মাশরাফী’র কথায়ও সরাসরি কৃষক থেকে ধান কেনা শুরু হয়নি

0
97

নড়াইল কণ্ঠ : মঙ্গলবার (২১ মে) সকাল ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ‘অভ্যন্তরিণ খাদ্যশস্য সংগ্রহ কার্যক্রম’ শিরোনামে স্থানীয় মিডিয়া কর্মীদের সাথে মতবিনিমিয় করেন জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) মনোতোষ মজুমদার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইয়ারুল ইসলাম প্রমুখ।
মতবিনিময় শেষে ওইদিন দুপুরে নড়াইল সদরের মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার দাদা বাড়ি মাইজপাড়া বাজারে প্রকৃত কৃষকদের থেকে সরাসির ধান কেনার উদ্দেশ্যে যান জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্টরা। খাদ্য বিভাগের সব ধরণের প্রস্ততি থাকা সত্বেও কৃষক তালিকা চুড়ান্ত না হওয়ায় নমুনা হিসেবেও শুরু করতে চেয়েও শুরু করা যায়নি মাঠ পর্যায় কৃষক থেকে ধান কেনা। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে এমপি’র নির্দেশনা মোতাবেক ধান কেনা হবে বলে জানান সংশ্লিষ্ট বিভাগরে কর্মকর্তরা।
এ সময় ধান সংগ্রহ সম্পর্কে নীতিমালার নানা দিক তুলে ধরে বক্তব্য দেন, জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সালমা সেলিম, সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: জাহিদুল ইসলাম বিশ্বাসসহ খাদ্য গুদাম সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কর্মকর্তা।
এদিকে জেলা প্রশাসকের কাছে ১৯ মে রাতে এমপি মাশারাফীর মুঠেফোন, এ নিয়ে সোমবার দেশের সকল জাতীয় ও স্থানীয় পত্র পত্রিকায় ভাইরাল হয়, মঙ্গলবার জেলা প্রশাসক সংবাদ কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেন এবং একইদিনে মাঠ পর্যায় সরাসরি প্রকৃত কৃষক থেকে ধান কেনার উদ্যোগকে সামনে রেখে প্রচারনায় নামেন ডিসি, ইউএনও, খাদ্য ও কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা।
ধান কেনা সম্পর্কে জেলা প্রশাসক বলেন, ‘কৃষকদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। তালিকা তৈরি হলেই কৃষকরা খাদ্যগুদামে নির্দিষ্ট মাত্রার ধান সরকারি মূল্যে বিক্রি করতে পারবেন।’ সরাসরি এলাকায় গিয়ে ধান কেনার প্রশ্নে তিনি জানান , ‘যেহেতু কৃষকদের থেকে ধান সংগ্রহের কাজে পরিবহন ব্যয় ধরা নেই, তাই সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী কৃষককে খাদ্যগুদামে ধান নিয়ে আসতে হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here