‘বিএনপির ঘাড়ে ভর দিয়ে ড.কামালের আকাশে ওড়ার স্বপ্ন পূরণ হবে না’

40

“বিএনপির ঘাড়ে ভর দিয়ে ড.কামাল হোসেন আকাশে ওড়ার দিবাস্বপ্ন দেখছেন। তার এই আকাশে ওড়ার স্বপ্ন বাস্তবতার আলো দেখবে না” বলেছেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।
বুধবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর ইস্কাটন গার্ডেন স্কুল মাঠে ১৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ, রমনা থানা ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড পর্যালোচনা শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।
রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘বিদ্যুৎ, কৃষি, যোগাযোগ, তথ্যপ্রযুক্তি,বাণিজ্যিক ঘাটতি মেটানোসহ বাংলাদেশে যখন সবদিক দিয়ে উন্নতি হচ্ছে, তখন ড. কামাল হোসেন-বদরুদ্দোজা চৌধুরী মিলে বিএনপিকে ভোটে জিতিয়ে দিতে ও বিএনপিকে পুঁজি করে নিজেদের রাজনৈতিক ফায়দা নিতে নানা নামে তারা ঐক্য করার পাঁয়তারা করছেন। তারা নাম দিচ্ছে জাতীয় ঐক্য, কিন্তু তাতে আওয়ামী লীগের মতো বৃহৎ দলের কোনও সংশ্লিষ্টতা নেই। তাদের নিজদের পায়ের তলায় কোনও মাটি নাই, তাই তারা ভর করার চেষ্টা করছে বিএনপি-জামায়াতের ওপর। কিন্তু তারা হয়তো ভুলে গেছে তাদের ভরসার দল বিএনপি গত ৯ বছরে ৯টি আন্দোলনও করে দেখাতে পারেনি। প্রকৃতপক্ষে বিএনপি আন্দোলন আর করতে পারবে না। কারণ, বিএনপির দলীয় কর্মীদের কোনও নৈতিক আদর্শ নেই। সুতরাং বিএনপির ভরসায় ড.কামাল হোসেন যেভাবে আকাশে উড়াল দিতে চাচ্ছেন তার এই আকাশে ওড়ার স্বপ্ন আর বাস্তবতার আলো দেখবে না।’
বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা প্রসঙ্গে মেনন বলেন, ‘বাংলদেশকে আর কেউ পিছনে নিয়ে যেতে পারবে না। যে স্বপ্ন নিয়ে আমরা বাংলাদেশকে স্বাধীন করেছিলাম, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন এখন কেবল সময়ের ব্যাপার। আমাদের বর্তমান সরকারের আমলে বাংলাদেশ এক অবিশ্বাস্য উন্নয়নের পথে এগিয়ে গেছে। বাংলাদেশে এ বছর স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। দেশের জিডিপি বেড়েছে কয়েকগুণ। দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ২০০৫ সালের বিএনপি-জামায়াত শাসনের ৫৪০ ডলার থেকে এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে একহাজার ৭৫২ ডলারে। দারিদ্র্য কমে নেমে এসেছে ২২ শতাংশে। রেমিট্যান্স বেড়েছে, বেড়েছে রফতানি আয়। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ এখন ৩৩ বিলিয়ন ডলার। মৎস্যচাষে বাংলাদেশ পৃথিবীর চতুর্থ, সবজি উৎপাদনে তৃতীয় এবং গার্মেন্টস রফতানিতে দ্বিতীয় হয়েছে। অভ্যন্তরীণ ক্ষেত্রে সরকার পদ্মা সেতু নির্মাণের পাশাপাশি আরও বহু সেতু নির্মাণ, রেলপথ, মেট্রোরেল, এক্সপ্রেস ওয়ে, বহুসংখ্যক উড়াল সেতু, চার লেনবিশিষ্ট রাস্তা নির্মাণ, ২০১৮ সালের মধ্যে সব গ্রামকে বিদ্যুতের আওতায় আনা, গ্রামে গ্রামে কমিউনিটি হাসপাতাল, কৃষি, স্বাস্থ্য ও অর্থনীতি বিষয় জানতে প্রতি ইউনিয়নে ডিজিটাল তথ্যকেন্দ্র ও সর্বোপরি বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মাধ্যমে বাংলাদেশকে মহাকাশের সাথে সংযুক্ত করার বিশাল কর্মযজ্ঞ সম্পন্ন করেছে। সুতরাং বর্তমানের অত্যন্ত জনপ্রিয় এই শেখ হাসিনা সরকারকে জনবিচ্ছিন্ন লোকের নেতৃত্বে আন্দোলনের ভয় দেখিয়ে কোনও ফায়দা হবে না।’
১৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন রমনা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোখলেছুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম ১৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুন্সী কামরুজ্জামান কাজল, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক রইসুল আলম ময়না, স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. নজরুল ইসলাম, ১৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. হানিফসহ স্থানীয় যুবলীগ,স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মী ও এলাকার মানুষ।