বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস: ৩৫টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেল ৭৬টি প্রকল্প

0
19
Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক: জমকালো পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হলো বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৮। কাকরাইলের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউট, বাংলাদেশ(আইডিইবি)-এর মুক্তিযোদ্ধা হলে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ অধিদফতরের সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব জুয়েনা আজিজ।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৮ এর আহ্বায়ক ও বেসিস পরিচালক দিদারুল আলম বলেন, বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডের লক্ষ্য হলো ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ব্যক্তি, ছাত্র, উদ্যোক্তা, এসএমই এবং বাংলাদেশে পরিচালিত তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানসমূহের অসাধারণ কৃতিত্বের জন্য স্বীকৃতি প্রদান করা।
সভাপতির বক্তব্যে বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডসের মাধ্যমে আমরা সারাদেশের উদ্ভাবনী এবং সম্ভাবনাময় তথ্যপ্রযুক্তি প্রকল্পগুলোকে বাছাই করি এবং উৎসাহ প্রদান করার লক্ষ্যে পুরষ্কার প্রদান করি। বিভিন্ন ক্যাটাগরির প্রকল্পগুলো আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বিস্তৃত সম্ভাবনাগুলোই তুলে ধরছে। মনোনীত প্রকল্পগুলো আন্তর্জাতিক অঙ্গণে প্রতিযোগিতার জন্য মনোনয়ন দেওয়া হয়, যা বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সক্ষমতাকেও তুলে ধরছে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রযাত্রায় বেসিস নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সারাদেশ থেকে ৩৫টি ক্যাটাগরিতে প্রকল্প বাছাই করে সম্মান প্রদান আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি খাত সংশ্লিষ্টদের জন্যে বিরাট সম্মানের বিষয়। পাশাপাশি বিজয়ীরা আইসিটি অস্কারখ্যাত অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছে। যা নিঃসন্দেহে প্রতিযোগীদের উৎসাহিত করবে।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, বেসিসের উদ্যোগে ২য় বারের মতো আয়োজিত বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠিত হলো। বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় এই আইসিটি অ্যাওয়ার্ডসে এবার ৩৫টি ক্যাটাগরিতে ৭৬টি পুরস্কার দেয়া হচ্ছে।
তিনি বলেন, আমি গর্বিত এটা জানতে পেরে যে, বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় দল এবার চীনে অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসে অংশ নিতে যাচ্ছে। আমাদের দেশকে এ প্রতিযোগিতা নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস। আমি বেসিস এর এ উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই ও উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করি।
এবারে বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডসের ৩৫টি ক্যাটগরির মধ্যে বিজয়ীদের তালিকা নিম্নরূপ:

১। বিজনেস সার্ভিসেস-ফিন্যান্স অ্যান্ড একাউন্টিং-চ্যাম্পিয়ন- বিডিট্যাক্স টেকনোলজি লি.
২। বিজনেস সার্ভিসেস-আইসিটি সার্ভিস সল্যুশনস-চ্যাম্পিয়ন-মাইসফট লি.
৩। বিজনেস সার্ভিসেস-মার্কেটিং সল্যুশনস-চ্যাম্পিয়ন-ছবির বাক্স
৪। বিজনেস সার্ভিসেস-প্রোফেশনাল সার্ভিসেস-চ্যাম্পিয়ন-অ্যাডি সফট লি.
৫। বিজনেস সার্ভিসেস-সিকিউরিটি সল্যুশনস-চ্যাম্পিয়ন-রিভ সিস্টেমস লি.
৬। কনজ্যুমার-ব্যাংকিং, ইনস্যুরেন্স, ফিন্যান্স-চ্যাম্পিয়ন-লিডসফট বাংলাদেশ লি.
৭। কনজ্যুমার-ডিজিটাল মার্কেটিং-চ্যাম্পিয়ন-মিসফিট টেকনোলজিস
৮। কনজ্যুমার-গেমস (শিক্ষার্থী)-চ্যাম্পিয়ন-পাবনা ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি
৯। কনজ্যুমার-মিডিয়া অ্যান্ড এন্টারটেইমেন্ট-চ্যাম্পিয়ন-গ্রামীণফোন
১০। কনজ্যুমার-রিয়াল এস্টেট-চ্যাম্পিয়ন- দ্য ডেটাবিজ সফটওয়্যার লি.
১১। কনজ্যুমার-রিটেইল অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন-চ্যাম্পিয়ন- দ্য ডেটাবিজ সফটওয়্যার লি.
১২। কনজ্যুমার-ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি-চ্যাম্পিয়ন-গো যায়ান
১৩। ইনক্লুশন অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিসেস-কমিউনিটি সার্ভিসেস-চ্যাম্পিয়ন-ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেটিক্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইআইডি)
১৪। ইনক্লুশন অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিসেস-এডুকেশন-চ্যাম্পিয়ন-লিডস করপোরেশন লি.
১৫। ইনক্লুশন অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিসেস-হেলথ অ্যান্ড ওয়েলবিঙ্গ-চ্যাম্পিয়ন-অ্যারোটেক
১৬। ইনক্লুশন অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিসেস-ইনডেজিনিয়াস সার্ভিসেস-চ্যাম্পিয়ন-সফটবিডি লি.
১৭। ইনক্লুশন অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিসেস-রিজিওনাল অ্যান্ড রিমোট সার্ভিসেস-চ্যাম্পিয়ন-র‌্যাডিসন ডিজিটাল টেকনোলজিস লিমিটেড
১৮। ইনক্লুশন অ্যান্ড কমিউনিটি সার্ভিসেস-সাস্টেইলিবিটি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট-চ্যাম্পিয়ন-মি সোল শেয়ার লি.
১৯। ইন্ডাস্ট্রিয়াল-অ্যাগ্রিকালচার-চ্যাম্পিয়ন-এসিআই অ্যাগ্রিবিজনেস
২০। ইন্ডাস্ট্রিয়াল-ম্যানুফেকচারিং-চ্যাম্পিয়ন-আইডিয়া থ্রিডি সল্যুশনস
২১। ইন্ডাস্ট্রিয়াল-এনার্জি অ্যান্ড ইউটিলিটিস-চ্যাম্পিয়ন-ইজিসেন্স
২২। ইন্ডাস্ট্রিয়াল-সাপ্লাইচেইন লজিস্টিক্স-চ্যাম্পিয়ন-নিউজেন টেকনোলজিস লি.
২৩। ইন্ডাস্ট্রিয়াল-ট্রান্সপোর্ট-চ্যাম্পিয়ন-যান্ত্রিক লি.
২৪। পাবলিক সেক্টর অ্যান্ড গভার্নমেন্ট-ডিজিটাল গভার্নমেন্ট -চ্যাম্পিয়ন-টেক টেরেইন আইটি
২৫। পাবলিক সেক্টর অ্যান্ড গভার্নমেন্ট-গভার্নমেন্ট অ্যান্ড সিটিজেন সার্ভিস-চ্যাম্পিয়ন-মাইকল্যাব
২৬। স্টুডেন্ট-জুনিয়র ক্যাটাগরি-চ্যাম্পিয়ন-বগুড়া জিলা স্কুল
২৭। স্টুডেন্ট-সিনিয়র ক্যাটাগরি-চ্যাম্পিয়ন-প্রিজমিক
২৮। স্টুডেন্ট-টারশিয়ারি ক্যাটাগরি-চ্যাম্পিয়ন-ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সেস
২৯। টেকনোলজি-বিগ ডেটা-চ্যাম্পিয়ন-প্রাইডসিস আইটি
৩০। টেকনোলজি-ইন্টারনেট অব থিংস-চ্যাম্পিয়ন-ডেটাসফট সিস্টেমস বাংলাদেশ লি.
৩১। ক্রস ক্যাটাগরি-রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট-চ্যাম্পিয়ন-রেইজ আইটি সল্যুশনস লি.
৩২। ক্রস ক্যাটাগরি-স্টার্টআপ-চ্যাম্পিয়ন-সিন্দাবাদ ডট কম
৩৩। ইন্ডাস্ট্রিয়াল-ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন-চ্যাম্পিয়ন-নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি
এদের মধ্য থেকে ৩২টি দলকে চীনের গুয়াংঝুতে অনুষ্ঠিতব্য অ্যাপিকটা অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসের জন্য মনোনীত করা হয়েছে। এবারে বাংলাদেশ থেকে ৭০ সদস্যের প্রতিনিধিদল অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডস ২০১৮তে অংশ নিচ্ছে।
এবারে ৩৫টি ক্যাটাগরিতে ৭৬ জন প্রতিযোগীদের সম্মানিত করার পাশাপাশি ২৯ জন বিচারক, আয়োজক কমিটির সদস্যদের সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। অনুষ্ঠানের শেষে বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটির সমাপ্তির ঘোষণা করেন। বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৮ এর পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড-ইউসিবিএল।
বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডসের লক্ষ্যণীয় দিকসমূহ-
১। ৬৫০টির বেশি প্রকল্প জমা পড়েছে
২।৩৫টি ক্যাটাগরিতে ৭৬টি পুরস্কার প্রদান
৩। ৩২টি প্রকল্পকে চীনের অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসের জন্যে মনোনয়ন প্রদান
৪। ৯-১৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসে বাংলাদেশে থেকে যাচ্ছে ৭০ সদস্যের প্রতিনিধিদল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here