সিনহা বিএনপি-জামায়াতের জন্য বই লিখে কোটি টাকায় অস্ট্রেলিয়ায় বাড়ি

32

দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার ও নৈতিক স্থলনের অভিযোগ মাথায় নিয়ে স্বেচ্ছায় নির্বাসিত বাংলাদেশের বিতর্কিত সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা মূলত অস্ট্রেলিয়ার মতো সম্পদশালী রাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় লাভের আশায় মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য দিয়ে বই প্রচার করে নিজের উপর কথিত অত্যাচারের কথা তুলে ধরেছেন।

জানা গেছে, বাংলাদেশে জুড়িশিয়াল ক্যূ করে অগণতান্ত্রিক শক্তিকে ক্ষমতায় বসানোর পাঁয়তারায় ব্যর্থ হওয়ায় দুঃখ নিয়েই অস্ট্রেলিয়ায় রাজনৈতিক আশ্রয় লাভের আশায় বিএনপি-জামায়াতের সরাসরি অর্থায়নে তিনি এই বিতর্কিত বই লিখেছেন। সূত্র বলছে, রাষ্ট্র ও সরকারকে আন্তর্জাতিকভাবে বদনাম করে অনাগত জাতীয় নির্বাচনকে বানচাল করতেই কোটি কোটি টাকা নিয়ে মনগড়া ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে বই লিখে প্রাপ্ত টাকা দিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থানরত সন্তানদের মাধ্যমে বিলাসবহুল বাড়িও কিনেছেন এস কে সিনহা।

সূত্রের খবরে জানা যায়, প্রধান বিচারপতি হওয়ার পর থেকেই এস কে সিনহার ভিতর বাংলাদেশে রাষ্ট্রপতি হওয়ার একটি অদম্য বাসনা লক্ষ্য করা যায়। তার এই স্বপ্ন পূরণ হবে না জেনে তিনি বিচার বিভাগে স্বেচ্ছাচারিতা শুরু করেন। ইচ্ছামত আইন-কানুনের কোনো তোয়াক্কা না করেই তিনি রায় দিয়ে বিচার ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করে তোলেন। মনের বাসনা পূরণ না হওয়ায় রাষ্ট্র ও সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষেপে উঠেন তিনি। বিচার ব্যবস্থাকে স্বাধীন করার নামে নিজ স্বেচ্ছাচারিতা প্রতিষ্ঠা করতেই তিনি বিভিন্ন সময়ে ইচ্ছামত আইনবহির্ভূত রায় দিয়েছেন। সরকারকে ব্যর্থ ও বিচার বিভাগে হস্তক্ষেপকারী হিসেবে তুলে ধরে দেশকে অস্থিতিশীল পরিস্থিতির মুখে ফেলে তৃতীয়পক্ষকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় বসিয়ে রাষ্ট্রপতি হওয়ার জন্য তিনি একটা সময়ে বিএনপি-জামায়াতের সাথেও গোপন আঁতাত করেন বলে জানা যায়। সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্যে বিএনপি-জামায়াতের অনেক এজেন্টের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা ঘুষও নেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে পরিচিত করে তৃতীয়শক্তিকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় বসাতে ব্যর্থ হয়ে অবশেষে দেশ ছেড়ে বিদেশের মাটিতে বাস করার চিন্তা করেন সিনহা।

দেশকে অবহেলা করে, দেশের নামে অপপ্রচার ছড়িয়ে তিনি অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমান। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ায় স্থায়ীভাবে বসবাস করার চিন্তা নিয়ে তিনি রাজনৈতিক আশ্রয়ের বিষয়টি চিন্তা করেই বিতর্কিত বই লিখে নিজের ওপর সরকারের সাজানো অত্যাচারের বিষয়গুলো তুলে ধরেছেন। এতে অস্ট্রেলিয়া সরকার জানবে যে সত্যি সত্যি সিনহার ওপর বাংলাদেশ সরকার অত্যাচার করেছে। এক ঢিলে দুই পাখি মারা হবে। এক দিকে অস্ট্রেলিয়ার মতো স্বপ্নের দেশে বসবাস করা যাবে, পাশাপাশি বিএনপি-জামায়াতের ডোনারদের কোটি কোটি টাকা ব্যাংকে ঢুকবে।

অস্ট্রেলিয়া সূত্রে জানা যায়, দেশটির সিডনি শহরের উইন্সটন হিল এলাকায় একটি বিলাসবহুল বাড়ি কিনে এরই মধ্যে ভাড়া দিয়েছেন এস কে সিনহা। আর আপাতত তিনি তার সন্তানদের বাসায় থাকছেন। কাগজপত্র ঠিক হয়ে গেলে তিনি সিডনিতে স্থায়ীভাবে বসবাস করবেন বলেও সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।
সূত্র: banglanewspost.com