আগামি সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হচ্ছেন মাশরাফি-সাকিব!!

68

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : জাতীয় ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মর্তুজা জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটে প্রার্থী হচ্ছেন। পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। একই সাথে তিনি আরো নিশ্চিত করেছেন সাকিব আল হাসানও ভোটে অংশ নেবেন। মাশরাফির নিজ এলাকা নড়াইল এবং সাকিবের মাগুরা।
মঙ্গলবার (২৯ মে) শেরেবাংলা নগরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি একনেকের সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এসব কথা জানান।
পরিকল্পনামন্ত্রী অবশ্য নিজে থেকে মাশরাফির ভোটে দাঁড়ানোর কথা বলেছেন। আর সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সাকিবের প্রসঙ্গ তুলেছেন। তবে তারা নিজ নিজ এলাকা থেকে দাঁড়াবেন নাকি রাজধানী বা অন্য কোন জেলা থেকে নির্বাচনে অংশ নেবেন সেটা বলেননি মুস্তফা কামাল।
মন্ত্রী বলেন, ‘তারা কোন দলের হয়ে ভোটে দাঁড়াবেন, সেটা আমি জানি, কিন্তু বলবও না।’
পরে আর এক সাংবাদিক প্রশ্ন রাখেন, মাশরাফি কি আওয়ামী লীগের হয়ে ভোট লড়বেন? এ সময় মন্ত্রী বলেন, আমি তো বলি নাই কোন দল থেকে দাঁড়াবে। তিনি দাড়াবেন। তিনি ভালো মানুষ। তাকে আপনারা ভোট দেবেন। সাংবাদিক মুস্তফা কামালকে প্রশ্ন করেন, আপনি তো আর অন্য দলের প্রচার করবেন না। এ সময় মন্ত্রি বলেন, মাশরাফি ভালো মানুষ। আপনারা তাকে ভোট দেবেন।যদি বিএনপি থেকে দাঁড়ান? সাংবাদিকের এই প্রশ্নে মন্ত্রী জানান, যদি বিএনপি থেকেও দাঁড়ান তাহলেও আপনারা তাকে ভোট দেবেন।
২০১৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে মাশরাফির অংশ নেয়ার কথা আছে। এর মধ্যে তিনি রাজনীতিতে জড়িয়ে ভোট দাঁড়াবেন কীভাবে?- এমন প্রশ্ন করলে মন্ত্রী বলেন, কেন যাবে না, খেলার সময়ও নির্বাচনে দাঁড়ানো যায়। আরেক ক্রিকেট তারকা সাকিব আল হাসানের বিষয়টিও নিয়েও প্রশ্ন ছিল মন্ত্রীর কাছে। তবে এ ক্ষেত্রে প্রশ্নও ছিল সংক্ষেপে, জবাবও আসে এক কথায়। সাকিব দাঁড়াবেন না?- এমন প্রশ্নে মুস্তফা কামাল বলেন, সাকিব তো দাঁড়াবেই।
তিনি বলেন, আমার ভোট ব্যাংক হলো যারা ক্রিকেট পছন্দ করেন। আমি যখন নির্বাচন করি ৪৮ বছর বয়সে, তখন আকরাম খানসহ সবাই আমার নির্বাচনী এলাকায় গিয়েছেন। এখন মাশরাফি, সাকিব অনেক কম বয়সে নির্বাচন করবে। আমি ক্রিকেটের শীর্ষ পদে ছিলাম, আবার পদত্যাগও করেছি। আমি পদত্যাগ না করলে ক্রিকেট শেষ হয়ে যেতো। তিনি বলেন, আইসিসিতে খারাপ লোকগুলো এখন আর নেই, এটা আমাদের সবার বিজয়।
জাতীয় দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভালো সম্পর্ক রয়েছে। ২৮ মে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর ইফতারে যোগ দেন সাকিব, মাশরাফির সঙ্গে মুশফিকুর রহিমও।