বাংলাদেশের মাদকবিরোধী অভিযান: পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে রাখছে জাতিসংঘ

39

জাতিসংঘের মাদক ও অপরাধ বিষয়ক দফতর অফিস ফর ড্রাগস অ্যান্ড ক্রাইম (ইউএনওডিসি) বাংলাদেশে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানের বিষয়ে পর্যবেক্ষণ শুরু করেছে ।
শুক্রবার (১ জুন) জাতিসংঘের এ দফতরটি এক প্রেস বিবৃতিতে ইউএনওডিসির মুখপাত্র সোনিয়া ই জানান, তারা বাংলাদেশের পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে। পাশাপাশি মাদক নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে মানবাধিকার সংশ্লিষ্ট কৌশল অবলম্বনের জন্য সব সদস্য দেশের প্রতি আহ্বান জানানো হচ্ছে।
মাদক বিরোধী অভিযানে বহু মৃত্যুর ঘটনায় গণমাধ্যম এবং সিভিল সোসাইটির তরফ থেকে বিভিন্ন অনুসন্ধানের জবাবে এই বিবৃতি প্রকাশ করা হয় বলে জানায় ইউএনওডিসি।
তারা বলেছে, ‘মাদক নিয়ন্ত্রণের জন্য যে তিনটি আন্তর্জাতিক কনভেনশন আছে, সেগুলো যেন সদস্য রাষ্ট্রগুলো মেনে চলে।’
গত দুই সপ্তাহে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় মাদকবিরোধী অভিযানে গুলিতে ১২৩ জন মারা গেছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি যারা মারা গেছেন তারা তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। অভিযান চলাকালে বন্দুকযুদ্ধে তারা মারা গেছেন।
চলমান এ অভিযানে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলে অভিযোগ মানবাধিকার সংগঠনগুলোর। মাদকবিরোধী অভিযানে বিভিন্ন মহলের সন্তুষ্টি থাকলেও প্রশ্ন উঠেছে অভিযানের ধরন নিয়ে। গত ক’দিন ধরে অভিযান প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার মুখে পড়েছে সরকার।
গত সপ্তাহে টেকনাফে কথিত বন্দুকযুদ্ধে সেখানকার পৌর কাউন্সিলর ও স্থানীয় যুবলীগের সাবেক সভাপতি মো: একরামুল হক নিহত হন। এর ক’দিন পর ৩১ মে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে একটি অডিও রেকর্ড গণমাধ্যমে প্রকাশের জন্য দেন একরামুল হকের স্ত্রী।
তার পরিবারের দাবি-বাসা থেকে র্যাব ডেকে নিয়ে যাওয়ার পর একরামুল হককে গুলি করে মারা হয়েছে।
তথ্য সূত্র : সারাবাংলা