সিসিক নির্বাচনে জামায়াতের ধাক্কা, বিএনপি সংসদ নির্বাচন নিয়ে শঙ্কায়

0
20
Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জামায়াতে ইসলামীর মেয়র প্রার্থীকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর জন্য ব্যর্থ হয়েছে বিএনপির সব চেষ্টা। বহু চেষ্টার পর এমনকি তারেক রহমানের অনুরোধেও জামায়াতের প্রার্থী তার মনোনয়ন প্রত্যাহার করেনি। এই সিটিতে বিএনপির তরফেই এখন দুজন প্রার্থী। ফলে বিএনপি ও জামায়াতের মিলে ৩ জন প্রার্থী থাকায় সিলেট সিটিতে ভোটের হিসাব-নিকাশ পাল্টে গেছে। ফলে সিটি নির্বাচনে জয় তো দূরের কথা জাতীয় নির্বাচন নিয়ে আতঙ্কে পড়েছে বিএনপি।
রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, সিটি করপোরেশন নির্বাচনে শুধু ভোটের হিসাব নয়, জামায়াত-বিএনপির এই দ্বন্দ্ব জাতীয় রাজনীতিতে প্রভাব ফেলবে। আর তাতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বিএনপি।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক বিএনপির দুজন নেতা বলছেন, এটা সম্ভবত বিএনপিকে জামায়াত একটা ধাক্কা দিলো। তাদের মতে, দীর্ঘদিন থেকে জামায়াতের সঙ্গে কিছুটা শিথিল সম্পর্ক চলছিল বিএনপির। কিন্তু সিলেটের ঘটনায় জামায়াতের ছাড় না দেওয়ার ঘটনাটি জাতীয় নির্বাচনে দলটির দর-কষাকষির স্পষ্ট ইঙ্গিত বলে মনে করা হচ্ছে। তা ছাড়া দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর থেকে বিএনপির সঙ্গে জামায়াতের যে টানাপোড়েন শুরু হয়েছিল, সিলেট নির্বাচনে তা প্রকাশ্যে চলে এলো। স্থানীয় নির্বাচন হলেও জামায়াতে ইসলামীর এ অবস্থানে বিস্মিত হয়েছেন বিএনপির অনেক নেতা।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির একজন কেন্দ্রীয় নেতা বলেন, অবস্থা মোটেই সুবিধার মনে হচ্ছে না। নেত্রী জেলে যাওয়ার পর থেকেই শরিক দলগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক ক্রমেই কমছে। যা ধীরে ধীরে ভয়াবহতায় রূপ নিচ্ছে। তারেক রহমান দলের দায়িত্ব নিয়ে ভুলতে বসেছেন বিএনপি একটি শরিক নির্ভর দল। সিটি করপোরেশন নির্বাচনগুলিতে জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির যে দূরত্ব সৃষ্টি হলো তা নিঃসন্দেহে জাতীয় নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে। এই সহজ সমীকরণ না বুঝলে রাজনীতির মাঠে একটা দল কিভাবে টিকে থাকে?

সিলেটে বিএনপির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্যসচিব হয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলছেন, ‘আমরা চেষ্টার কোনো ত্রুটি করিনি। জোটের বৈঠকে জামায়াতের কেউ আসেননি। আবার কেন্দ্রীয় বৈঠকে জামায়াত ছিল। সেখানে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয় যে তিন সিটিতেই বিএনপির মনোনীত প্রার্থীই জোটের প্রার্থী। কিন্তু সিলেট জামায়াত তা মানছে না।’

সিলেট জামায়াতের এক নেতা বলেন, কেবল স্থানীয় সিদ্ধান্তে তারা নির্বাচন করছেন তা নয়। কেন্দ্রও বিষয়টি অবগত। তিনি বলেন, জামায়াতে দীর্ঘদিন কোনো বড় নির্বাচনে নেই। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় দলটি সামনে আসছে। তাঁদের ভোটের বিষয়টিও এখন সামনে আসবে। রাজনীতিতে জামায়াতের অবস্থান যে কম নয়, সেটি দেখানোও একটা উদ্দেশ্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here