সবাই মুক্ত, অভিযান সমাপ্ত

44

থাইল্যান্ডের গুহা থেকে সবাইকে নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। থাই নেভির প্রধান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। শেষ যে চারজন ডুবুরি গুহার ভেতরে ছিলেন, তারাও নিরাপদে বের হয়ে এসেছেন। এর মাধ্যমে শ্বাসরুদ্ধকর এ উদ্ধার অভিযানটি সম্পূর্ণ হলো।
১০ জুলাই মঙ্গলবার তৃতীয় দিনের অভিযানে ৫ জনকে গুহা থেকে বের করা হয়। এর আগে ৮ জুলাই রবিবার ও ৯ জুলাই সোমবার দুই দফা অভিযানে চারজন করে মোট ৮ কিশোরকে গুহা থেকে বের করে আনা হয়।
মঙ্গলবার বাংলাদেশ সময় ৯টা ৮ মিনিটে (স্থানীয় সময় সকাল ১০টা ৮ মিনিটে) তৃতীয় দফা উদ্ধার অভিযান শুরু করে থাই নেভি কর্তৃপক্ষ। সবাইকে বাইরে বের করে আনার চেষ্টা করা হবে বলে সকালেই জানিয়েছিলেন উদ্ধার অভিযানের প্রধান কমান্ডার নারোংসাক ওসোটানাকোর্ন।
১৩ জন উচ্চ প্রশিক্ষিত বিদেশি ও পাঁচ থাই নেভি উদ্ধারকারী ডুবুরি কিশোরদের গুহা থেকে বের করার মূল অভিযানে অংশ নেন। প্রথম দুই দিন ১৮ জন উদ্ধারকাজে অংশ নিলেও শেষের দিন ১৯ ডুবুরি অংশ নেয়। আর পুরো অভিযানে অংশ নেন ৯০ জন ডুবুরি। এদের মধ্যে ৪০ জন থাইল্যান্ডের। বাকি ৫০ জন বিভিন্ন দেশের।
লাইভ আপডেট (বাংলাদেশ সময়)
মঙ্গলবার ৯:২০ মিনিট- গুহার ভেতরে শেষ যে চারজন ডুবুরি ছিল, তারাও নিরাপদে বের হয়ে এসেছেন। এর মাধ্যমে শ্বাসরুদ্ধকর এ উদ্ধার অভিযানটি সম্পূর্ণ হলো।
মঙ্গলবার ৭:৩০ মিনিট- এক বিবৃতিতে ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা বলেছে, ‘১২ কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে উদ্ধারের খবরটি অত্যন্ত আনন্দের।’
মঙ্গলবার ৬:৪৯ মিনিট- কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচের উদ্ধারে স্বস্তি প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ ফুটবল ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। পরবর্তী মৌসুমে ক্লাবটি এসব ফুটবলার ও তাদের কোচকে নিজেদের মাঠ ওল্ড ট্রাফোর্ডে আমন্ত্রণ জানিয়েছে।
মঙ্গলবার ৬:৪৮ মিনিট- এক টুইটে সফল উদ্ধার অভিযানের জন্য থাই নেভি সিলকে ধন্যবাদ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
মঙ্গলবার ৬:৩৬ মিনিট- থাই নেভি সিল তাদের ফেসবুক পেজে ‘Hooyah’ লিখে পোস্ট করেছে। বিজয় বা আনন্দ প্রকাশে এটি থাই নেভি সিলের একটি সাংকেতিক শব্দ।
মঙ্গলবার ৬: ২৮ মিনিট- সফল উদ্ধার অভিযানে আনন্দিত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম টুইটারে তিনি লিখেন, ‘থাইল্যান্ডের গুহায় আটকে পড়াদের উদ্ধার অভিযানটি আনন্দের। সারা বিশ্ব দেখেছে এবং অভিযানে যুক্তদের স্যালুট জানিয়েছে।’
জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল সবাইকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রযুক্তি উদ্যোক্তা এলোন মাস্কও।
মঙ্গলবার ৬: ২৫ মিনিট- উদ্ধার কিশোর ফুটবলার ও তাদের কোচকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে, যেখানে অন্য কিশোরদের চিকিৎসা চলছে।
মঙ্গলবার ৬:১০ মিনিট- উদ্ধার অভিযান প্রায় শেষ মুহূর্তে। উদ্ধারকারী দল এখন অপেক্ষায় রয়েছে একজন চিকিৎসকসহ চার ডুবুরির জন্য, যারা গুহার ভেতরে আটকা পড়া কিশোরদের খোঁজ পাওয়ার পর থেকেই সেখানে অবস্থা করছিল।
মঙ্গলবার বিকাল ৫:৫৫ মিনিট- বাকি দুজনকেও গুহার ভেতর থেকে বের করা হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে সবাইকেই উদ্ধার করা হলো। প্রত্যেককেই বের করে আনা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন থাই নেভি সিলের ইনচার্জ।
থাই নেভি সিলের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে এক স্ট্যাটাসে বলা হয়েছে, ১২ ফুটবলার ও তাদের কোচকে গুহা থেকে বের করা হয়েছে। তারা প্রত্যেকেই নিরাপদে আছে।
মঙ্গলবার বিকাল ৪:৩৫ মিনিট- ১১তম কিশোরকে উদ্ধার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করে রয়টার্স। ভেতরে রয়েছে আরও দুজন।
মঙ্গলবার বেলা ৩:৩৮ মিনিট- দশম কিশোরকে উদ্ধার করা হয়েছে। আর মাত্র ৩ জন বাকি আছে।
মঙ্গলবার বেলা ৩:৩৪ মিনিট- প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুত চান-ওচা বিশ্বখ্যাত প্রযুক্তি উদ্যোক্তা এলোন মাস্ককে তার সাহায্যের প্রস্তাবের জন্য ধন্যবাদ দিয়েছেন। এলোন মাস্ক থাই কিশোরদের উদ্ধারে তুলনামূলক ছোট একটি সাবমেরিন তৈরি করেন ও সেটি পরীক্ষা করে দেখেন। এলান মাস্ক নিজে ও তার প্রতিষ্ঠান থেকে একদল কর্মী এ উদ্ধার অভিযানস্থলে যান।
মঙ্গলবার দুপুর ৩:১৮ মিনিট- নবম কিশোরকে উদ্ধার করা হয়েছে। থাই নেভি সিল সেটি নিশ্চিত করেছে।