‘চাকুরি করলে নিয়মকানুন মেনে করবেন’-এমপি মাশরাফী

17

নড়াইল কণ্ঠ : বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সফল অধিনায়ক ও নড়াইল-২ আসনের এমপি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা নির্বাচিত হওয়ার পর দ্বিতীয়বারের মতো আবারও তার নির্বাচনী এলাকার উন্নয়ন কার্যক্রম এগিয়ে নেয়ার জন্য বিরামহীন দৌঁড়ঝাপ করেছেন।
গত ২৪ এপ্রিল নড়াইলে এসেই সুধিজনের সাথে মতবিনিময়কালে ৩০ মে বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন বলে দোয়া চেয়ে বিরাহীনভাবে এলাকার উন্নয়নের জন্য দৌঁড়ঝাপ শুরু করেন।
এ দৌঁড়ঝাপের মধ্যে এমপি মাশরাফি বিন মোর্ত্তজার প্রথম টার্গেট জেলার সকল মানুষের মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন ঘটানো।
তার ধারাবাহিকতায় ২৫ এপ্রিল নড়াইল সদর আধুনিক হাসপাতাল পরিদর্শন করেন। দুপুরে হাসপাতাল পরিদর্শনকালে কর্তব্যরত চিকিৎসকদের না দেখে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার প্রথম হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা: মো: আব্দুস শাকুর এবং পরে সিনিয়র সাজারী ডা: আকরাম হোসেনকে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে কথা বলেন।
উল্লেখ্য, ইতোমধ্যে সরকারি সেবা প্রদানকারি প্রতিষ্ঠনের মানসম্মত সেবা নিশ্চিত করতে সরকারি কর্মকর্তা, সুধিজন, সাংবাদিক নিয়ে পরিস্কারভাবে এমপি মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা বলে দিয়েছেন, ‘আমার নড়াইলে চাকরী করতে হলে সরকারি নিয়ম-নীতি মেনে চাকরি করবেন, তা না হলে চাকরী ছেড়ে চলে যান, আমি আপনাকে চলে যেতে হেল্প করবো। অযাথা আমার এলাকা বা দেশের মানুষকে সেবা প্রদানে হয়রানি করার কোন অধিকার আপনার নেই’।
হাসপাতালে কোন দালাল ডুকতে পারবে না, হসপিটাল ক্যাম্পাসে বহিরাগত কোন প্রাইভেট এ্যাম্বুলেন্স অবস্থান করতে পারবে না। এর কোনটা ব্যতয় ঘটলে কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
হাসপাতালে যতটুকু রিসোর্স রয়েছে তার সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে এবং প্রতিনিয়ত জেলা প্রশাসক ও এসপিকে অবহিত করতে নির্দেশ দেন তিনি।
রাত ৯টায় নড়াইল হাসপাতালের স্টোর রুম পরিদর্শন করেন এবং হাসপাতালের কর্মকর্তাদের মতবিনিয় করেন।
এ সময় জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার), সিভিল সার্জন ডা: আসাদ-উজ-জামান মুন্সী, হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা: মো: আব্দুস শাকুর, আরএমও ডা: মশিরউর রহমান বাবু, বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, চিকিসৎক, নার্স উপস্থিত ছিলেন।

উন্নয়ন ও রাজনীতি ভাবনা
এদিকে দলীয় নেতা কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেছেন গত বুধবার এবং দলীয় নেতাকর্মীদের সাফ জানিয়ে দিয়েছেন আপনারা রাজনীতিটা ভাল করে দেখুন আমি নড়াইলের উন্নয়নটা দেখি। এখানে তার ইঙ্গিত খুবই সুস্পষ্ট যে, যারা এলাকার উন্নয়ন নিয়ে ভাবেন না তাদের রাজনীতিতে কতটুকু প্রয়োজন। সম্ভবত এ কথা দিয়েই রাজনীতি নিয়ে যারা ভাবেন তাদের মাথায় উন্নয়ন মানে কার পকেটে কতটা আসবে। এবার কিন্তু নড়াইল-২ আসনে সে রাজনীতি হতে দেবেন মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। যিনি দেশের ও এলাকার উন্নয়ন নিয়ে ভাবেন এবং স্বইচ্ছায় দায়িত্বভার গ্রহণ করেন তারপক্ষেই রাজনীতি করা সাজে। এ ভাবনা বোধ করি চলমান রাজনৈতিক ধারার নেতাকর্মীদের মাথায় ডুকলে দেশের উন্নয়ন অগ্রগতি তরান্বিত হবে এবং সে উন্নয়ন টেকসইও হবে।

নড়াইল-২ আসনের এমপি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা কাজ করিয়ে সারা দেশকে বুঝিয়ে দিবেন রাজনীতি ও উন্নয়নের সম্পর্ক কি হওয়া উচিত? এ বিশ্বাস বাস্তবায়নের জন্য সকল অশুভশক্তির বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধারাসহ সমাজ সচেতন মানুষগুলোকে এগিয়ে আসতে হবে, সহযোগিতা করতে হবে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার সকল উন্নয়ন কর্মকান্ডকে। যেখানে দুর্নীতি, দখলবাজ, উন্নয়ন কর্মকান্ডে বাঁধাসৃষ্টিকারি দেখবেন সেখানে মুক্তিযোদ্ধাসহ সমাজ সচেতন মানুষগুলোকে রুখে দাঁড়াতে হবে। হোক সে দলীয় নেতাকর্মী, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তি বা মহল তাদের রুখতে আপনাদের পাশে নড়াইল-২ আসনের এমপি মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা থাকবেন বলে নিশ্চিত করেছেন।

পরিদর্শনকালে তিনি কি পেলেন? আসুন এমপি মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার মুখ থেকেই শুনতে নিচের ভিডিও ক্লিক করুন।