অর্থ আত্মসাতের মামলায় কুষ্টিয়া ইউনিভার্সিটির কর্মকর্তাকে নড়াইলের কারাগারে প্রেরণ

70

নড়াইল কণ্ঠ : নড়াইলের দু’যুবককে বিদেশ পাঠানোর নামে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার মামলায় আলমগীর হোসেন খান নামে এক প্রতারককে বিজ্ঞ বিচারক জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন। বৃহস্পতিবার (১৭ এপ্রিল) অর্থ আতœসাৎ ও প্রতারণা মামলার একমাত্র আসামী আলমগীর হোসেন খান (৪৭) নড়াইল সদর নালিশী আদালতে হাজির হ’লে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। তার বাড়ি পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া থানার মিঠাখালী গ্রামে। প্রতারক আলমগীর হোসেন খান কুষ্টিয়া ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ে সহকারি রেজিষ্ট্রার হিসেবে কর্মরত আছেন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, নড়াইল সদর উপজেলার লস্করপুর গ্রামের অহিদুজ্জামান ও বাগবাড়ি গ্রামের সহিদুল ইসলামের সাথে পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে সিঙ্গাপুর পাঠানোর কথা বলে তাদের নিকট হতে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। ২০১৭ সালের ৫ জানুয়ারি স্ট্যাম্পে লিখিত চুক্তি করে এ টাকা নেয়। টাকা নেয়ার সময় তাদের ৬ মাসের মধ্যে সিঙ্গাপুর পাঠানোর চুড়ান্ত কথা দেয়। টাকা নিয়ে তিনি (আলমগীর) অহিদুজ্জামান ও সহিদুল ইসলামের পাসপোর্ট করে দেন। পাসপোর্ট হাতে পেয়ে তাদের আলমগীরের প্রতি আস্থা বিশ্বাস বেড়ে যায়। এরপর তারা আলমগীরের সাথে বিদেশ যাওয়ার দিন জানতে চাইলে আজকাল বলে ঘুরাতে থাকেন। এক পর্যায়ে অহিদুজ্জামান ও সহিদুল তার নিকট টাকা ফেরত চাইলে টাকা না দিয়ে নানা তালবাহানা শুরু করেন। নিরূপায় হয়ে ২০১৭ সালের ২৮ নভেম্বর লিখিত স্ট্যাম্পের চুক্তিনামা দেখিয়ে সহিদুল ইসলাম বাদি হয়ে নড়াইল সদর নালিশী আদালতে মামলা করেন। আদালত মামলা আমলে নিয়ে আলমগীরের বিরুদ্ধে সমন জারী করেন। এরই ধারাবাহিকতায় আলমগীর হোসেন খান বৃহস্পতিবার (১৭ মে) আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।