নজিরবিহীন ভোটের ব্যবধানে মাশরাফি বিজয়ী হবেন! নড়াইল দু’টি আসনেই আ’লীগের জয় নিশ্চিত!

0
49
Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : শেষ হলো আজ নির্বাচনী প্রচার-প্রচারনা। শুক্রবার (২৮ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা হতে নির্বাচন কমিশন কর্তৃক বিধিবিধান অনুযায়ি প্রচার-প্রচারনা শেষ হয়েছে। ৩০ ডিসেম্বর সকাল ৮টা হতে ভোট গ্রহণ শুরু হয়ে শেষ বিকাল ৪টায় শেষ হবে। ৩০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণের জন্য নড়াইলে সবধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই নড়াইলের ২টি আসনেই প্রার্থীরা শুরু করেন পোস্টার, লিপলেট, মাইকিং, উঠান বৈঠক, কর্মীসভা, পথসভাসহ নানা কর্মসূচির মাধ্যমে প্রচার-প্রচারণা। ভোটাররা হিসাব কষছেন কে কে হচ্ছেন এ দু’টি আসনের এমপি। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের দূর্গ হিসেবে পরিচিতি নড়াইলের দু’টি আসনেই বিজয়ের সম্ভাবনা দেখছেন আওয়ামী সমর্থিত লোকজন।
সংসদীয় আসন-৯৩ নড়াইল-১ নৌকার প্রার্থী বি এম কবিরুল হক মুক্তি এবার হ্যাট্রিক করবেন এবং নড়াইল-২ আসনে বিজেয়ের মাধ্যমে রাজনীতির মাঠে অভিষেক ঘটবে ক্রিকেটে মাঠ কাঁপানো সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজার।

নড়াইল-১ আসনটি নড়াইল সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন ও কালিয়া উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। এই আসনটি আওয়ামীলীগের উর্বর ভূমি হিসেবে পরিচিতি।
নড়াইল-১ আসনে ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি কবিরুল হক মুক্তি ৬৩ হাজার ৮২৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছিলেন। এরপর ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে কবিরুল হক মুক্তি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি নির্বাচিত হন।
এবারের নির্বাচনে সম্ভাব্য বিজয়ী প্রার্থী কবিরুল হক মুক্তির প্রতিপক্ষ হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মাঠে নেমেছেন নড়াইল জেলা বিএনপির সভাপতি বিশ্বাস জাহাঙ্গীর আলম।

নড়াইল-২ আসনে আওয়ামী লীগের টিকেট নিয়ে নৌকা প্রতীকে নির্বাচনী মাঠে নেমেছেন ক্রিকেট অঙ্গনে মাঠ কাঁপানো অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। তার নির্বাচনকে ঘিরে তরুণ সমাজ বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে মাঠে নেমেছেন। এছাড়া আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, আওয়ামী মহিলা লীগ, যুব মহিলা লীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা মাঠে নেমেছেন। এছাড়া দল কওে না, কোনদিনও নৌকায় দেন নাই এমন ভোটারও মাঠে নেমেছেন, সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানাওে মাঠ চষেছেন মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা কৌশিকের জন্য। প্রতিদিনই বিভিন্ন এলাকায় একাধিক মিটিং সিটিং প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন। এই আসনে মাশরাফি বাংলাদেশে নজির সৃষ্টি করার মতো ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবে বলে আশাবাদী তার কর্মী-সমর্থকদের।

সংসদীয় আসন-৯৪ নড়াইল-২ আসনে ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ১৭ হাজার ৫১১ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার এক লাখ ৬০ হাজার ৬২৪ এবং পুরুষ ভোটার এক লাখ ৫৬ হাজার ৮৮৭ জন। নড়াইল ও লোহাগড়া পৌরসভাসহ এ আসনের অধীনে সদর উপজেলায় ৮টি ইউনিয়ন এবং লোহাগড়া উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন রয়েছে। এ আসনে ৫ বার আওয়ামী লীগ, ২ বার বিএনপি ও জাতীয় পার্টি, ১ বার আওয়ামী লীগের মহাজোট প্রার্থী বিজয়ী হন।

এদিকে এবার নির্বাচনে নড়াইল-২ আসনে মাশরাফির প্রধান প্রতিদ্বন্দি হিসেবে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করছেন এ জেড এম ফরিদুজ্জামান ফরহাদ। যিনি ২০০৮ সালের নির্বাচনে আম প্রতীকে পেয়েছিলেন ২৯২ ভোট।
২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জোটবদ্ধভাবে নির্বাচনে আওয়ামী লীগ এই আসনটি বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টিকে ছেড়ে দেয়। ভোটের মাঠে অধিনায়ক মাশরাফি প্রায় ১ লাখ ভোটের ব্যবধানে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস বলেন, ‘নড়াইলের দু’টি আসন থেকেই এবারের নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে মনোনয়ন দিয়েছেন। আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা জোরালোভাবে মাঠে কাজ করেছেন। আশা করি দুটি আসনেই নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবেন। নড়াইল-১ আসনে কবিরুল হক মুক্তি ও নড়াইল-২ আসনে ক্রিকেট তারকা মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা এমপি নির্বাচিত হলে নড়াইল জেলার কাঙ্খিত উন্নয়ন সম্ভব হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here