কালিয়ায় ইভটিজিং’র প্রতিবাদে ঢাল নিয়ে ঐক্যবদ্ধ গ্রামবাসী

0
94
Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার মাউলী গ্রামটি নানাভাবে আলোচিত একটি গ্রাম। ঐতিহ্যের পাশাপাশি এলাকাটি দাঙ্গা হাঙ্গামা ও সামাজিক বিরোধের দিকেও বেশ পরিচিত। গ্রামের মানুষ দীর্ঘদিন ধরে আধিপত্য বিস্তার ও গ্রামের সামাজিক বিরোধের কারনে দুইভাবে বিভক্ত। মাঝে মধ্যে ঢাল সড়কি নিয়ে সংঘর্ষের খবরও শোনা যায়।
তবে এবার মাউলী গ্রামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে পাশ^বর্তী পাটকেলবাড়ী-হাচলা গ্রামের বখাটেরা উত্যক্ত করার প্রতিবাদে পুরোগ্রামের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে পড়েছেন। ইভটিজিং এর প্রতিবাদে ঢাল, সড়কি, রামদা সহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রাদি নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বখাটেদের বাড়িতে হামলার প্রস্তুতি গ্রহণ করে।
বুধবার দুপুরে মাউলী গ্রামের প্রায় এক হাজার মানুষ জোটবদ্ধ ভাবে ইভটিজিংকারী পাশ^বর্তী পাটকেলবাড়ী-হাচলা গ্রামের ওপর হামলার উদ্দেশ্যে এগিয়ে যায়। তবে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আগেই পাশ^বর্তী বাবরা-হাচলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ মোজাম্মেল হোসেন পিকুলের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
মাউলি গ্রামের বাসিন্দ মোঃ সুমন হোসেন বলেন, মাউলী পঞ্চপল্লী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এসএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র কালিয়া উপজেলা শহরে। পরীক্ষার্থীদের পাশ^বর্তী বাবরা-হাচলা ইউনিয়নের পাটকেলবাড়ী ও হাচলা কয়েকটি গ্রামের ওপর দিয়ে কালিয়া শহরে পরীক্ষা দিতে যেতে হয়।
মঙ্গলবার দুপুরে কালিয়া কেন্দ্রে পরীক্ষা দিয়ে ফেরার পথে হাচলা গ্রামে পৌঁছালে মাউলী পঞ্চপল্লী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের একজন ছাত্রীকে হাচলা গ্রামের কয়েকজন বখাটে উত্যক্ত করে। এ ঘটনায় ওই শিক্ষার্থীর সাথে থাকা সহপাঠীরা বাধা দেয়ায় তাদেরকেও লাঞ্ছিত ও মারধর কওে বখাটেরা।
উত্যক্তের ঘটনাটি পরীক্ষার্থীর পরিবার ও গ্রামবাসীর মাঝে জানাজানি হলে মঙ্গলবার রাতেই এর প্রতিবাদ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।
বুধবার দুপুরে মাউলী গ্রামবাসী ঐক্যবদ্ধাবে ইভটিজিং এর প্রতিবাদে জোটবদ্ধভাবে পাটকেলবাড়ী-হাচলা গ্রামের দিকে অগ্রসর হয়। এ খবর শোনার পর পাশ^বর্তী বাবরা-হাচলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন ঘটনার উপযুক্ত বিচার দেওয়ার আশ^াস দিয়ে উত্তেজিত মাউলী গ্রামবাসীকে গ্রামে ফিরিয়ে দেন।
বাবরা-হাচলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন বলেন, উপযুক্ত বিচারের আশ^াস দিয়ে মাউলী গ্রামবাসীকে শান্ত করি এবং তাদেরকে গ্রামে ফিরিয়ে দেই। বুধবার সন্ধ্যায় উভয়পক্ষের উপস্থিতিতে ঘটনাটি মিমাংসা হয়। এসময় বখাটেরা উপস্তিত দুইগ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে ক্ষমা চায় এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের আর কোন ঘটনা ঘটাবে না বলে ওয়াদা বদন্ধ হন। এসময় উভয়পক্ষ হাতে হাত ধরে ভুল বোঝাবুঝির নিরসন করা হয় এবং বখাটেদের ১ লাখ টাকা জরিমানা ধার্য্য করা হয়’
কালিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, বিষয়টি শোনার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। পুলিশের উপস্থিতির পর কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।’’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here