‘সুলতান র্স্বণ পদক’ প্রদানের মধ্যদিয়ে শেষ হলো ১০দিনব্যাপি মেলা

0
57
Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলে ১০দিনব্যাপী সুলতান মেলা শেষ হয়েছে। মঙ্গলবার (১২ মার্চ) বিকেলে নড়াইলের সুলতান মঞ্চ চত্বরে সুলতান পদক প্রদানের মধ্য দিয়ে শেষ হয় এ মেলা। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংরাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ খ্যাতিমান চিত্রশিল্পী মুস্তফা মনোয়ারকে সুলতান স্বর্ণ পদক-২০১৯ প্রদান করেন।
জানা গেছে, শিল্পী মুস্তফা মনোয়ার ১ সেপ্টেম্বর ১৯৩৫ সালে বর্তমান মাগুরা জেলার শ্রীপুর থানার নাকোল গ্রামে মাতুলায়ে জন্মগ্রহণ করেন। তার পৈত্রিক নিবাস ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার মনোহরপুর গ্রামে। তাঁর বাবা প্রায়াত কবি গোলাম মোস্তফা এবং মায়ের নাম জমিলা খাতুন। ছয় ভাই-বোনের মধ্যে মুস্তফা মনোয়ার সবার ছোট। ১৯৬৫ সালে তিনি চট্টগ্রামের মেয়ে মেরীর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাঁদের এক ছেলে এবং এক মেয়ে রয়েছে। ছেলে সাদাত মনোয়াার বাংলাদেশ বিমানের পাইলট এবং মেয়ে নন্দিনী মনোয়ার চাকুরীজীবী।
তিনি একুশে পদক, টেনাশিনাস পদক, আরটিভি স্টার আজীবন সন্মাননা পদক লাভ করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নড়াইলের জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ্বাস, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম (বার), জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, এস এম সুলতান ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান মিকু প্রমুখ।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে গত ৩ মার্চ বিকেলে সুলতান মঞ্চ চত্বরে ১০ দিনব্যাপী সুলতান মেলার উদ্বোধন করা হয়। মেলায় কুস্তি, ষাঁড়ের লড়াই, দড়ি টানাটানি, ভলিবল প্রতিযোগিতা, আর্চারি, কাবাডি, লাঠিখেলা, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, চিত্রপ্রদর্শনী, আবৃত্তি, নাটক, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন গ্রামীণ খেলাধূলার আয়োজন করা হয়। এছাড়া মেলায় বিভিন্ন পণ্যের বেচাকেনা জমে উঠে। বরেণ্য চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের ৯৪তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসন ও এস এম সুলতান ফাউন্ডেশনের উদ্যোগ সুলতান মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এস এম সুলতান ১৯২৪ সালের ১০ আগস্ট নড়াইল শহরের মাছিমদিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি একুশে পদক, স্বাধীনতা পদকসহ বিভিন্ন পদকে ভূষিত হন। ১৯৯৪ সালের ১০ অক্টোবর যশোর সম্মিলিত হাসপাতালে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন এস এম সুলতান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here