গোল-উৎসব করে শেষ ষোলোতে বেলজিয়াম

0
26
Tuli-Art Buy Best Hosting In chif Rate In Bd

শক্তি-সামর্থ্যে অনেকটা পিছিয়ে থাকলেও বেলজিয়ানদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ভালোই লড়াই করেছে তিউনিসিয়া। কিন্তু শেষ পর্যন্ত লুকাকু-হ্যাজার্ডদের সঙ্গে পেরে ওঠেনি তারা। লুকাকু-হ্যাজার্ডের জোড়া গোল ও মিকি বাতসুইয়ির একমাত্র গোলে ৫-২ ব্যবধানে হেরেছে আফ্রিকান দেশটি।

এবারের বিশ্বকাপে ডার্ক হর্স হিসেবে অংশ নিলেও বেলজিয়ামের শুরুটা হয়েছে অন্যান্য ফেবারিটের চেয়ে দুর্দান্ত। প্রথম ম্যাচে পানামাকে ৩-০ গোলে হারানোর পর তিউনিসিয়ার জালে গোল-উৎসব করে শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে রবার্তো মার্টিনেজের দল। অন্যদিকে টানা দুই ম্যাচ হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিল তিউনিসিয়া। প্রথম ম্যাচে শক্তিশালী ইংল্যান্ডের বিপক্ষে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করেও হ্যারি কেইনের শেষ মুহূর্তের গোলে হেরে যায় তারা।

মস্কোর স্পার্তাক স্টেডিয়ামে ম্যাচের শুরুতেই আক্রমণাত্মক হয়ে খেলতে শুরু করে বেলজিয়াম। ষষ্ঠ মিনিটে ডি-বক্সের মধ্যে এডেন হ্যাজার্ডকে অবৈধ ট্যাকল করেন তিউনিসিয়ার ডিফেন্ডার সিয়াম বিন ইউসুফ। সেই সুযোগে স্পট কিক থেকে দলকে এগিয়ে নিতে বিন্দুমাত্র ভুল করেননি চেলসির এই বেলজিয়ান ফরোয়ার্ড।

১৬ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রোমেলো লুকাকু। ড্রাইস মার্টেনসের বাড়ানো বল লুকাকু একাই টেনে নিয়ে যান প্রতিপক্ষের ডি-বক্স পর্যন্ত। ডি-বক্সের সামান্য বাইরে থেকে দুর্দান্ত এক কোনাকুনি শটে পরাস্ত করেন তিউনিসিয়ার গোলরক্ষক বেন মুস্তাফাকে। কোনো মেজর টুর্নামেন্টে এটি লুকাকুর ষষ্ঠ গোল। আর এবারের বিশ্বকাপে এটি তার তৃতীয় গোল।

দুই মিনিটের মাথায় গোল শোধ করে ব্যবধান কমান তিউনিসিয়ার ফরোয়ার্ড দাইলান ব্রুন। ওয়াহবি খাজরির সেট পিস থেকে দুর্দান্ত এক হেডে বেলজিয়ামের জালে জড়ান তিনি। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে এটা তার প্রথম গোল। গোলের দেখা পেয়ে আরও উজ্জীবিত হয় তিউনিসিয়া। বাড়ে আক্রমণের ধার। ৩১ মিনিটে তিউনিসিয়ার সাসির শট একটুর জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ৪০ মিনিটে বেন ইউসুফের দূরপাল্লার একটি শট গোলবারের বাইরে দিয়ে চলে যায়।

প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে তিউনিসিয়ার জালে বল জড়িয়ে আবারও ব্যবধান বাড়ান লুকাকু। এবার ডি ব্রুইনের পাস থেকে বল পান থমাস মুনিয়ের। তার পাস থেকে বল চলে যায় সরাসরি লুকাকুর পায়ে। ডি-বক্সের ভেতর থেকে তিউনিসিয়ার জালে বল জড়িয়ে দিতে কোনো বেগই পেতে হয়নি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড তারকার। চলতি বিশ্বকাপে এটা লুকাকুর চতুর্থ গোল। ৩-১ গোলে শেষ হয় খেলার প্রথমার্ধ।
দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ব্যবধান কমাতে মরিয়া হয়ে ওঠে তিউনিসিয়া। অন্যদিকে নিজেদের আক্রমণের ধার বাড়ান লুকাকু-হ্যাজার্ডরা। ম্যাচের ৫১তম মিনিটে আবারও প্রতিপক্ষের রক্ষণভাগ ভেঙে ব্যবধান বাড়ান হ্যাজার্ড। টবি অ্যাল্ডারওয়েরল্ডের দেওয়া লং পাস থেকে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ফাঁকা ডি-বক্সে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন তিনি।

৫৯ মিনিটে মাঠ ছাড়েন টানা দুই ম্যাচে জোড়া গোল করা লুকাকু। তার বদলি হিসেবে মাঠে নামেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সতীর্থ ফেলানি। ৬১তম মিনিটে আবারও ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিল বেলজিয়াম। কিন্তু ইয়ানিক কারাসকো দূরপাল্লার একটি শট গোলবারে লেগে ফিরে যায়। ৬৭ মিনিটে মাঠ ছাড়েন হ্যাজার্ডও। তার বদলি হয়ে আসেন মিকি বাতসুইয়ি।

ম্যাচের ৭৬ মিনিটে ডি-বক্সের ভেতর বাতসুইয়ি উন্মুক্ত গোলবারে শট নিলেও গোললাইন থেকে তা রক্ষা করেন গোলরক্ষক। ৮০ মিনিটে আবারও সুযোগ পান তিনি। এবারও গোলবার তাকে গোলবঞ্চিত রাখে। পরের মিনিটে গোলবারের মাত্র ৬ গজ দূর থেকে শট নিলে গোলরক্ষক দুর্দান্ত ভঙ্গিমায় তা রুখে দেন।

শেষ পর্যন্ত আশাহত হতে হয়নি হ্যাজার্ডের বদলি হিসেবে মাঠে নামা বাতসুইয়িকে। ৯০তম মিনিটে গোলের দেখা পান তিনি। তেলেমানসের বাড়ানো দূরপাল্লার ক্রসে দারুণ শটে গোল করে গোলের দেখা পান তিনি। ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ের শেষ মিনিটে তিউনিসিয়ার হয়ে সান্ত্বনাসূচক গোল করেন খাজরি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here