নড়াইলে এক গৃহবধু গণধর্ষণের স্বীকার

33

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলে এক গৃহবধু গণধর্ষণের শিকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষিতাকে চিকিৎসার জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।গত সোমবার (২ জুলাই) বিকালে লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল ইউনিয়নের মাইগ্রামের জনৈক ব্যক্তির স্ত্রী তিন সন্তানের জননী নিজ বাগান থেকে কলার কাঁধি কাটার প্রতিবাদ করায় সে এ গণধর্ষণের স্বীকার হয়।
পুলিশ, এলাকাবাসী ও ভূক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা জানান, গত সোমবার (২ জুলাই) বিকালে লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল ইউনিয়নের মাইগ্রামের জনৈক ব্যক্তির স্ত্রী তিন সন্তানের জননী তার বাড়ির পাশের মৎস্য ঘেরের পাড়ের সজ্বীখেতে পুঁইশাক তুলতে যান।ঘেরের পাশেই তাদের একটি কলাবাগান রয়েছে।
ধর্ষণের শিকার ওই নারী জানান, কলাবাগানে এক কাঁধি কলা কাটা দেখে তিনি সেখানে এগিয়ে যান। এ সময় কলা কে কেটেছে জানতে চেয়ে চিৎকার দেয়ার চেষ্টা করলে কলাবাগান থেকে তেলকাড়া গ্রামের সুলতান মোল্যার ছেলে মিলন (৩০) এগিয়ে এসে সে কলা কেটেছে বলে জানান। এর পরপরই আরো ৩/৪ জন এগিয়ে এসে তার মুখ চেপে ধরে। এক পর্যায়ে কলাবাগানেই নারীটিকে জোরপূর্বক তারা পালাক্রমে ধর্ষণ করে চলে যায়।
ঘটনার পর বিষয়টি তার স্বামীকে মোবাইলে জানানোর পর তার স্বামী প্রতিবেশীদের জানান। পরে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে এবং নড়াইল সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। ধর্ষণের শিকার ওই নারীর স্বামী ঢাকায় একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকুরী করেন। তার তিনটি সন্তান রয়েছে।
এ ব্যাপারে লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রবীর কুমার বিশ্বাস জানান, খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ধর্ষিতার ডাক্তারী পরীক্ষা নড়াইল সদর হাপসাতালে সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে তিনি নড়াইল সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।
জানা গেছে, ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।