শহর পরিচ্ছন্ন রাখতে তরুণদের সাথে মাশরাফি’র মা

62

‘আমাদের শহর আমরাই রাখবো পরিস্কার’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সকল শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে মাশরাফি ভক্ত তরুণ সমাজ শহর পরিস্কার কর্মসূচি শুরু করেছে। শনিবার (১৫ ডিসেম্বর) রাত ৯টায় শেখ রাসেল সেতু হতে নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশন ও নড়াইল ভলান্টিয়ার্স এর সহযোগিতায় এ কর্মসূচি শুরু করা হয়। এই কাজের সূচনা করেন মাশরাফির মা হামিদা মর্তুজা। তিনি তরুণদের সাথে শহর পরিষ্কার কর্মসূচিতে যোগ দেন। এ সময় মাশরাফির মায়ের সাথে একঝাক তরুণ-তরুণি ঝাড়– হাতে মুখে কাক্স, হাতে গ্লোব পরে শহরের রাস্তার দু’পাশের ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার করে। তারা চিত্রানদীর ওপর নির্মিত শেখ রাসেল সেতু হতে এ পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম শুরু করে শহরের প্রধান প্রধান সড়কের চারিপাশের আবর্জনা ময়লা ঝাড়– দিয়ে একত্রিত করে নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের দেয়া ডাস্টবিনে সংরক্ষণ করে।

এ যাত্রা অব্যহত রাখার জন্য শহরের সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করে বক্তব্য রাখে, উদ্ভাবনী চেতনার উদ্যোগি তরুণ মাশরাফি’র নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের মডারেটর তরুণ সমাজ কর্মী রাসেল বিল্লাহ, নড়াইল ভলান্টিয়ার্স এর প্রতিষ্ঠাতা সাকিব, ফাউন্ডেশনের ক্রিকেট কোচ ইমরুল কয়েস, নাহিয়ান সহ আরো অনেকে।
এ সময় বক্তারা বলেন, মাশরাফি ভাইয়ের অনুপ্রেণায় আমরা এ কাজে উদ্বুদ্ধ হয়েছি। সে আগামিকাল নড়াইলে আসবে। সে যেন এসে দেখে তার ভক্তরা ভাল কাজের সাথে রয়েছে। তার ভালবাসা পেতে চাই। আর সেই ভালবাসায় সিক্ত হয়ে সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের পাশে থাকতে চাই। এছাড়া নিয়মিত পরিচ্ছন্ন কর্মীদের কোন ছুটি পায় না। অন্তত সপ্তাহে একটি দিন তাদের ছুটি দিতে চাই। আর তাদের ছুটির দিনে শহরে তাদের হয়ে আমরা তরুণরা এ কাজটি করবো।

এ উদ্যোগকে উৎসাহিত দেয়ার জন্য এ সময় মাশরাফি বিন মোর্ত্তজার গর্বিত মা হামিদা বেগম, পিতা গোলাম মোর্ত্তজা স্বপন, মামা নাহিদ হোসেন, নড়াইল পৌরসভার কাউন্সিলর কাজী জহিরুল হকসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
নড়াইল ভলেন্টিয়ার এর টিমলিডার সাকিব বলেন, এলাকার পরিচ্ছন্ন কর্মীরা কত কষ্ট করে আমাদের শহর পরিষ্কার রাখে বিজয় দিবসে আমরা সেটা উপলব্ধি করতে চাই, আর এসব স্বপ্ন আমাদের দেখাচ্ছেন আমাদের ক্যাপ্টেন মাশরাফি। নড়াইল এক্সপ্রেস ফাউন্ডেশনের জুনিয়র মডারেটর তরুণদের লিডার রাসেল বিল্লাহ বলেন, মাশরাফি ভাই সব সময় বলেন, মাশরাফি ভাইয়ের স্বপ্ন- ‘নড়াইল হবে প্রজন্মের শ্রেষ্ঠ বাসস্থান’ সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করছি। আমরা এলাকার তরুণেরা এক হয়ে মাশরাফি ভাইয়ের স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছি, করে যাবো’।
তরুণদের সঙ্গে এক হয়ে মা হামিদা মর্তুজা বলেন, আমার তরুণদের সকল ভালো কাজের সঙ্গে আমি আছি, আমরা সকলে মিলে এই নড়াইলসহ দেশটাকে গড়ব, ছোটদের এই সব দেশ গড়ার কাজকে আমরা বড়রা এগিয়ে নিতে চাই- দেশটাকে পরিষ্কার করছি এটাই বিজয় দিবসে আমাদের মুক্তিযুদ্ধের প্রেরণা।