মাশরাফি’র পক্ষে নির্বাচনী প্রচারনায় নেমেছে সকল শ্রমজীবী মানুষ

57

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইল শহরের খান জাহান আলী হোটেল মালিক ইসহাক হোসেন। হোটেলের খদ্দের সামলে সকাল ৯টা থেকে শুরু করেন মাশরাফির জন্য নৌকা বানানোর কাজ। তার দোকানে তিনজন কর্মচারি। মাশরাফি’র ভালবাসায় সিক্ত হয়ে তাদের নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন ম্যাসের নির্বাচনী প্রচারণায়। লোকজ উপকরণ বাঁশের কঞ্চি দিয়ে নৌকার ফ্রেম তৈরি করে তাতে লাল-সবুজ কাপড় দিয়ে সেলাই করে তৈরি করছে ছোট ছোট নৌকা। এ ধরনের ছোট ছোট নৌকা তৈরি কওে সেগুলো নির্বাচনী’র বিভিন্ন এলাকায় প্রচারের জন্য রেখে দেয়া হবে। মাশরাফির ভক্ত এই এই ক্ষুদ্র হোটেল ব্যবসায়ি ইসহাক হোসেন বলেন, ভাই আমাদের ‘বস’ মাশরাফি নৌকা মার্কা নিয়ে দাঁড়িয়েছে। এমন সুযোগ আর পাবো না, ব্যবসা-টাকা এগুলো বেঁচে থাকলে আল্লাহ দিলে আরো সময় পাবো। ইসহাকের মতো সবজি বিক্রেতা মোবারক, মুদি দোকানি সাঈদ, কসমেটিক বিক্রেতা মিশন ব্যবসা কমিয়ে এখন শুধুই মাশরাফির জন্য ভোটের মাঠে।
মহিষখোলা কাঁচাবাজারের আরেক ফল বিক্রেতা মন্নু মোল্যা ব্যবসার সময় কমিয়ে নিয়ে সারদিন মাশরাফির লিফলেট বিলি করছেন পাড়ায়-মহল্লায় আর বাসস্ট্যান্ডে। মাশরাফি পাগল এই ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী মাশরাফি মনোনয়ন পাবার পর থেকে বাইরের কাউকে দেখলেই ভোট চেয়ে একটি করে ফলও খায়িয়ে যাচ্ছেন।
মাশরাফির পরিবার কিম্বা আওয়ামী লীগের কোনো নেতা-কর্মী হয়তো জানেই না নিজের অর্থে কীভাবে নেমে পড়েছেন এলাকার গরীব-ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। জেলা ইজিবাইক শ্রমিক সমিতির সভাপতি লায়েব আলী একটি মোটর সাইকেলে নিজ খরচে নৌকা মার্কা স্থাপন করে তাতে লাইট জ্বালিয়ে সারাদির ঘুরে বেড়াচ্ছেন।
তার বক্তব্য, এলাকার সকল ইজিবাইক চালক মাশরাফির জন্য পাগল হয়ে গেছে, তারা নিজ নিজ খরচে মাশরাফির প্রচার চালাচ্ছে।আমাদের সোনার ছেলের জন্য করবো না তো কার জন্য করবো।
এদেও দেখাদেখি পিছিয়ে নেই অন্য ব্যবসায়ীরাও। নিজেদের অর্থ ব্যয় করে প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন তারাও। প্রচারের ব্যানারে তাদের নাম কিংবা ছবি শোভা পাচ্ছে কিন্তু গরীব খেটেখাওয়া মানুষের নিভৃতে নিঃস্বার্থভাবে মাশরাফির জন্য ভালোবাসা দেখে এলাকার সব বয়সি মানুষ সকলেই মাঠে নেমে পড়েছেন।
মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা নড়াইল-২ আসনের মনোনয়ন পাওয়ায় উৎসব মুখর হয়ে উঠেছে নড়াইল। নড়াইলের সাংস্কৃতিক কর্মীরা ক্যাপ্টেনকে ভালোবেসে নিজেদের উদ্যোগে গড়েছে মাশরাফির নির্বাচনী কার্যালয়। নড়াইলের সকল সাংস্কৃতিক কর্মীর উপস্থিতিতে শুরু করেছে প্রচারণা। প্রতিদিন গান, নাটক, কবিতা সহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মকান্ড নিয়ে চলতে থাকবে এই আয়োজন নির্বাচনের আগের দিন পর্যন্ত। সবাইকে উক্ত আয়োজন উপভোগের আমন্ত্রণ জানাই। জয় বাংলা জয় হোক মাশরাফির।