নড়াইলে দুইপক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১, ইউপি চেয়ারম্যানসহ আটক ৫

123

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার পারমল্লিকপুর গ্রামে দুইপক্ষের সংঘর্ষে আবুল খায়ের (৩৮) নিহত হয়েছেন। শনিবার সকাল ১০টার দিকে তার মৃত্যু হয়। খায়ের পারমল্লিকপুরের মোয়াজ্জেম হোসেন মকিম মৃধার ছেলে। এ ঘটনায় পাঁচজন গুলিবিদ্ধ এবং দু’জনকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৫ জনকে আটক করেছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে লোহাগড়ার পারমল্লিকপুর গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে ঠাকুর ও মৃধা গ্রæপের মধ্যে দ্ব›দ্ব-সংঘাত চলে আসছিল। এর জের ধরে আজ শনিবার সকালে ঠাকুর গ্রæপের লোকজন মৃধা গ্রæপের লিটু (৫০) ও আকরামকে (৪৫) কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। পরে মৃধা গ্রæপের লোকজন ঠাকুর গ্রæপের খায়েরকে (৩৮) কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। আহত খায়েরকে ঢাকার নেয়ার পথিমধ্যে ফরিদপুরে মারা যান।
এদিকে পারমল্লিকপুর গ্রামের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী পিংকি খানমসহ আনিস, রিয়াজুল ঠাকুর, নিয়ন ও সজীব শেখ শটগানের গুলিতে আহত হয়েছেন। আহতদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুলি লেগেছে। আহতরা জানান, পুলিশের গুলিতে তারা আহত হয়েছেন। অবশ্য পুলিশ এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে। আহতদের প্রথমে লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনায় পাঠানো হয়েছে।
নড়াইলের সহকারী পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান মাসুম জানান,এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শিকদার মোস্তফা কামালসহ ৫ জনকে করা হয়েছে।
নড়াইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন পিপিএম জানান, এলাকায় আধিপত্য নিয়ে দুইগ্রæপের সংঘর্ষ হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ২০ রাউন্ড শটগানের গুলি ছুঁড়ে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।