ড. কামাল তারেক রহমানের প্রলোভনে যুক্তফ্রন্টে যাচ্ছেন না

35

নড়াইল কণ্ঠ : লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানের প্রলোভনে বিকল্পধারার সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর যুক্তফ্রন্টে যোগ দিচ্ছেন না গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। বি. চৌধুরীর সাথে মতপার্থক্যের জের ধরে যুক্তফ্রন্টে যোগ না দেওয়ার গুঞ্জন ছড়ালেও মূলত বিএনপি ক্ষমতায় আসলে তাকে রাষ্ট্রপতি বানানো হবে- তারেক রহমানের এমন প্রলোভনে পড়ে যুক্তফ্রন্টে যোগ দিচ্ছেন না ড. কামাল।
সূত্র বলছে, বর্তমান সরকারের উপর প্রতিশোধ নিতে এবং শেষ বয়সে রাষ্ট্রপ্রধান হওয়ার লুকায়িত ইচ্ছাপূরণ করতেই তারেক রহমানের পাতানো ফাঁদে পা দিয়েছেন ড. কামাল হোসেন। কোরবানি ঈদের আগে থেকেই জাতীয় ঐক্য গঠনের লক্ষ্যে যুক্তফ্রন্ট গঠন করে আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলেন ড. কামাল। সেই লক্ষ্যে ছোট ছোট রাজনৈতিক দলগুলো দুয়ারে দুয়ারে কড়া নাড়তে দেখা গিয়েছিল বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদকে। ছোট দলগুলোকে একত্রিত করে রাজনীতির নামে আওয়ামী লীগ, বিএনপি এমনকি জাতীয় পার্টির সাথে দরকষাকষি করে পয়সা বাগিয়ে নেওয়া এবং আসন বিন্যাসের নামে বড় দলগুলোর উপর ছড়ি ঘুরানোর পরিকল্পনা ছিল বি. চৌধুরী, ড. কামাল এবং ডাঃ জাফরুল্লাহ’র। বি. চৌধুরী সরকারপন্থী ছোট ছোট দলগুলোকে নিয়ে সরকারের সাথে আঁতাত করার চেষ্টা করছেন। অন্যদিকে ড. কামাল হোসেন জাতীয় পার্টি ছাড়াও একাধিক ইসলামী দলসহ অবহেলিত, উপেক্ষিতদের সঙ্গে নিয়ে আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে ঠেকানোর পরিকল্পনা করছেন। এক হয়ে জাতীয় স্বার্থ রক্ষার্থে কাজ করার কথা বললেও বি. চৌধুরী এবং ড. কামাল হোসেন গোপনে গোপনে ব্যক্তি স্বার্থ উদ্ধারে তৎপরতা চালাচ্ছেন। শেষ সময়ে এসে বি. চৌধুরীর গোপন পরিকল্পনা জানতে পেরে যুক্তফ্রন্টে যোগ না দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ড. কামাল। রাজনীতির অঙ্গনে গুঞ্জন ছড়িয়েছে যে, আদর্শগত পার্থক্যের কারণে ড. কামাল যুক্তফ্রন্ট থেকে সরে এসেছেন। কিন্তু ভেতরের খবর হল- তারেক রহমানের প্রলোভনে পড়ে মূলত যুক্তফ্রন্টে যোগ দিচ্ছেন না তিনি।
গোপন সূত্র বলছে, খালেদা জিয়ার মুক্তি বিষয়ে সুপরামর্শ দিলে এবং যুক্তফ্রন্টে যোগদান না করলে আগামী নির্বাচনে জয়ী হয়ে বিএনপি ক্ষমতায় আসলে ড. কামালকে রাষ্ট্রপতি বানানোর লোভ দেখিয়েছেন তারেক। সারা জীবন রাজনীতি করে ফলত শূন্য হাতে বেড়ানো ড. কামালকে বি. চৌধুরীর কাছ থেকে দূরে থাকারও পরামর্শও দিয়েছেন তারেক। যদি ড. কামাল তারেক রহমানের আদেশ মানেন এবং খালেদা জিয়ার মুক্তিতে সাহায্য করেন তাহলে শেষ বয়সে তাকে রাষ্ট্রপতি বানিয়ে জীবন ধন্য করার লোভ দেখিয়েছেন তারেক। সূত্র বলছে, তারেক রহমানের দেখানো স্বপ্নে বিভোর হয়ে আকাশ-কুসুম ভাবনায় মত্ত হয়ে বি. চৌধুরীর আবেদন দু’পায়ে ঠেলে দিয়েছেন ড. কামাল।
ড. কামালের মতো জ্ঞানী এবং বয়োজ্যেষ্ঠ নেতার শেষ বয়সে লোভে পড়ে বুদ্ধি-বিবেকহীন বনে যাওয়াটা রাজনৈতিক দেউলিয়াপনার লক্ষণ বলে মন্তব্য করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তারেক রহমানের মতো দুর্নীতিবাজ এবং পলাতক নেতার খপ্পরে পড়ে শেষ পর্যন্ত জাতীয় বেইমান হবেন ড. কামাল। ড. কামালের শেষ সময়ে ফাঁদে পা না দেওয়ার কারণে রাজনৈতিক এবং অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন বি. চৌধুরী এবং ডাঃ জাফরুল্লাহ বলে আশঙ্কা করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।