এসএসসিতে যশোর বোর্ডে নড়াইল শীর্ষে

151

নড়াইল কণ্ঠ ডেস্ক : যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের আওতায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলার মধ্যে ২০১৮ সালের এসএসসিতে সবচেয়ে ভালো ফলাফল করেছে নড়াইল জেলা। পাসের হারের দিক দিয়ে শীর্ষে রয়েছে নড়াইল জেলা। গত বছর এই তালিকায় ৮ম ছিল নড়াইল। আর গতবারের শীর্ষ জেলা খুলনা নেমে গেছে দ্বিতীয়তে। তবে মাগুরার অবস্থান একইরকম। গতবছরও তারা ১০ নম্বরেই ছিল।
যশোর শিক্ষা বোর্ড সূত্রে জানা যায়, বোর্ডের অধীনে খুলনা বিভাগের থেকে এবছর মোট ১ লাখ ৮৩ হাজার ৫৮৫ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১ লাখ ৪০ হাজার ৬৯৯ জন। পাসের হার ৭৬ দশমিক ৬৪ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৯ হাজার ৩৯৫ জন।
বোর্ডের মধ্যে সবচেয়ে ভালো ফলাফল করেছে নড়াইল জেলা। এই জেলা থেকে ৯ হাজার ৫২৯ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতকার্য হয়েছে ৭ হাজার ৭৭৭ জন। পাসের হার ৮১ দশমিক ৬১। গতবছর বোর্ডে ৮ম অবস্থানে ছিল জেলাটি।
গত বছর প্রথম অবস্থানে থাকা খুলনা এবার নেমে গেছে দ্বিতীয় স্থানে। এ জেলা থেকে ২৭ হাজার ৩৩৫ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ২২ হাজার ২১৪ জন। পাসের হার ৮১ দশমিক ২৭ শতাংশ।
তৃতীয় স্থানে রয়েছে যশোর জেলা। গত বছরের তুলনায় এক ধাপ উন্নতি করা এই জেলা থেকে ৩১ হাজার ৯৪৩ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ২৫ হাজার ৬৬০ জন। পাসের হার ৮০ দশমিক ৩৩ শতাংশ।
গত বছর দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা সাতক্ষীরা এবার ৪র্থ। এ জেলা থেকে ১৯ হাজার ৯৪৪ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ১৫ হাজার ৩৫৪ জন। পাসের হার ৭৬ দশমিক ৯৯ শতাংশ।
৭ম স্থান থেকে এগিয়ে এবার ৫ম হয়েছে বাগেরহাট জেলা। এ জেলা থেকে ১৫ হাজার ৯৩০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে পাস করেছে ১২ হাজার ২৪৯ জন। পাশের হার ৭৬ দশমিক ৮৯।
গত বারের ৫ম কুষ্টিয়া জেলা এবার ৬ষ্ঠ। এ জেলা থেকে ২৪ হাজার ৪২৬ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে কৃতকার্য হয়েছে ১৮ হাজার ৫২৬ জন। পাসের হার ৭৫ দশমিক ৮৫ শতাংশ।
গত বছরের তৃতীয় মেহেরপুর এবার নেমে গেছে সপ্তমে। এ জেলা থেকে ৮ হাজার ৮২ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা নিয়ে পাস করেছে ৬ হয়েছে ১২৫ জন। পাসের হার ৭৫ দশমিক ৭৯ শতাংশ।
৯ম অবস্থান থেকে ৮ম স্থানে এসেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা। এখান থেকে ১২ হাজার ১৩ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ৯ হাজার ২৭ জন। পাসের হার ৭৫ দশমিক ১৪।
ঝিনাইদহ জেলা গতবারের ৬ষ্ঠ অবস্থান থেকে নেমে এবার ৯ম হয়েছে। এখান থেকে ২২ হাজার ১০৯ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ১৫ হাজার ৮৪০ জন। পাসের হার ৭১ দশমিক ৬৫।
আর গত বারের মত এবারও যশোর বোর্ডে তলানিতে অবস্থান করছে মাগুরা। এ জেলা থেকে ১২হাজার ২৭৪ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে ৭ হাজার ৯২৭ জন। পাসের হার ৬৪ দশমিক ৫৮।
যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাধব চন্দ্র রুদ্র জানিয়েছেন, বোর্ডের সার্বিক ফলাফলের উন্নতির জন্য বোর্ডের গৃহীত পদক্ষেপসমূহ অব্যাহত রয়েছে। বোর্ড কর্মকর্তারা বিভিন্ন স্কুল তাৎক্ষণিক পরিদর্শনসহ শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। নিয়মিত লেখাপড়ায় শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। বোর্ডের প্রশ্ন ব্যাংকের মাধ্যমে স্কুলগুলোতে পাঠিয়ে পরীক্ষা গ্রহণ করায় তার প্রভাব ফলাফলে পড়ছে।