তোমরা অবশ্যই ঘরে ফিরে যাবে, লেখাপড়া করবে, বাবা-মায়ের কাছে থাকবে : ইলিয়াস কাঞ্চন

0
18
Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

সড়ক দুর্ঘটনারোধে কার্যকর পদক্ষেপ ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে শুক্রবার (৩ আগস্ট) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনের আয়োজন করে ইলিয়াস কাঞ্চনের সংগঠন ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ (নিসচা)। সকাল সোয়া ১১টার দিকে ইলিয়াস কাঞ্চন আনুষ্ঠানিকভাবে মানববন্ধন শুরু করেন। সম্প্রতি নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পায়েলের মৃত্যু এবং ২৯ জুলাই বিমানবন্দর সড়কের কুর্মিটোলা বাসস্ট্যান্ডে বাস চাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার প্রতিবাদে এ মানববন্ধনের ডাক দেন নিসচার প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। এছাড়া সড়ক দুর্ঘটনার বিষয়ে দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের দায়িত্বহীন বক্তব্যেরও তীব্র প্রতিবাদ জানান তিনি।
নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) আন্দোলনের চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন বলেছেন, বর্তমান আন্দোলনে সাময়িক অসুবিধা হলেও আপনারা অস্থির হবেন না। ভালো কিছু পাওয়ার জন্য অনেক সময় কিছু কষ্ট স্বীকার করতে হয়।
আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, তোমরা সাবধানে বুদ্ধি দিয়ে আন্দোলন করে যাবে। তোমাদের কাছে আমার আহবান তোমরা একটি গাড়ীও ভাংচুর করবেনা। তোমরা একটি গাড়ী ভাংচুর করলে সুযোগ সন্ধানীরা ১০/২০টা ভাংচুর করবে।’ সুযোগ সন্ধানীরা যেন আন্দোলন বানচাল করতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। সুশিংখলভাবে নিয়মের ভেতরে থেকে কাজ করে যাও আমি আছি তোমাদের সাথে। এবং শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার জন্য দেশবাসীর প্রতিও আহ্বান জানান তিনি।
ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘সব অধিদপ্তর যদি তাদের কর্মকান্ডগুলো শুরু করে দেয় তাহলে আমার সন্তানদের উদ্দেশ্যে বলবো তোমরা অবশ্যই ঘরে ফিরে যাবে, লেখাপড়া করবে। বাবা-মায়ের কাছে থাকবে। প্রয়োজনে আবারও যদি কোনো অসুবিধা হয়, এই ৪৮ ঘন্টার মদ্ধে দাবি যদি না মেনে নেয় তখন অবশ্যই আমরা তোমাদের সঙ্গে থেকে আবার রাজপথে নামবো।’
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে একাত্মাতা প্রকাশ করলেও ইলিয়াস কাঞ্চন রাজপথে নেই কেন এমন প্রশ্নের পরিপেক্ষিতে মানববন্ধনের বক্তব্যে তিনি বলেন, প্রত্যেকের একটা নিজস্ব কৌশল আছে। সেই টেকনিকে কাজ করতে হয়। অতীতের কিছু ঘটনা মনে রেখে পদক্ষেপ নিতে হয়।’ ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘২৫ বছর ধরে কাজ করে যাচ্ছি। আমি যা করি নিজের বিবেগ বুদ্ধি দিয়ে বিবেচনা করেই করি। আমি যদি বাচ্চাদের সঙ্গে প্রথম দিন থেকে রাস্তায় থাকতাম, তবে এখানে কিছু হলে টোটাল দোষটা কিন্তু আমার ওপর আসত। আমি যদি মাঠে এদের পাশে থাকতাম তবে বলা হত গাড়ি ভাঙচুরের জন্য এই লোকটিই উসকে দিয়েছে।’
মানববন্ধনে তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেন, সড়ককে নিরাপদ করার লক্ষে এর আগে আপনি ৬নির্দেশনা দিয়েছেন এজন্য আপনাকে ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু আপনি যে ঘোষণা দিয়েছেন তার কার্যক্রম কিন্তু এখনো শুরু হয়নি। ইলিয়াস কাঞ্চন প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বাস্তবায়ন এর উদ্যোগ দ্রুত নেয়ার দাবি জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here