নড়াইলে ৯৩ হাজার শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস খাওয়ানো হবে

59

নড়াইল কণ্ঠ : আগামি ১৪ জুলাই শনিবার নড়াইলের ৩টি উপজেলায় জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন শুরু হবে। এ ক্যাম্পেইনে নড়াইলের তিন উপজেলায় ৯৩ হাজার ২২২টি শিশুকে প্রথম রাউন্ডে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।
সোমবার (৯ জুলাই) বিকালে ৩টায় নড়াইল জেলা সিভিল সার্জন হল রুমে আয়োজিত জাতীয় ভিটামিন ‘এ ‘ প্লাস ক্যাম্পেইন (১ম রাউন্ড) বিষয়ে সাংবাদিক ওরিয়েন্টশন কর্মশালায় সিভিল সার্জন ডা: আসাদ-উজ-জামান মন্সী এসব তথ্য জানান। তিনি আরো জানান, ১৪ জুলাই শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় জেলা পর্যায় ভিটামিন ‘এ ‘ প্লাস ক্যাম্পেইন (১ম রাউন্ড) আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউয়নের নাকশী সিসি হতে।
কর্মশালায় সিভিল সার্জন ডা: আসাদ-উজ-জামান মন্সীর সভাপতিত্বে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইনের উপর মুলতথ্য উপস্থাপনা করেন নড়াইল সদরের ইউএইচএফপিও ডা: শামীম রেজা।
নড়াইলের সিভিল সার্জন ডা: আসাদ-উজ-জামান মন্সী বলেন, ‘ভিটামিন এ ক্যাপসুল অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব নির্মূল এবং অপুষ্টিজনিত শিশুমৃত্যু প্রতিরোধ করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ’তিনি আরো বলেন, এ কর্মসূচি সফল করার জন্য উপস্থিত সকল প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রোনিক মিডিয়ার বড় ভুমিকা রয়েছে, সুতরাং মিডিয়ার মাধ্যমে সকল জনগণকে অবহিত ও সচেতন করা দরকার।
কর্মশালায় আরো জানানো হয়, জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন এর মাধ্যমে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সি শিশুদের একটি নীল রঙ্গের ভিটামিন এক্যাপসুল এবং ১২ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী শিশুদের একটি করে লাল রঙ্গের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এ জেলায় ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী ১০ হাজার ৮৩৪জন শিশুকে নীল রঙ্গের ভিটামিন এ ক্যাপসুল এবং ১২ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী ৮২ হাজার ৩৮৮ শিশুকে লাল রঙ্গের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। মোট ১ হাজার ৩৯টি কেন্দ্রে এই দুই প্রকারের ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।
এ কর্মসূচি সফল করতে দুই হাজার ৭৮ জন স্বেচ্ছাসেবক, ৪৩০জন কর্মী এবং ১৭৯ জন সুপারভাইজার সকাল ৮টা থেকে বেলা ৪টা পর্যন্ত জেলার তিন উপজেলার ৩৯টি ইউনিয়নের এবং দুটি পৌরসভার বিভিন্ন কেন্দ্রে সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবেন।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেডিক্যাল অফিসার ডা. অলোক বাগচী, জেলা ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট হারাধন মজুমদার, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা মো. ইউনুস আলী, নড়াইল প্রেসক্লাবের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. আলমগীর সিদ্দিকীসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রোনিক মিডিয়ার কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।