বাংলাদেশ চিন্তিত নয় প্রস্তুুতি হারে

0
47

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : ভারতের বিপক্ষে প্রস্তুুতি ম্যাচে বিরাট কোহলিকে ফিরিয়ে সাইফ উদ্দিনের উল্লাস। তবে এই উল্লাস স্থায়ী হয়নি বেশিক্ষণ। রাহুল ও ধোনির সেঞ্চুরিতে ৩৫৯ রানের বড় সংগ্রহ ভারতের, যা তাড়া করতে নেমে ২৬৪ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। হারের ব্যবধানটা যথেষ্টই বড়। তবে সেই হারকে বড় করে দেখছে না বাংলাদেশ দল। ম্যাচে পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়েছে অনেক। ভারতকে বাগে পেয়েও ছাড় দেওয়া হয়েছে অনেক কিছু বাজিয়ে দেখতে। বাংলাদেশের স্পিন কোচ সুনীল যোশী জানালেন, এই ম্যাচে প্রস্তুুতিকেই গুরুত্বপূর্ণ মনে করেছে দল।

বিশ্বকাপের শেষ প্রস্তুুতি ম্যাচে গতকাল মঙ্গলবার (২৮ মে) ভারতের কাছে ৯৫ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। লোকেশ রাহুল ও মহেন্দ্র সিং ধোনির সেঞ্চুরিতে ৩৫৯ রান তুলেছিল ভারত। বাংলাদেশ করতে পেরেছে ২৬৪।
প্রথম ইনিংসেই ম্যাচ অনেকটা বাংলাদেশের নাগালের বাইরে চলে গেছে। ওয়ানডে কখনও ৩৩০ রানও তাড়া করতে পারেনি যে দল, ৩৬০ রান তাড়ার চ্যালেঞ্জ তাদের জন্য ছিল একটু বেশিই কঠিন।

বাংলাদেশের পেসাররা শুরুটা দারুণ করলেও ফাঁস আলগা হয়ে যায় স্পিনে। স্পিনারদের কোচ সুনীল যোশী জানালেন, পরীক্ষা-নিরীক্ষার তাগিদেই সেটি হয়েছে।

“আয়ারল্যান্ডে ভালো প্রস্তুতি হয়েছে আমাদের। কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার ভালো সুযোগ ছিল। এখানে প্রথম ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে গেছে। আজকে তাই শক্তিশালী ভারতের বিপক্ষে আমরা বিভিন্ন কিছু চেষ্টা করতে চেয়েছি।”

“এটি তো অনুশীলন ম্যাচ ছিল। এজন্যই অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষা হয়েছে। ম্যাচের বিভিন্ন সময়ে, বিভিন্ন পরিস্থিতিতে, বিভিন্ন ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে আমাদের বোলাররা কেমন করে, সেটি দেখতে চেয়েছিলাম আমরা। আমাদের প্রায় সব বোলার বল করেছে, প্রায় সবাই ব্যাট করেছে। আমরা এটিই চেয়েছিলাম।”
এক পর্যায়ে ২২ ওভারে ৪ উইকেটে ১০২ রান ছিল ভারতের। এরপর স্পিন আক্রমণে আসার পর ধরে রাখা যায়নি চাপ। তার পরও পেসারদের না ফিরিয়ে স্পিন চালিয়ে নেওয়া হয়েছে। বোলিং করেছেন মোট ৯ জন বোলার। যোশীর মতে, ম্যাচে জয় গুরুত্বপূর্ণ ভাবলে অনেক কিছুই অন্যভাবে করত বাংলাদেশ।

“আমরা তো শুরুটা ভালো করেছিলাম, ১০২ রানে ৪ উইকেট ছিল ওদের। তখন সাকিব আরও কয়েক ওভার বোলিং করলে পরিস্থিতি অন্যরকম হতো। কারণ সাকিব ও রুবেল ভালো বোলিং করছিল। রাহুল ও মাহি (ধোনি) খুব ধীরে এগোচ্ছিল তখন। আমরা তখন বোলারদের পরখ করতে চেয়েছি যে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে কেমন করে। এরপর ওরা দুজন ভালো ব্যাট করেছে।”

রান তাড়ায়ও বাংলাদেশ খুব একটা চ্যালেঞ্জ জানাতে পারেনি ভারতকে। যোশী দায় দিলেন পাওয়ার প্লেতে পরপর দুটি উইকেট হারানোকে। ৪৯ রানের উদ্বোধণ জুটির পর ওপেনার সৌম্য সরকার ও তিনে নামা সাকিব আল হাসানকে টানা দুই বলে ফেরান জাসপ্রিত বুমরাহ।
“বড় রান তাড়ায় শুরুটা খুব ভালো হতে হয়। পাওয়ার প্লে কাজে লাগানো গুরুত্বপূর্ণ। এই দেশের উইকেটে বোলারদের কিছু করার থাকে না। পাওয়ার প্লেতে উইকেট না হারালে ৩৫০, ৩৭০, এমনকি ৪০০ রানও তাড়া করা সম্ভব।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here