুলেছেন। ১৫ ওভার শেষে বাংলাদেশের দলীয় সংগ্রহ ৮৪/১।

ভুল বোঝাবুঝির শিকার সৌম্য (৮টা ২৬ মিনিট): প্যাট কামিন্সের বল আলতো হাতে খেলে সিঙ্গেলের জন্য দৌড় দিয়েছিলেন তামিম ইকবাল। ওদিকে, সৌম্য সরকারের তখন মনে হলো রান হচ্ছে না! ব্যাস উইকেটের মাঝখানে দাঁড়িয়ে পড়লেন তরুণ ওপেনার। ভুল বোঝাবুঝির শিকার হয়ে চতুর্থ ওভারের পঞ্চম বলে সাজঘরে ফিরে গেলেন সৌম্য (১০)। এই মুহূর্তে বাংলাদেশের দলীয় স্কোর পাঁচ ওভার শেষ ২৫/১।

অনুজ্জ্বল বোলিংয়ে রান পাহাড়ের নিচে টাইগাররা (৭টা ৪০ মিনিট): শেষ ওভারের আগে বৃষ্টি এসে বাগড়া দিয়ে দিলো। যদিও ততোক্ষণে রানের পাহাড়ের নিচে চাপা পড়েছে টাইগাররা। ওয়ার্নারের অনবদ্য ১৬৬, উসমান খাজার ৮৯ এবং অ্যারন ফিঞ্চের ৫৩ রানের ওপর ভর করে ৪৯ ওভারে ৫ উইকেটে অস্ট্রেলিয়ার দলীয় রান তখন ৩৬৮। বৃষ্টি থামার পর ওই রান গিয়ে দাঁড়ায় ৩৮১ রানে। জিততে হলে বাংলাদেশকে এখন ৩৮২ করতে হবে।

টেন্টব্রিজে আজ বাংলাদেশের বোলাররা ছিলেন একেবারেই অনুজ্জ্বল। উইকেট শিকারের কথা ধরলে একমাত্র সৌম্যই অজিদের কিছুটা নাড়া দিতে পেরেছেন। আট ওভার বল করে ৫৮ রানের বিনিময়ে তিন উইকেট নিয়েছেন তিনি। আর একটি উইকেট নয় ওভারে ৬৯ রান দেয়া মোস্তাফিজের পকেটে। রুবেল ৯ ওভারে দিয়েছেন ৮৩ রান, তাও উইকেট শূন্য! মাশরাফি, সাকিবের অবস্থাও তথৈবচ। এতো অসহায়ের ভিড়ে মেহেদি ছিলেন কিছুটা ব্যতিক্রম। টানা দশ ওভার বল করে মাত্র ৫৯ রান দিয়েছেন।

বৃষ্টির বাগড়ার আগে কিছুটা এলোমেলো অস্ট্রেলিয়া (৭টা ১০ মিনিট): শেষ মুহূর্তে সৌম্যের জ্বলে ওঠা এবং মোস্তাফিজের আঘাতে কিছুটা এলোমেলো হয়ে পড়েছিলো অস্ট্রেলিয়া। তবে রান যা হওয়ার তা আগেই হয়ে গেছে। বাংলাদেশকে রানের পাহাড়ের নিচে চাপা দিয়ে মাঠ ছেড়েছেন অজি ব্যাটসম্যানরা। অজি শিবিরের প্রথম তিন ব্যাটসম্যানই সৌম্যর শিকার হয়েছেন। বোলারদের মধ্যে একমাত্র তাকেই সফল বলা চলে।

উসমান খাজা ৭২ বলে ৮৯ করে সৌম্যর শিকারে পরিণত হন। শেষের দিকে এসে স্মিথকে আউট করেছেন মোস্তাফিজ। তার আগে রুবেলের থ্রোতে রান আউট হয়ে মাঠ ছাড়েন ম্যাক্সওয়েল। তাদের সবার অংশগ্রহণে অস্ট্রেলিয়ার রান ৪৯ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ৩৬৮। বর্তমানে বৃষ্টির কারণে খেলা বন্ধ আছে।

ছোট সুনামির পর আউট হলেন ম্যাক্সওয়েল (৬টা ৫৩ মিনিট): ওয়ার্নারের পর মাঠে নেমেই ছোটখাট একটা সুনামি তৈরি করেছিলেন ম্যাক্সওয়েল। ৩টি ছয় ও ২টি চারের মারে মাত্র দশ বলে ৩২ রান করে রুবেলের থ্রোতে রান আউট হলেন এই অজি ব্যাটসম্যান।

আবারও সৌম্যের অ্যাটাক, ওয়ার্নার আউট (৬টা ৪০ মিনিট): কোনো মন্ত্রই যেনো কাজে আসছিলো না ওয়ার্নারের বিরুদ্ধে। একে একে বাংলাদেশের ছয় জন বোলার বল করে গেছেন। কিন্তু ওয়ার্নারকে টলানো যায়নি। শেষ পর্যন্ত আবারও সেই সৌম্য সফল হলেন। আউট হওয়ার আগে ৫টি ছয় আর ১৪টি চারের মারের সাহায্যে ১৬৬ রান করেছেন এই অজি ওপেনার। অপরপ্রান্তে ৮৩ রান নিয়ে ক্রিজে আছেন উসমান খাজা।

ওয়ার্নারের শতক, অজিদের দ্বি-শতক (৫টা ৫৫ মিনিট): ধীর গতিতে হলেও ঠিকই এগিয়ে যাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া। এই মুহূর্তে অজিদের রান ৩৫ ওভারে ২১০ রান। দলীয় দ্বি-শতক পার হওয়ার পাশাপাশি ডেভিড ওয়ার্নার নিজেও শতকের ঘর পার হয়েছেন। অজিদের পরাস্ত করতে একের পর এক নতুন বোলার আক্রমণে নিয়ে আসছেন মাশরাফি। তবে এক সৌম্য ছাড়া আর কেউই তেমন কোনো সুবিধা করতে পারেননি।

বল হাতে সুযোগ পেয়েই সৌম্যর চমক : (৫টা ১০ মিনিট): অস্ট্রেলিয়ার সাবধানী শুরুর পর অজি শিবিরে প্রথম আঘাত হানলেন সৌম্য সরকার। বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো বল হাতে সুযোগ পেয়েই চমক দেখালেন এই ডান হাতি পার্টটাইম বোলার। অস্ট্রেলিয়ার বিধ্বংসী ওপেনার অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকে অর্ধশতকের পরই রুবেলের হাতে ক্যাচ বানান সৌম্য। ২৩ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ১২৫/১।

(৪টা ৪৫ মিনিট): বাংলাদেশের বিপক্ষে সাবধানী শুরু করেছে অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ১৭ ওভারে কোন উইকেট না হারিয়ে ১০১ রান সংগ্রহ করেছে ওয়ার্নার-ফিঞ্চ। যা ট্রেন্টব্রিজে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সর্বোচ্চ জুটির রেকর্ড। অর্ধশতক করেছেন অস্ট্রেলিয়ান বিধ্বংসী উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ডেভিড ওয়ার্নার। ৬১ বলে ৫৪ রান সংগ্রহ করেছেন তিনি। আর ফিঞ্চ অপরাজিত আছেন ৪১ বলে ৪৩ রানে।

(৪টা ৩৬ মিনিট): মাশরাফি-মোস্তাফিজকে ভালোই সামলাচ্ছেন ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যারন ফিঞ্চ। ১৫ ওভার খেলা হলেও এখন পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য কোনো সাফল্য পায়নি বাংলাদেশ। এই আপডেট লেখা পর্যন্ত ওয়ার্নার ৫৫ বলে ৫০ ও ফিঞ্চ ৩৫ বলে ৩৩ রান করেছেন। টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি ৬ ওভার বল করে ৩১ রান দিয়েছেন। কোনো উইকেট না হারিয়ে অস্ট্রেলিয়ার দলীয় রান ১৫ ওভারে ৮৬।

মাশরাফি-মোস্তাফিজের মোকাবেলায় অস্ট্রেলিয়া (৩টা ৩৩ মিনিট):টাইগারদের বিরুদ্ধে ব্যাট করতে মাঠে নেমেছে অস্ট্রেলিয়া। ওপেনিং ব্যাটসম্যান হিসেবে ডেভিড ওয়ার্নার ও অ্যারন ফিঞ্চ ক্রিজে আছেন। বাংলাদেশের পক্ষে ওপেনিং বোলার হিসেবে বল করছেন দলীয় অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। অপরপ্রান্তে আক্রমণে এসেছেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ।

বাংলাদেশ দলে দুই পরিবর্তন (৩টা ০২ মিনিট): অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টস হেরে প্রথমে বোলিং পেয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অজি অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। এদিকে, আজকের ম্যাচে একাদশে দুই পরিবর্তন এনেছে বাংলাদেশ।

চোটের কারণে খেলতে পারছেন না দুই তরুণ অলরাউন্ডার সাইফুদ্দিন ও মোসাদ্দেক হোসেন। সাইফুদ্দিনের বদলে একাদশে জায়গা দেওয়া হয়েছে অভিজ্ঞ পেসার রুবেল হোসেনকে। আর মোসাদ্দেকের বদলে ডাকা হয়েছে সাব্বির রহমানকে। রুবেল-সাব্বির চলতি বিশ্বকাপে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামছেন।

এদিকে ইংল্যান্ডের আবহাওয়া অফিস বলছে, আজকের ম্যাচে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার সম্ভাবনা তেমন একটা নেই। ইংল্যান্ডের নটিংহ্যামের ট্রেন্ট ব্রিজে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে দশটায় শুরু হচ্ছে ম্যাচটি। আবহাওয়া অফিসের খবর অনুযায়ী দুপুর দুইটা এবং তিনটার দিকে বৃষ্টি নামতে পারে।

বাংলাদেশ একাদশ: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ, লিটন দাস, সাব্বির রহমান, মেহেদি হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), মোস্তাফিজুর রহমান ও রুবেল হোসেন।

অস্ট্রেলিয়া একাদশ: অ্যারন ফিঞ্চ (অধিনায়ক), ডেভিড ওয়ার্নার, উসমান খাজা, স্টিভেন স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, মার্কাস স্টয়নিস, অ্যালেক্স ক্যারি, নাথান কোল্টার-নাইল, প্যাট ক্যামিন্স, মিচেল স্টার্ক ও অ্যাডাম জাম্বা।