প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের জন্য ৬ উপদেশ বাণী

40

ছাত্রলীগের কমিটিতে পদ প্রত্যাশী ছাত্রনেতাদের উদ্দেশ্যে উপদেশ দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রলীগের নেতাদের সংগঠনের নেতা নির্বাচন প্রক্রিয়া এবং বর্তমান নেতৃত্বের দুর্বলতার বিষয়গুলো আমলে নিয়ে বেশিকিছু উপদেশ দিয়েছেন। বুধবার (৪ জুলাই) গণভবনে ছাত্রলীগের আসন্ন কমিটিতে পদপ্রত্যাশী ছাত্রনেতাদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর সেসব উপদেশকে একজন আদর্শবান নেতা হওয়ার প্রধান শর্ত বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।
প্রধানমন্ত্রীর উক্ত উপদেশ গুলো বাংলা নিউজ পোস্টের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো :

১. ছাত্রনেতাদের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, শুধু টাকা দিয়ে রাজনীতি হয়না, রাজনীতি করতে হলে মানুষের মন জয় করতে হবে।

২. রাজনীতির মাঠে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় নিজে উপরে ওঠার জন্য নিজ দলের অন্য নেতাকে হেয় করা হয়। যা মোটেও কাম্য নয় বলে মনে করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাজনীতি একা করা যায় না, সবাইকে নিয়ে করতে হয়।

৩. দলে অবস্থিত কর্মীদের প্রায় সময় সিনিয়র নেতাদের দ্বারা হেয় প্রতিপন্নের শিকার হতে হয়। যা বর্জন করার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন: কর্মীদের তুচ্ছ বা অবজ্ঞা করে নয়, তাদের সম্মান করে নেতা হতে হয়। তারা যেন নেতার জন্য সবকিছু ত্যাগ করতে পারে।

৪. অনেক ক্ষেত্রে অন্যনেতাদের বাদ দেবার প্রবণতা দলের মধ্যে দেখা যায়। সেক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কাউকে বাদ দিলে শক্তি ক্ষয় হয় এবং তাকে সঙ্গে নিলে শক্তি বাড়বে।

৫. অনেক ক্ষেত্রে আবার দেখা যায়, দলের কোনো সিদ্ধান্ত সকলে মেনে নিতে না পেরে উল্টো বিরোধিতা করে। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কেউ বিরোধিতা করলে, আগে বুঝতে হবে কেনো সে বিরোধিতা করছে। বিরোধিতার কারণ না জেনে পাল্টা ব্যবস্থা নেয়া বোকামি।

৬. ছাত্রলীগের নেতা হবার পূর্বশর্ত মনে করিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নেতা হতে গেলে আগে অন্যের কষ্ট বুঝতে হবে।

এছাড়া আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ছাত্রলীগকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।