‘আমি দুর্নীতি করি না, আমার অফিস দুর্নীতি মুক্ত’ অফিসে প্রদর্শন করুন -দুদক কমিশনার

51

নড়াইল কণ্ঠ : ‘সরকারি সকল অফিসের দৃশ্যমান স্থানে ‘আমি দুর্নীতি করি না, আমার অফিস দুর্নীতি মুক্ত’ দুর্নীতির অভিযোগ পেলে আমাকে জানান’ সাইনবোর্ড প্রদর্শন করবেন’।‘আমি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে রিপোর্ট নিবো নড়াইলে সকল অফিসে এক কাজটি বাস্তবায়ন হয়েছে কি না?’ বুধবার (০৩ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা বেগম সভাপতিত্বে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক অনুষ্ঠিত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার (তদন্ত) এ, এফ, এম আমিনুল ইসলাম এসব কথা বলেন।
এ সময় কমিশনার (তদন্ত) এ, এফ, এম আমিনুল ইসলাম সাব রেজিষ্ট্রি অফিস, স্টেলমেন্ট অফিস, পাসপোর্ট অফিস, এলজিইডি, স্বাস্থ্য বিভাগের বিভিন্ন কাজের অনিয়ম ও দুর্নীতি সম্পর্কে সর্তক করেন।
এছাড়া তিনি হাটবাড়িয়া জমিদার বাড়ির সম্পত্তি দখলমুক্ত করতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কাজী মাহাবুবুর রশীদকে আহবায়ক করে ৭ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে দেন।
এ সময় জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী হাফিজুর রহমান বলেন, সমাজ থেকে দুর্নীতি কমাতে, নিজেকে সৎ ও যোগ্য নাগরিক প্রমান করতে জেলার সকল নাগরিকগণের স্ব স্ব সম্পদ মূল্যায়ণ করার আহব্বান জানান। দুদক কমিশনের মাধ্যমে একটি ‘সম্পদ মূল্যায়ণ মেলা’ করার অনুরোধ করা হয়।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার), সিভিল সার্জন ডা: আসাদ-উজ-জামান মুন্সী, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: ফরিদ উদ্দিন, দুর্নীতি দমন কশিমনের খুলনা বিভাগীয় পরিচালক নাসিম আনোয়ার, দুদক কমিশনার (তদন্ত) এর একান্ত সচিব মো: রবিউল ইসলাম, ডিডিএলজি মো: মনিরুজ্জামান, এডিসি (রাজস্ব) কাজী মাহাবুবুর রশীদ, এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী বিধান চন্দ্র সোমদ্দার, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শাহানেওয়াজ তালুকদার, এডিএম বাকহীদ, সদরের ইউএনও সালমা সেলিম, দুদক সজেকা যশোরের উপ-পরিচালক মো: নাজমুচ্ছায়াদাত, জেলা শিক্ষা অফিসার এস এম ছায়েদুর রহমান, জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, জেলা দুপ্রক এর সভাপতি মো: মনিরুজ্জামান মল্লিক, সাধারণ সম্পাদক কাজী হাফিজুর রহমান, চেম্বর অব কমার্সে সভাপতি হাসানুজ্জামান, রেডক্রিসেন্ট নড়াইল ইউনিটের সম্পাদক কাজী ইসমাইল হোসেন লিটন, বিভিন্ন সরকারি দপ্তর সমূহের কর্মকর্তাবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, সাংবাদিকবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।