খালেদার অপরাধ স্বীকার করে নেয়ায় ক্ষুব্ধ বিএনপি

42

নড়াইল কণ্ঠ : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় দীর্ঘ প্রায় সাত মাস ধরে কারাভোগ করছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এদিকে ঘাড়ে ঝুলে আছে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাসহ একাধিক মামলা। এমন পরিস্থিতিতে খালেদা জিয়ার প্রতিটি অপরাধই স্বীকার করে নিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। অপরাধ স্বীকার করে নেয়ার পাশাপাশি তিনি খালেদা জিয়াকে সুস্থ করে বিচারের পরামর্শও দিয়েছেন।
৯ সেপ্টেম্বর রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে মহিলা দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজন শেষে তিনি সরকারকে উদ্দেশ্য করে সাংবাদিকদের বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করে সুস্থ করে বিচার করুন। এতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই।
ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের পক্ষ থেকে আলোচনা এসেছে যে, খন্দকার মোশাররফের বক্তব্যে একটি বিষয় স্পষ্ট হয়ে উঠেছে এবং বিএনপি নেতারা তা জানেও যে, খালেদা জিয়া যেসব মামলায় অভিযুক্ত সেসব দুর্নীতি-সন্ত্রাস জানা সত্ত্বেও বিএনপি তা অস্বীকার করে। সেই সত্যই মোশাররফের কথায় স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। ফলে তারা চায়, খালেদা জিয়া যেহেতু অপরাধ করছে তাই সুস্থ করে তার বিচার করা উচিৎ।
এদিকে বিএনপি নেতারাও খন্দকার মোশাররফের বক্তব্যে ক্ষুব্ধ। এ প্রসঙ্গে বিএনপির একজন সিনিয়র নেতা বলেন, দিন দিন দলের সিনিয়র নেতাদের যে বয়স হচ্ছে তা লক্ষ্য করলেও বোঝা যায়। আমরা যখন খালেদা জিয়াকে নির্দোষ প্রমাণ করতে নানা আন্দোলন কর্মসূচিতে ব্যস্ত সময় পার করছি, তখন তিনি খালেদা জিয়াকে দোষী সাব্যস্ত করে বিচার করার জন্য সরকারকে পরামর্শ দিচ্ছে।
ড. মোশাররফের এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে রাজনৈতিক মহলেও চলছে নানা গুঞ্জন। নানা সময়ে বিভিন্ন ইস্যুতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদসহ দলের অনেক নেতার বক্তব্যের সঙ্গে ড. মোশাররফের বক্তব্যের মিল পাওয়া যাচ্ছে বলে মনে করছেন অনেকে নেতাই। তারা বলছেন, মোশাররফ এখন কার? তিনিও কী ম্যানেজড?