ইংল্যান্ড বাংলাদেশকে ৩৮৭ রানের লক্ষ্যমাত্রা দিলো

0
35

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : বাংলাদেশের বোলারদের একেবারেই সরল বোলিং আর ফিল্ডারদের ফিল্ডিংয়ের সুযোগ নিয়ে রানের পাহাড় গড়ে তুললো ইংল্যান্ড। ক্রিকেট বিশ্বকাপে শনিবার (০৭ জুন) কার্ডিফে বাংলাদেশের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেটে ৩৮৬ রান সংগ্রহ করেছে ইংলিশরা। সুতরাং, জিততে হলে বাংলাদেশকে করতে হবে ৩৮৭ রান। বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের এটি সেরা স্কোর। তাছাড়া এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত এটি সেরা স্কোর। এই ম্যাচে জিততে হলে বাংলাদেশকে রেকর্ড গড়তে হবে। কারণ ওয়ানডেতে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সেরা স্কোর হলো ৩৩০।

ইংল্যান্ডের এই বড় স্কোর গড়ার পেছনে মূল ভূমিকা রেখেছেন জ্যাসন রয়। ১২১ বলে ১৫৩ রান করেছেন তিনি। ৪৪ বলে ৬৪ রান করেছেন জস বাটলার। ৩৫ রান করেছেন ইয়ন মরগ্যান। ৫১ রান করেছেন জনি বেয়ারস্টো। ৮ বলে ১৮ রান করে অপরাজিত থাকেন ক্রিস ওয়েকস। ৯ বলে ২৭ রান করে অপরাজিত থাকেন লিয়াম প্লানকেট। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে মাশরাফি বিন মর্তুজা ১টি, মেহেদী হাসান মিরাজ ২টি, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ২টি ও মোস্তাফিজুর রহমান ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

ইংল্যান্ড ব্যাটিংয়ে নেমে ঝড়ের গতিতে রান তুলতে থাকে। দুই ওপেনার জ্যাসন রয় ও জনি বেয়ারস্টো ১২৮ রানের জুটি গড়েন। ২০তম ওভারে ওপেনিং জুটি ভাঙে ইংলিশদের। মাশরাফির বলে কাভারে উড়ন্ত ক্যাচ নেন মেহেদী হাসান মিরাজ। ফিরে যান জনি বেয়ারস্টো। ফেরার আগে ৫০ বলে ৫১ রান করেন তিনি। বিশ্বকাপে বেয়ারস্টোর এটি প্রথম হাফ সেঞ্চুরি। এরপর ৭৭ রানের জুটি গড়েন রয় ও জো রুট। ৩২তম ওভারে রুটকে বোল্ড করেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।

এরপর বিধ্বংসী ইনিংস খেলে ফিরে যান ওপেনার জ্যাসন রয়। ১২১ বলে ১৪টি চার ও পাঁচটি ছক্কার সাহায্যে ১৫৩ রান করেছেন তিনি। বিশ্বকাপে রয়ের এটি প্রথম সেঞ্চুরি। আর ওয়ানডেতে এটি তার নবম সেঞ্চুরি। ইনিংসের ৩৫তম ওভারে মিরাজকে পরপর তিন বলে তিনটি ছক্কা হাঁকান রয়। চতুর্থ বলেও তিনি তুলে মেরেছিলেন। কিন্তু এই যাত্রায় তার আর রক্ষা হয়নি। এক্সট্রা কাভারে মাশরাফির হাতে ধরা পড়েন তিনি।

রয় আউট হয়ে গেলেও ইংল্যান্ডের রানের গতি থেমে ছিল না। জস বাটলার ও অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যান মিলে একের পর এক বাউন্ডারি হাঁকিয়ে রানের চাকা সচল রেখেছিলেন। ৪৩তম ওভারে দলীয় ৩০০ রান পূর্ণ হয় ইংল্যান্ডের। ৪৬তম ওভারে বাটলারকে ফেরান সাইফউদ্দিন। সীমানার কাছ থেকে বাটলারের ক্যাচটি নেন সৌম্য সরকার। ৪৭তম ওভারে মিরাজের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে সৌম্য সরকারের হাতে ধরা পড়েন মরগ্যান। ৪৮তম ওভারে মোস্তাফিজুর রহমানের বলে মাশরাফির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন বেন স্টোকস।

এই ম্যাচে টাইগাররা একাদশে কোনো পরিবর্তন আনেনি। তবে ইংল্যান্ড একটি পরিবর্তন এনেছে। মঈন আলীকে বসিয়ে তারা লিয়াম প্লানকেটকে একাদশে রেখেছে। এর আগে বাংলাদেশ দুই ম্যাচ খেলে একটিতে জয় পেয়েছে ও একটিতে হেরেছে। অন্যদিকে, ইংল্যান্ডও এর আগে দুইটি ম্যাচ খেলে একটিতে জিতেছে ও একটিতে হেরেছে।

গত দুই বিশ্বকাপেই ইংল্যান্ডকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। ২০১১ সালের বিশ্বকাপে চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ইংলিশদের ২ উইকেটে হারিয়েছিল টাইগাররা। আর ২০১৫ বিশ্বকাপে অ্যাডিলেডে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ইংল্যান্ডকে ১৫ রানে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছিল মাশরাফি বিন মর্তুজার দল। সুতরাং, এবারের বিশ্বকাপে যদি বাংলাদেশ ইংল্যান্ডকে হারাতে পারে তাহলে টানা তিন বিশ্বকাপে ইংলিশদের হারাবে টাইগাররা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
ইংল্যান্ড ইনিংস: ৩৮৬/৬ (৫০ ওভার) (জ্যাসন রয় ১৫৩, জনি বেয়ারস্টো ৫০, জো রুট ২১, জস বাটলার ৬৪, ইয়ন মরগ্যান ৩৫, বেন স্টোকস ৬, ক্রিস ওয়েকস ১৮*, লিয়াম প্লানকেট ২৭*; সাকিব আল হাসান ০/৭১, মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা ১/৬৮, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ২/৭৮, মোস্তাফিজুর রহমান ১/৭৫, মেহেদী হাসান মিরাজ ২/৬৭, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ০/২৪)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here