নড়াইলে এলজিআরডি মন্ত্রী তাজুল ইসলামকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ

0
41
Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

নড়াইল কণ্ঠ : স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলামকে এলজিইডির কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করে নেয়া হয়েছে।
সোমবার ( ১৮ ফেব্রƒযারি) দুপুরে কালনা ফেরীঘাটে মন্ত্রী ও এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলীকে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করা হয়। এ সময় অবহেলিত নড়াইল জেলার উন্নয়নে বিশেষ নজর দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়।
মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলাম সোমবার সকালে গোপালগঞ্জ জেলা সফরের জন্য বিমানগোগে ঢাকা হতে যশোর বিমান বন্দরে অবতরণ করেন। পরে সড়ক পথে নড়াইল হয়ে গোপালগঞ্জে যান। যাত্রাপথে কালনা ফেরীঘাটে পৌঁছালে সেখানে অপেক্ষমান নড়াইল ও গোপালগঞ্জ জেলার এলজিইডি বিভাগে কর্মরত কর্মকর্তারা মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলাম ও এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আবুল কালাম আজাদকে ফুলেল শুভেচ্ছা বরণ করে নেন এলজিইডি নড়াইলের নির্বাহী প্রকৌশলী বিধান চন্দ্র সোমদ্দার, গোপালগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী এ, কে, ফজলুল হক, লোহাগড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুকুল কুমার মৈত্র, লোহাগড়া উপজেলা সহকারী প্রকৌশলী অজিত মজুমদার, এলজিইডি নড়াইলের উপ-প্রকৌশলী মো: মনিরুল ইসলাম সহ সংশিল্প দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।
এসময় উপস্থিত কর্মকর্তা ও সাংবাদিকর সাথে আলাপকালে মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেন, মাননীয় প্রধানমনন্ত্রী গত ১০বছরে বহু কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছেন। বিদ্যুতায়ন, সুপ্রেয় পানি সরবরাহ, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির জন্য ব্যাপক পরিকল্পনা নেওয়া আছে। সেগুলি সারা বাংলাদেশের সর্বত্রই বাস্তবায়ন হবে। নড়াইল জেলাও তার বাইরে নয়।
নড়াইলের উন্নয়ন সম্পর্কে তিনি বলেন, নড়াইলের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ ক্রিকেটার মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা আমার সাথে দেখা করেছে, ব্যক্তিগতভাবে কথা বলেছে। নড়াইলের উন্নয়নের ব্যাপারেও গুরুত্বের সহিত বিবেচনা করা হবে। আশা করি সারা বাংলাদেশ যেমনি উন্নত হবে, নড়াইল তার থেকে বিচ্ছিন্ন থাকবে না।
মন্ত্রী টুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর মাজার জিয়ারত করেন। পরে এলজিইডির বাস্তবায়ধীন বিভিন্ন উন্নয়নমুলক প্রকল্প পরিদর্শন করেন এবং মতবিনিময় সভায় মিলিত হন। বিকালে আবারও সড়ক পথে যশোর বিমানবন্দরে পৌঁছান। সেখান থেকে বিমানযোগে ঢাকায় ফিরে যান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here