ভুয়া জরিপ প্রচার করে দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে ‘প্রথম আলো’র সম্পাদক

41

দেশের প্রথম সারির কিছু জাতীয় দৈনিক এখনও দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা ‘মোসাদ’- এর এজেন্ট হিসেবে পরিচিত প্রথম আলো ও ডেইলি স্টার পত্রিকা রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এখনো অব্যাহত রেখেছে। একের পর এক ভুয়া জরিপ দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে তারা উঠে পড়ে লেগেছে। যেকোনভাবে গণতন্ত্রকে ধরাশায়ী করে অসাংবিধানিক সরকার ক্ষমতায় এলে তাদের কপাল খুলবে- এমন স্বপ্ন বিভোর হয়ে তারা তা বাস্তবায়ন দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তারই অংশ হিসেবে একের পর এক ভুয়া জরিপ দিয়ে সরকারকে বিব্রত করার চেষ্টা করছেন প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান।
১০ সেপ্টেম্বর প্রথম আলোর সম্পাদক সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে একটি ভুয়া জরিপ তার পত্রিকায় প্রকাশ করেছে। যার মাধ্যমে বর্তমান নির্বাচন কমিশনকে জনগণের কাছে ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।
প্রথম আলোর সেই মনগড়া অনলাইন জরিপে বলা হয়েছে, ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না’ এই মতের পক্ষে ৮৩ ভাগ মানুষ রায় দিয়েছেন। যা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং মিথ্যা তথ্য। কেননা সম্প্রতি সিটি করপোরেশন নির্বাচনগুলোতে নির্বাচন কমিশন তার সুষ্ঠু নির্বাচনের সামর্থ্য দেখাতে সক্ষম হয়েছে।
ওয়াশিংটনভিত্তিক ইন্টারন্যাশনাল রিপাবলিকান ইনস্টিটিউট (আইআরআই) পরিচালিত এক জরিপের ফলাফল পর্যালোচনা করলেই স্পষ্ট হয়ে যায় যে, প্রথম আলোর জরিপের তথ্যটি সম্পূর্ণ ভুয়া বানোয়াট। আইআরআই পরিচালিত জরিপের প্রতিবেদনে যেখানে বলা হয়েছে, দেশের ৬৬ শতাংশ নাগরিক প্রধানমন্ত্রীর প্রতি সমর্থন প্রকাশ করেছে। পাশাপাশি ৬৪ শতাংশ নাগরিক আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। সেখানে প্রথম আলো’র মতো বিতর্কিত একটি পত্রিকার জরিপে জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না মর্মে মিথ্যা প্রোপাগাণ্ডামূলক জরিপ প্রকাশ করার উদ্দেশ্য খুব সহজেই অনুমেয়।
সূত্র বলছে, ষড়যন্ত্র করে প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান দেশের অগ্রগতি রুখে দিতে আগে থেকেই ষড়যন্ত্র করে আসছেন। একইসঙ্গে আন্দোলনের নামে বিএনপি-জামায়াতের নাশকতা-সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও পুড়িয়ে মানুষ হত্যার মতো কাজকেও তিনি অর্থ-সহায়াতার মাধ্যমে উস্কে দিতে তৎপর ভূমিকা পালন করছেন।
এদিকে নির্ভরযোগ্য একটি বিশেষ সূত্রের বরাতে জানা যায়, ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা তারেক রহমানের কাছ থেকে টাকা খেয়ে তাদের বাংলাদেশি এজেন্ট প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানকে সরকার পতনের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট দিয়েছেন। তাই বিপুল অর্থের লোভে মতিউর রহমান দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন। এমনকি বিএনপি ক্ষমতায় এলে নিজের সুবিধা সম্বন্ধে আশ্বস্ত হয়ে তারেকের সঙ্গে কাজ করারও গোপন সন্ধি করেছেন তিনি।
প্রসঙ্গত, ‘মাইনাস টু’ ফর্মুলার ষড়যন্ত্রের সঙ্গে প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান সরাসরি জড়িত ছিলেন। ওয়ান-ইলেভেনের সময় ব্রিগেডিয়ার আমিন ও বারীর চোখের আলো হয়েছিল দুটি পত্রিকা। তার একটি হলো- প্রথম আলো। এবার মোসাদের এজেন্ট প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমানের মিশন- দেশে অস্বাভাবিক পরিস্থিতি সৃষ্টি করে অসাংবিধানিক শক্তিকে ক্ষমতায় নিয়ে আসা। সূত্র : বাংলানিউজপোষ্ট