কূটনীতিকদের সমর্থন পেতে এবারও ব্যর্থ বিএনপি!

50

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক: আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনীতির মাঠে নিজেদের সুবিধাজনক অবস্থান তৈরিতে নানা কৌশল অবলম্বন অব্যাহত রেখেছে বিএনপি। এর অংশ হিসেবে দফায় দফায় বিদেশী কূটনীতিকদের সঙ্গে বৈঠকও করেছে দলটির নেতারা। কিন্তু কোনো কৌশলেই সুবিধা করতে পারছে না তারা। জানা গেছে, এ দফায় নতুন করে কূটনীতিকদের সঙ্গে আলোচনায় বিশেষ কোনো অগ্রগতি আশা করতে পারছে না বিএনপি। ফলে কূটনীতিকদের সমর্থন পেতে এবারও ব্যর্থ বিএনপি।
প্রসঙ্গত, দেশের চলমান রজনৈতিক ইস্যু ও বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মামলা নিয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত বিদেশি কূটনীতিকদের অবহিত করতে নতুন করে ৪ সেপ্টেম্বর বৈঠকে বসে বিএনপি। বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, স্পেন, তুরস্ক, রাশিয়া, পাকিস্তান, সৌদি আরব, সুইডেন, জাপান, ফিলিস্তিন, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ ২৫টি দেশ ও সংস্থার প্রতিনিধি ও কূটনীতিকরা অংশ নিলেও দু’একটি দেশ বিএনপিকে সুবিধা করে দেয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করলেও বাকি দেশগুলোর সমর্থন পায়নি দলটি। বরং কিছু বিপাকে পড়তে হয়েছে দলের নেতাদের।
বৈঠকে বিএনপি নেতারা তাদের বর্তমান রাজনৈতিক বিভিন্ন ইসু্য এবং বিএনপি নেতাদের ধরাশায়ী অবস্থা থেকে উত্তরণের পথ নিয়ে আলোচনা করলেও কোনো কূটনীতিকদের কাছে বিশেষ কোনো সামাধান পায়নি তারা। গ্রেনেড হামলা, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টসহ একাধিক দুর্নীতি মামলা, ২০১৪ সালের নির্বাচনে বিএনপি্র জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতি নিয়ে নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে। বারবার উেঠে এসেছে জামায়াতে ইসলামীর মতো একটি দেশবিরোধী সংগঠনের সঙ্গে বিএনপি সম্পর্ক প্রসঙ্গ। এতে একদিকে যেমন বিএনপি নেতারা বিব্রত হয়েছে, তেমনি প্রশ্নগুলোর পরিপূরক উত্তরও দিতে পারেনি বিএনপির কোনো নেতাই।
সূত্র বলছে, ওই বৈঠকে কূটনীতিকরা নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করে বলেছেন- একটি দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার মতো এখতিয়ার একজন বিদেশি কূটনীতিক কখনই রাখে না। এটা নিয়মবহির্ভূত। কিন্তু একটি সম্ভাব্য সমাধান সম্বন্ধে ধারণা দিতে পারে তারা। কিন্তু বিএনপির বিগত সময়ের কর্মকাণ্ড পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, তারা সে সুযোগ বহু আগেই হারিয়েছে। অন্যদিকে বর্তমান সরকারের আমলে দেশের উন্নয়নের বিষয়ে দেশের জনগণ যেভাবে অবগত, তাতে বিএনপি গণতান্ত্রিক পথের বাইরে কিছু করলে দলের ভাবমূর্তি যতটুকু আছে তাও নি:শেষ হয়ে যাবে। সুুতরাং সাংবিধানিক উপায়ের বাইরে না গিয়ে নির্বাচনে অংশ নেয়া ছাড়া আর কোনো পথ নেই বিএনিপির।
৪ ঘণ্টার বৈঠক শেষে যদিও তথ্য-উপাত্ত সংবলিত একটি লিখিত প্রতিবেদন কূটনীতিকদের হাতে তুলে দিয়েছে কিন্তু তাতে কোনো বিশেষ ফল হবে না বলেই নিশ্চিত বিএনপি সংশ্লিষ্টরা। বিএনপি নেতাদের মধ্যে বৈঠকে অংশ নেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ব্যারিস্টার নওশাদ জমির, নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল ও জেবা খান প্রমুখ।