নড়াইলে স্বভাব কবি বিপিন সরকারের ৩য় প্রায়ণ দিব উপলক্ষে আলোচনা সভা

25

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলের স্বভাব কবি বিপিন সরকারের ৩য় প্রায়ণ দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্বভাব কবি বিপিন সরকার স্মৃতিরক্ষা পরিষদের আয়োজনে বৃহস্পতিবার (২৯ নভেম্বর) বিকাল সাড়ে ৪টায় কবির নিজ বাড়ি নড়াইল পৌর এলাকার বাহিরডাঙ্গা গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়। কবি আল ইমরানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, নড়াইল পৌরসভার কাউন্সিলর মো: রেজাউল বিশ্বাস, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণের পরিদর্শক বিদ্যুৎ বিহারী নাথ, আব্দুল হাই সিটি কলেজের ইংরেজি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক মলয় কান্তি নন্দী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি মলয় কুমার কুন্ডু, সাধারণ সম্পাদক শরফুল আলম লিটু, বিজয় সরকার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা আকরাম শাহিদ চন্নু, সহকারি অধ্যাপক শামীমুল ইসলাম টুলু, লাল বাউল সম্প্রদায়ের সাধারণ সম্পাদক গোলাম সরোয়ার ফকির প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, স্বভাব কবি বিপিন সরকারের লেখা কবিতা পড়তে হবে এবং পড়াতে হবে। শুধু জন্ম-মৃত্যু দিবস পালনের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখলে তাঁর প্রতি যথাযথ সম্মান দেয়া হবে না। তার চেতনা নিজের মধ্যে ধারণ করতে হবে এবং আগামি প্রজন্মের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে।
স্বভাব কবি বিপিন সরকার অসংখ্য অষ্টক গান, হালুই গান, ধুয়া-বারাসিয়া গানের রচয়িতা। স্বভাব কবি বিপিন সরকারের ৮টি কাব্যগ্রন্থ, ২০টি অষ্টক যাত্রা পালা, ১৪টি পালা গান, এক হাজারের বেশী কবিতা, এক হাজার হালুই গান, দুই শতাধিক ধুয়া-বারাসিয়া গান লিখে গেছেন।
নড়াইলসহ দক্ষিন-পশ্চিমাঞ্চলে এই স্বভাব কবির যাত্রা পালা, অষ্টক গান, কবিতা, হালুই গান, ধুয়া-বারাসিয়া গান নৌকার মাঝি, কৃষাণ-কৃষাণীসহ সাধারণ মানুষের মাঝে অত্যন্ত জনপ্রিয়। সাংস্কৃতিক অঙ্গণে অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি ১৯৯৮ সালে চিত্রা থিয়েটার পদক, ২০০৩ সালে এ্যাডভোকেট এম বদরুল আলম স্মৃতি পদক, ২০০৮ সালে দক্ষিণ বাংলা সাহিত্য পদক এবং ২০১০ সালে লোককবি বিজয় সরকার স্মৃতি পদকসহ একধিক পদক ও সম্মাননা পেয়েছেন।
তিনি বাংলা ১৩শ ৩০ সনের ৫ পৌষ নড়াইল পৌর এলাকার বাহিরডাঙ্গা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। গত ২০১৫ সালের ২৭ নভেম্বর নিজ বাড়িতে বার্ধক্যজনিক কারণে মারা যান। কবির নিজ বাড়ি প্রাঙ্গনে তাঁকে সমাধিস্থ করা হয়।