কেন এতো উদাসীনতা বাংলাদেশে অগ্নি নিরাপত্তা নিয়ে ?

0
10

ঢাকার বেশিরভাগ বহুতল ভবনে যথাযথ অগ্নি নির্বাপক ব্যবস্থা না থাকায় যেকোনো মুহূর্তে ভয়াবহ দুর্যোগের আশঙ্কায় রয়েছে নগরবাসী।
বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বিভাগ মানুষের নিরাপত্তার দিকটি বিবেচনায় নিয়ে প্রতিটি ভবনে অগ্নি নিরাপত্তার কিছু বিধিমালা নির্ধারণ করে দিলেও তার কোন প্রয়োগ নেই ভবনগুলোতে।
সেটারই প্রতিফলন পাওয়া যায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বিভাগের সাম্প্রতিক জরিপে।
ঢাকার জনবহুল ভবন বিশেষ করে হাসপাতাল, শপিং মল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ দুই হাজার ৬১২টি ভবনের অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা খতিয়ে দেখে।
সেখানে মাত্র ৭৪টি ভবন ছাড়া বাকি সবকটি ভবন, অর্থাৎ দুই হাজার ৫৩৮টি ভবন ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বলে জরিপে উঠে আসে।
ঢাকার অভিজাত এলাকা হিসেবে পরিচিত বনানীতে কেনাকাটার জন্য বেশ জনপ্রিয় বনানী সুপার মার্কেট। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ভবনটিতে অগ্নি নিরাপত্তা ব্যবস্থা বলে প্রায় কিছুই নেই।
প্রতি তলায় একটি করে মাত্র ফায়ার এক্সটিংগুইশার। তাও সেটা একেক তলায় একেক স্থানে রাখা হয়েছে। যেটা অনেক সময়ই চোখেই পড়েনা।
কিন্তুসিঁড়ির জন্য কোন পথ ধরে যেতে হবে সেটা নিয়ে কোথাও কোন নির্দেশনা নেই।বাংলাদেশে একটা সংস্কৃতি আছে যে কোন বড় ধরণের দুর্যোগ না হলে সচেতনতা সৃষ্টি হয়না। ঢাকা শহরের বেশিরভাগ ভবন, বিশেষ করে পুরানো ভবনগুলোর অবস্থা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ।”
“আমরা এই বিষয়গুলোকে আইনের আওতায় এনেছি। মোবাইল কোর্ট করেছি। পেনাল্টিও দিয়েছি। অনেক ভবন কর্তৃপক্ষ আমাদের কাছে সময় চেয়েছে। আমরাও তাদের সময় বেঁধে দিয়ে চাপে রেখেছি। ”
তবে এ ব্যাপারে ভবন মালিকদের পাশাপাশি সাধারণ পর্যায়ে প্রতিটি মানুষকে যার যার নিরাপত্তার ব্যাপারে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন জেনারেল আলী আহমেদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here